১৭ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বরিশালে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ ঈদের দিন দুপুরে স্থানীয় সাংসদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে ফেরার পথে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দু’দফা হামলা ও সংঘর্ষে একজন নিহত ও কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার উলানিয়া ইউনিয়নের পানবাড়িয়া গ্রামে।

জানা গেছে, নিহত ফারুক সরদার (৪২) উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের তোফাজ্জেল সরদারের ছেলে এবং উলানিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আলতাফ হোসেন সরদারের বোনের ছেলে। সূত্রমতে, চেয়ারম্যান আলতাফ সরদারের সঙ্গে একই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও বহিষ্কৃত আ’লীগ নেতা জামাল মোল্লার দীর্ঘদিন থেকে রাজনৈতিক বিরোধ চলে আসছে। ঈদের দিন সকালে মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে পাতারহাট পৌর এলাকায় স্থানীয় সংসদ সদস্য পংকজ দেবনাথের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করতে যান চেয়ারম্যান আলতাফ সরদার ও তার সহযোগীরা। বেলা বারোটার দিকে ফেরার পথে পানবাড়িয়া এলাকায় জামাল মোল্লার সহযোগীরা মোটরসাইকেলের বহরে অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। হামলায় আলতাফ সরদারের ভাগ্নে ফারুক সরদার নিহত হন। এক পর্যায়ে আলতাফ সরদারের সহযোগীরা পাল্টা হামলা চালিয়ে পানবাড়িয়া গ্রামের জামাল মোল্লার বসতবাড়ি ভাংচুর করে।

মাগুরায় এক

নিজস্ব সংবাদদাতা মাগুরা থেকে জানান, শালিখা উপজেলায় শুক্রবার রাতে দুটি ঘটনায় প্রতিপক্ষের হামলায় এক আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত এবং অপর কর্মী আহত হয়েছে । চটকাবাড়িয়া গ্রামে শুক্রবার রাতে প্রতিপক্ষের হামলায় আঃ জলিল মোল্লা (৪৮) নামে আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত হয়েছেন । নিহত জলিল মোল্লা ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার নাটোপাড়া গ্রামের আব্দুর গফুর মোল্লার ছেলে । এদিকে পৃথক ঘটনায় শালিখার তালখড়ি গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় আওয়ামী লীগ কর্মী মহব্বত হোসেন গুরুতর আহত হয়েছে । তাকে প্রথমে যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে ঢাকায় পাঠনো হয়েছে ।

আড়াইহাজারে বাড়ি ভাংচুর

নিজস্ব সংবাদদাতা নারায়ণগঞ্জ থেকে জানান, আড়াইহাজারে গত তিনদিনে বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে যুবলীগ নেতা মাহবুবসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষের সময় বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, ঈদের আগের দিন বুধবার উপজেলার খাগকান্দা ইউনিয়নের কাকাইলমোড়া এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শহিদুল্যাহর নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক লোকজন দেশী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষ বাবুল হোসেন ও তার লোকজনের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় পাঁচজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে মনির, মোমেন ও রমজানকে আহত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অপরদিকে ঈদের পরদিন শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের বিরোধ নিয়ে একই ইউনিয়নের তাতুয়াকান্দা এলাকার বাসিন্দা সাইফুল ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাহাবুবের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। পরে এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১২ জন আহত হয়েছে।

এদিকে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে আড়াইহাজার গ্রামে পাওনা টাকা চাওয়ার অপরাধে এলাকার মামুনের নেতৃত্বে ১০/১২ সন্ত্রাসী দেশী অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এক হিন্দু বাড়িতে হামলা চালায়। তারা রাখাল বিশ্বাস নামে ইলেকট্রিশিয়ানকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করে ফেলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্র্তি করেছে।