১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আর্জেন্টিনার সমস্যা সমাধান করতে চান ম্যারাডোনা, কিন্তু.

আর্জেন্টিনার সমস্যা সমাধান করতে চান ম্যারাডোনা, কিন্তু.

অনলাইন ডেস্ক ॥ আর্জেন্টিনার ফুটবলের সঙ্কট চলছে। ভয়াবহ সঙ্কট। আগামী মাসে অলিম্পিক গেমসে ফুটবল দল পাঠানো নিয়েও শঙ্কায় পড়েছিল তারা। এই দুঃসময়ে দেশের ফুটবল সংস্থা এএফএর পাশে দাঁড়িয়েছেন আর্জেন্টিনার ফুটবল কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনা। আর্জেন্টিনার চলমান সমস্যার সমাধানে সহায়তা করতে চান। কিন্তু ম্যারাডোনার সহায়তা নেওয়ার অবস্থাতেও বুঝি নেই এএফএ!

আর্জেন্টিনার ফুটবল সংস্থার কমিটি ভেঙে দিল ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা। এরপর কোপা আমেরিকার ফাইনালে হেরে দেশটির হিরো লিওনেল মেসি অপ্রত্যাশিত অবসরের ঘোষণা দিলেন। তারপরই জাতীয় দলের কোচ জেরার্দো মার্তিনো পদত্যাগ করলেন অব্যবস্থাপনার অভিযোগ তুলে। এই অবস্থায় বুধবার এএফএর সদরদপ্তরে গেলেন ম্যারাডোনা। সেখানে ফিফার কমকর্তারা একজোট হয়ে কাজ করেছেন স্থানীয় ফুটবল কর্মকর্তাদের সাথে। তাদের সঙ্গে বসলেন ম্যারাডোনা। বৈঠক করলেন। কিন্তু ম্যারাডোনো বৈঠক থেকে বের হলেন রাগ নিয়ে।

"মিটিং সংক্ষিপ্ত করে ফেলা হয়েছে। আমার মিটিং কেউ সংক্ষিপ্ত করতে পারে না!" ক্ষুব্ধ ম্যারাডোনা বলেছেন, "আমি এসেছিলাম ফুটবল ও এএফএর সমস্যা নিয়ে কথা বলতে।" আরো কিছু কথা বলে ৫৫ বছরের ম্যারাডোনা গটগট করে বেরিয়ে যান।

মার্তিনোর পদত্যাগের পর আর্জেন্টিনার অলিম্পিক দলের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে হুলিও ওলারতিচোচিয়াকে। আর্জেন্টিনা নারী দলের কোচ তিনি। ম্যারাডোনা আর্জেন্টিনাকে ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন। ২০১০ বিশ্বকাপের কোচ ছিলেন। কিন্তু তার জন্য এএফএতে কাজ দেখছেন না সংস্থাটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান লুইস সেগুরা। এখন কোনো ''জায়গা খালি নেই। আর ম্যারাডোনা নিশ্চয়ই ওলারতিচোচিয়ার সহকারী হবেন না।"

অর্থ কেলেঙ্কারি ও দূর্নীতির অভিযোগ এএফএর বিরুদ্ধে। সরকার তদন্ত চালাচ্ছে। কিন্তু ম্যারাডোনার দাবি মাফিয়া এখনো চালাচ্ছে ফুটবল সংস্থাটি, "এখনো গ্রোন্দোনার মাফিয়ারা আছে। আমি অডিট চাই। পরিচ্ছন্ন এএফএ চাই।" হুলিও গ্রোন্দোনা আর্জেন্টিনার ফুটবল সংস্থার প্রেসিডেন্ট ছিলেন ১৯৭৯ সাল থেকে ২০১৪ সালে তার মৃত্যুর আগ পর্যন্ত।