১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝুঁকিপূর্ণ সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যুর মহামারি

ঝুঁকিপূর্ণ সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যুর মহামারি

অনলাইন ডেস্ক॥ গত সপ্তাহে এক জার্মান পর্যটক পেরুর আন্দিজ পর্বতমালার ওপরে ইনকা সভ্যতার প্রত্নতাত্মিক ধ্বংসাবশেষ মাচু পিচু থেকে লাফ দিয়ে সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। তার মাত্র একদিন আগে দেশটির গোকটা জলপ্রপাতে একইভাবে ছবি তুলতে গিয়ে আরেকজনের মৃত্যু হয়।

এভাবে ঝুকিপুর্ণভাবে সেলফি তুলতে গিয়ে একের পর এক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেই চলেছে।

প্রাইসওনোমিকস এর গবেষণা মতে, সেলফি-সংশ্লিষ্ট মৃত্যুর ঘটনাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে উচ্চস্থান থেকে পড়ে ও পানিতে ডুবে। সেলফি তুলতে গিয়ে মারা পড়াদের গড় বয়স ২১। আর এদের ৭৫ শতাংশই পুরুষ।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ঝুঁকিপূর্ণ সেলফি তুলতে গিয়ে ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে ভারতে বিশ্বের সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়। এর ফলে ভারত সরকার দেশটির পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে “নো সেলফি” জোন সৃষ্টি করতে বাধ্য হয়।

ওদিকে রাশিয়ার সরকার গত বছর নিরাপদ সেলফি তোলার দিক নির্দেশনা সম্বলিত একটি পাবলিক গাইড প্রকাশ করেছে।

নরওয়ের পর্যটন বোর্ডও তাদের ওয়েব পেজে নিরাপদ সেলফি তোলার দিকনির্দেশনা প্রকাশ করেছে।

আর চলতি বছরের প্রথম দিনে নববর্ষ উদযাপন করতে গিয়ে নিউ ইয়র্কের ফোর সিজন হোটেলের ছাদের কার্নিশ থেকে পড়ে এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়।

গত দুই বছর ধরেই ঝুঁকিপূর্ণভাবে সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যুর হারে কোনো কমতি দেখা যাচ্ছে না। যা খুবই উদ্বেগজনক।

ইতোমধ্যেই বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট আসক্তির কারণে মানসিক অসুস্থতার মহামারি দেখা দিয়েছে। সেলফিও প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট কোনো মানসিক অসুস্থতার মহামারির কারণ হয়ে ওঠার আগেই আমাদেরকে সাবধান হতে হবে।