১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গ্রীক-রুশ অস্ত্র চুক্তি ক্ষুণ্ণ করবে ন্যাটোর ঐক্য

  • উদ্বিগ্ন সামরিক জোটের কর্মকর্তারা

মস্কোর সঙ্গে কোন প্রতিরক্ষা চুক্তি করতে গ্রীসের প্রয়াসে রাশিয়ার আরও আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ন্যাটোর কোন ঐক্যবদ্ধ রুশ ফ্রন্ট গড়ার চেষ্টা গুরুতরভাবে ব্যাহত হতে পারে। সামরিক জোটের উর্ধতন কর্মকর্তারা এ উদ্বেগ ব্যক্ত করেছেন। খবর টেলিগ্রাফের।

পূর্ব ইউরোপ ও সাবেক সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রগুলোতে নিরাপত্তা রক্ষা করা ন্যাটো শীর্ষ সম্মেলনে প্রাধান্য পাবে বলে মনে হয়। ২৮ সদস্যের এ জোটের নেতারা শনিবার ওয়ারশতে বৈঠকে মিলিত হয়েছেন। ব্রিটেন গত মাসের গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ত্যাগের পক্ষে রায় দেয়ার পর এটিই পশ্চিমা নেতাদের প্রথম বৈঠক। গণভোটকে ইউরোপে এমন বিভেদ সৃষ্টি করেনি যার সুযোগ ক্রেমলিন নিতে পারে- এমনটি দেখাতে ন্যাটো নেতারা উদ্্গ্রীব। কিন্তু ন্যাটো কর্মকর্তারা গ্রীস ও মস্কোর প্রতিরক্ষা সম্পর্ক গভীরতর হওয়ার বিষয়ে উদ্বেগ ব্যক্ত করছেন। তাদের আশঙ্কা এটি রাশিয়ার বিরুদ্ধে ন্যাটোর ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্ট গঠনের চেষ্টা বানচাল করে দিতে পারে। গ্রীসের প্রতিরক্ষামন্ত্রী পানোস কামেনসের গত মাসের এক ঘোষণা থেকেই ন্যাটোর উদ্বেগ দেখা দেয়। তখন তিনি কালাশনিকভ রাইসেল তৈরি করতে রাশিয়ার সঙ্গে নতুন অংশীদারি গড়ার কথা ঘোষণা করেন। গ্রীক সরকার বলছে, চুক্তিটি দেশের প্রতিরক্ষা শিল্পের ভেঙে পড়া রোধ করতে অপরিহার্য। কিন্তু চুক্তিটি বাস্তবায়ন করতে হলে মস্কো জোর দিয়ে বলছে যে, গ্রীসকে অবশ্যই প্রথমে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে এর ইউরোপস্থ ন্যাটো অংশীদারদের রাজি করাতে হবে। ২০১৪ সালে রাশিয়ার ক্রিশিয়া দখলের পরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কামেনস কয়েক দফা স্পষ্ট মন্তব্য করার পর অনেক ন্যাটো নেতা তাকে সন্দেহের চোখে দেখছেন। তিনি কৃচ্ছ্রনীতিবিরোধী ডানপন্থী ইন্ডিপেন্ডেন্ট গ্রীকস পার্টির নেতা। গত বছর তিনি হুমকি দেন যে গ্রীসকে কৃচ্ছ্রনীতি গ্রহণ করতে হবে বলে ইইউর দাবি প্রত্যাহার না করা হলে তিনি লাখ লাখ অর্থনৈতিক অভিবাসী ও জিহাদীকে ইউরোপে ঠেলে দেবেন। ইউরোপ জার্মানির নব্য-নাৎসীদের হাতে শাসিত হচ্ছে বলে দাবি করেও তিনি গভীরভাবে জার্মানির মনোক্ষুণœ করেন। কিন্তু মস্কোর সঙ্গে গ্রীসের প্রতিরক্ষা সম্পর্ক গভীরতর করার চেষ্টাই ন্যাটো কর্মকর্তাদের মনে সবচেয়ে বেশি উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। এক কর্মকর্তা বলেন, যদি আমাদের ইউরোপে রাশিয়ার আরও আগ্রাসী তৎপরতা নিবৃত্ত করতে হয়, তা হলে মস্কোর বিরুদ্ধে ন্যাটো নেতাদের এক ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্ট দাঁড় করানো অপরিহার্য।

তাইওয়ানে ট্রেনে বিস্ফোরণ ॥ সন্দেহভাজনের নাম প্রকাশ

তাইওয়ানের রাজধানী তাইপেতে একটি ব্যস্ত কমিউটার ট্রেনে পাইপ বোমা বিস্ফোরণের সন্দেহভাজন মূল হোতার নাম প্রকাশ করেছে পুলিশ। ওই বিস্ফোরণে সন্দেহভাজন হামলাকারীসহ অন্ততপক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন। খবর বিবিসির।

সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তির নাম লিন ইং-চ্যাঙ নামের ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। যিনি নিজেও গুরুতর আহত হয়েছেন।

পুলিশ বলেছে, হাসপাতালে চিকিৎসাধীর ওই ব্যক্তি এখনও অচেতন অবস্থায় রয়েছেন। বৃহস্পতিবার দিন শেষে মধ্যরাতের আগে এই ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে। পুলিশ ওই ব্যক্তির আঙ্গুলের ছাপের সঙ্গে বিস্ফোরিত পাইপের অংশবিশেষে পাওয়া ছাপের খুঁজে পেয়েছে। তাইপের সংসান স্টেশনে কমিউটার ট্রেনের যে বগিতে এটি বিস্ফোরিত হয়েছে সেখানে লিন ইং চ্যানের পাশেই এটি পড়েছিল।