২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এবার ঢাকা ফেরার পালা॥ রবিবার অফিস খুলছে

এবার ঢাকা ফেরার পালা॥ রবিবার অফিস খুলছে

অনলাইন রিপোর্টার ॥ ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি শেষে আবারো কর্মযুদ্ধে যোগ দিতে এবার ঢাকা ফেরার পর্ব শুরু হয়ে গেছে। শনিবার সকাল থেকেই বিভিন্ন বাহনে করে রজধানীতে ফিরছেন মানুষ।

বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠানে চাকরিজীবীদের ঈদের ছুটি শেষ হয়ে গেছে শুক্রবারই। তবে সরকারি চাকরিজীবীরা একদিন বাড়তি পেয়েছিলেন, তাদের সে সময়ও শেষ হচ্ছে আজ শনিবার। সব মিলিয়ে সরকারি-বেসরকারি সকলেরই ছুটির মেয়াদ শেষ হয়েছে। ব্যাংক-বীমা, অফিস-আদালত খুলছে আগামীকাল রবিবার। আর তাই সবাই এখন নগরমুথী।

শনিবার ঈদের তৃতীয় দিন কমলাপুর রেলস্টেশনে দেখা গেছে ঢাকায় ফেরা মানুষের ভিড়। ট্রেনগুলো ফিরছে যাত্রীভর্তি হয়ে। নিজের আসনে যাত্রীরা তো বসে আছেনই, সিট না পেয়ে দাঁড়িয়েও থাকতে হয়েছে অনেককে।

তবে ট্রেনের শিডিউলে তেমন বড় কোনো বিপর্যয় না হওয়ায় ভোগান্তি ছাড়াই রাজধানীতে ফিরতে পারছেন যাত্রীরা। ট্রেন পৌঁছাতে কিছুটা বিলম্ব হলেও প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে রাজধানীতে ফিরে খুশি কর্মজীবীরা।

ভোর ৫টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ১৮টি ট্রেন ঢাকায় পৌঁছেছে। এর মধ্যে প্রতিটি ট্রেনই ৩০ থেকে ৪০ মিনিট দেরি করেছে। তবে এই বিলম্বকে স্বাভাবিক বলেই মেনে নিচ্ছেন যাত্রীরা।

স্বল্প সময়ের জন্য হলেও পরিবার-পরিজনের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে ঢাকায় পৌঁছাতে পেরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন একাধিক মানুষ। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী জানিয়েছেন, ঈদের তৃতীয়দিন ট্রেনের শিডিউলে বিপর্যয় হয়নি। কয়েকটি ট্রেন বিলম্বে ছাড়ার কারণে ২০ মিনিট থেকে আধা ঘণ্টা দেরিতে স্টেশনে পৌঁছাচ্ছে। আর ঈদের সময় অতিরিক্ত যাত্রী থাকায় মাল ওঠানামাসহ বিভিন্ন কারণে কিছুটা বিলম্ব হয়, এটা স্বাভাবিক। যাত্রীদের সুবিধার্থে সব ট্রেনে অতিরিক্ত বগি লাগানো হয়েছে। ফিরতি যাত্রীদের জন্য বিশেষ ট্রেন সার্ভিস পরিচালনা করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। বিভিন্ন বাস টার্মিনালে দেখা গেছে বাস ভর্তি মানুষ। মহাখালি বাস টার্মিনালে দেখা যায়, একের পর এক বাস যাত্রীসহ আসছে আবার মুহূর্তের মধ্যেই ছুটে যাচ্ছে। যাওয়ার সময় বাসের যাত্রী একটু কমই থাকছে। কারো বা যাত্রীই নেই। তবু বাস দেড়ি না করে ছুটে যাচ্ছে নগরে ফেরা মানুষদের নিয়ে আসার জন্য।

সদরঘাটেও দেখা গেছে মানুষের নগরে ফেরার ভিড়।

এদিকে, পবিত্র ঈদুল ফিতরের ৯ দিনের লম্বা ছুটি শেষে রবিবার খুলছে সচিবালয়সহ সব ব্যাংক-বীমা, অফিস-আদালত। নাড়ির টানে যারা ফিরেছিলেন বাড়ি তারা এখন আবার মন দিবেন কর্মে। মানুষ ঢাকামুথী হলেও পথে পথে যানজট বা দুর্ভোগ এখনো কেমন একটা শুরু হয়নি। প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে নির্বিঘ্নে ঢাকা আসছে মানুষ।

যদিও আগামীকাল রবিবার অফিস শুরু হচ্ছে তবে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি কম থাকবে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। কারণ অনেকে সাধারণ ছুটির সঙ্গে অতিরিক্ত ছুটি নিয়েছেন তারা যোগ দিবেন আরো কিছু দিন পরে। তাই একসাথে সবাই বাড়ি গেলেও ফেরার সময় হিসেবটা ভিন্ন হয়। তাই যানজট ও জনজট দুই কম হয়। এছাড়াও নগরীর সেই চিরচেনা রূপ পেতে সময় লাগবে আরো এক সপ্তাহ।

এদিকে অফিস পাড়ার প্রথম দিন চলবে শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। আর ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়। একই ভাবে ব্যাংক পাড়ায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া লেনদেনও খুব একটা হবে না।