২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদেশি বিনিয়োগে পাকিস্তানকে টেক্কা বাংলাদেশের

বিদেশি বিনিয়োগে পাকিস্তানকে টেক্কা বাংলাদেশের

অনলাইন ডেস্ক ॥ অর্থনীতি অস্থির। চলমান চিত্র। ভাঙা-গড়া, ওঠা-পড়া, আরোহ অবরোহ। আবহমান কাল এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকে না। পিছলে নেমে এলে, ঠেলে তুলতে হয়। উঠলে আরও ওঠানোর তৎপরতা। বাংলাদেশের অর্থনীতি ঊর্ধ্বমুখী। বার্নার্ড শ’ বলতেন, নিজের ঢাক না পেটালে কে পেটাবে। তার দরকার নেই বাংলাদেশের। রাষ্ট্রপুঞ্জের বাণিজ্য ও উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা ইউনাইটেড নেশনস কনফারেন্স অব ট্রেড অ্যান্ড ডেভলপমেন্টের রিপোর্টই তাদের সাফল্যের দলিল। উন্নতির কারণ বিদেশি বিনিয়োগ বৃদ্ধি। পাঁচ বছর ধরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে বিনিয়োগের হার। ২০১১তে ১১৯ কোটি ডলার, ২০১২তে ১৩০ কোটি, ২০১৩তে ১৬০ কোটি, ২০১৪তে ১৫৩ কোটি, ২০১৫তে হাই জাম্পে একেবারে ২২৩ কোটি ডলারে। বাংলাদেশি টাকায় ১৭ হাজার ৩৯৪ কোটি। বিদেশিরা নিশ্চয় টাকা জলে ফেলেননি। অনেক অঙ্ক কষে বিনিয়োগ। মুনাফার গ্যারান্টি পেয়েই বাংলাদেশে ঝোঁক। বিনিয়োগ বৃদ্ধি ৪৬ শতাংশ। কম কথা নয়। বিশ্ব বাজার খুব চাঙ্গা বলা যায় না। মন্দা কিছুটা কাটিয়ে উঠলেও, ধূসর ছায়া। কোনও সংস্থা এক পা এগোতে দশবার ভাবে। তা সত্ত্বেও বিনিয়োগ আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু বাংলাদেশ।

অন্য দেশ বাংলাদেশকে নিয়ে যতটা ভাবছে, ভারত ততটা নয়। প্রতিবেশী দেশ হিসেবে তাদের বিনিয়োগ অনেক বেশি হওয়ার কথা ছিল। হয় নি। বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগের নিরিখে ভারতের স্থান সপ্তম। দূরের দেশ বিনিয়োগ করে যাবে, ভারত দেখবে, সেটা হয় কী করে! উদ্যোগে টান কেন। মুখে কথার ফুলঝুরি। কাজের বেলায় অষ্টরম্ভা। আশাবাদী বাংলাদেশ। সেই আশার মেঘ যাতে ঠিকঠাক সঞ্চারিত হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে ভারতকে।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা