২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এবার মানুষের দুর্ভোগ কম হয়েছে : সেতুমন্ত্রী

এবার মানুষের দুর্ভোগ কম হয়েছে : সেতুমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, এবারের ঈদে গত কয়েক বছরের তুলনায় মানুষের দুর্ভোগ ও দূর্ঘটনা কম হয়েছে। যানজট হয়নি, হয়েছে জনজট। জনজট, বৃষ্টি এবং রাস্তায় ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান চলাচলের কারণে যাত্রীদের কিছুটা দুর্ভোগ হয়েছে। ঈদে ঘরমুখো যাত্রী আর নেই। এখন চ্যালেঞ্জ হচ্ছে ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফিরে আসা মানুষদের নিয়ে। তারা ঈদের ছুটি কাটিয়ে কিভাবে স্বাচ্ছন্দে কর্মস্থলে পূণঃরায় ফিরতে পারে সেই ব্যাপারে এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। এজন্য সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারিদের শুধুমাত্র ঈদের দিন সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ছুটি প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া বাকি সময় তাদের রাস্তায় থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মন্ত্রী আজ বুধবার দুপুরে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তা মোড় এলাকায় ঈদে যানজট পরিস্থিতি পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ, গাজীপুর সওজ এর নির্বাহী প্রকৌশলী ডি.এ.কে.এম. নাহীন রেজাসহ সড়ক ও জনপথের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, ঈদের আগে গার্মেন্টস কারখানাগুলো একসঙ্গে ছুটি হয়। যার ফলে সব শ্রমিকরা এক সঙ্গে বাড়ি ফিরতে যাওয়ায় মঙ্গলবার চন্দ্রা, বাইপাইল ও মির্জাপুর পর্যস্ত রাস্তায় কয়েক ঘন্টা জনজট সৃষ্টি হয়। ঈদের তিন দিন আগে থেকে রাস্তায় কাভার্ড ভ্যান ও ট্রাক চলাচল করার নিষেধ থাকলেও তা অর্ধেক মানা হয়েছে। এছাড়া টানা বর্ষনের কারণে রাস্তায় যানবাহনের গতি কম থাকায় কিছুটা সমস্যা হয়েছে। গার্মেন্টস কারখানাগুলো পর পর তিন দিন ছুটি দেয়ার আশ^াস দিলেও মালিকদের পক্ষ থেকে তা মানা হয়নি। ফলে মানুষের কিছুটা দূর্ভোগ হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামি কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে যানজট পরিস্থিতি কিভাবে আরো উন্নতি করা যায় সে ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া হবে। ঈদের পর রাস্তার পাশ থেকে সব ধরনের বিলবোর্ড উচ্ছেদ করা হবে। বৃষ্টির কারণে যেসব রাস্তা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সেসব রাস্তা দ্রুতগতিতে মেরামত সম্পন্ন করাই এখন আমাদের কাজ।