১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইদ-উল-ফিতর সম্পর্কে ১০ তথ্য

ইদ-উল-ফিতর সম্পর্কে ১০ তথ্য

অনলাইন ডেস্ক ॥ রমজান মাস শেষ। আজ ইদ। সারা পৃথিবীর সঙ্গে ভারতও আজ ইদের খুশিতে মাতোয়ারা। গোটা রমজান মাস জুড়ে উপবাস ও দান-খয়রতের মাধ্যমে খারাপ কর্মফলের শুদ্ধি ও ঈশ্বরের সঙ্গে সংযোগের পর আজ নতুন পোশাক, দাওয়াত, বন্ধুত্ব, শুভেচ্ছায় খুশির ইদ উদযাপন। জেনে নিন ইদ সম্পর্কে ১০ তথ্য।

রমজানের অর্থ শুকনো ও কাঠফাটা গরম। এই সময়ও কষ্ট সহ্য করেও বিলাস থেকে সংযম রক্ষাই রমজানের উদ্দেশ্য।

বয়ঃসন্ধির সময় থেকেই রমজানে উপবাস রাখার নিয়ম। শুধু অসুস্থ, গর্ভবতী, ঋতুমতী ও বয়স্ক মানুষরা ছাড়া সকলেই উপোস করেন এই সময়।

শুধু উপোস করা নয়। এই এক মাস যে কোনও নেতিবাচক আবেগ, রাগ, ঈর্ষা, অহংকার সংবরণ করার নিয়ম।

সারা বিশ্বের ১৬০ কোটি মুসলিম উপবাস রাখেন এক মাস। বিভিন্ন প্রান্তের সময় অনুযায়ী বিভিন্ন সময় হয় ইফতার।

এক মাস টানা উপবাসের স্বাস্থ্যকর দিক রয়েছে। এতে ওজন যেমন কমে, তেমনই মানসিক শক্তিও বাড়ে।

রমজানের শেষ দিন দরিদ্রদের মধ্যে খাবার, পোশাক, অর্থ বিলি করা হয়। এই রেওয়াজকে সাদাকহ আল ফিতর বলা হয়।

রমজানের ২৯ বা ৩০তম দিনে একফালি চাঁদ দেখে শুরু হয় ইদ উদযাপন।

খোলা আকাশের নীচে প্রার্থনা করে ঈশ্বরের কাছে আত্মসমর্পণই ইদের রীতি

ভালবেসে সকলকে বুকে টেনে নেওয়াই ইদের রেওয়াজ। সকলের মধ্যে ভালবাসা ছড়িয়ে দিয়ে ঈশ্বরের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করা হয়।

ইদের দিন নিজের সেরাটা দেওয়ার নিয়ম।

খুশির এই দিনে বিনয়, কৃত়জ্ঞতা, নম্রতা দেখানোই রেওয়াজ।যাতে গোটা গোটা বছরই এই গুণগুলোই আমাদের এগিয়ে নিয়ে যায়।

খুশির এই দিনে বিনয়, কৃত়জ্ঞতা, নম্রতা দেখানোই রেওয়াজ।

যাতে গোটা গোটা বছরই এই গুণগুলোই আমাদের এগিয়ে নিয়ে যায়।ধ্যে ভালবাসা ছড়িয়ে দিয়ে ঈশ্বরের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করা হয়।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা