২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএসের কথিত ভিডিও বার্তায় ফের হামলার হুমকি ॥ তোলপাড়

  • সিরিয়ার রাকা থেকে হুমকিদাতা তিন জনের পরিচয় শনাক্ত

এমদাদুল হক তুহিন ॥ কথিত আইএসের প্রকাশিত ভিডিও বার্তায় বাংলাদেশে ফের হামলা চালানোর যে হুমকি দেয়া হয় সেই তিন তরুণের পরিচয় প্রকাশিত হওয়ার পর সমালোচনার ঝড় বইছে সর্বত্র। যে তিন তরুণের পরিচয় প্রকাশিত হয়েছে তাদের মধ্যে যেমন রয়েছে ক্লোজআপ ওয়ান তারকা তেমনি রয়েছে তারকার সাবেক স্বামীও। আবার রয়েছেন সাবেক নির্বাচন কমিশনারের ছেলে। তাদের তিনজনের পরিবারের প্রতি যেমন নিন্দা জানানো হচ্ছে তেমনি অভিভাবকদের আরও সচেতন থাকার আহ্বান জানাচ্ছেন সমাজ সচেতন ব্যক্তিবর্গ। আর আইএসের ভিডিও বার্তা যাতে করে অনলাইনে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকেও দেয়া হয়েছে নির্দেশনা। এসব সাইটে বা ভিডিওতে লাইক, শেয়ার ও কমেন্ট করা থেকেও বিরত থাকতে বলা হয়েছে। অন্যথায় প্রয়োগ হতে পারে আইসিটি আইন।

বুধবার এক ভিডিও বার্তায় বাংলাদেশে ফের হামলা চালানোর হুমকি দেয় সিরিয়ার রাকায় অবস্থানরত তিন তরুণ। সাইট ইনটেলিজেন্স গ্রুপের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়। একই সঙ্গে ভিডিও চিত্রটিও আপলোড করা হয়। পরে ভিডিওতে কথা বলা তিন যুবককে শনাক্ত করে তার বন্ধুবান্ধব, সহকর্মী ও আত্মীয়স্বজন। এর পর থেকেই বইছে সমালোচনার ঝড়।

গুলশানে হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় হামলার প্রেক্ষাপট উল্লেখ করে বিবিসি বাংলার এক সংবাদে বলা হয়েছে, সিরিয়া থেকে এমন একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে কথিত ইসলামিক স্টেট জঙ্গী গোষ্ঠী, যেখানে বক্তারা বাংলায় কথা বলছেন। খবরে বলা হয়, আইএস যোদ্ধারা গুলশানের হামলার প্রশংসা করছেন এবং আরও হামলা চালানোর হুমকি দিচ্ছে। প্রায় ছয় মিনিটের ভিডিওতে ছিল কথিত আইএসের দাবি করা হামলাসমূহের বিবরণ।

দন্ত্য চিকিৎসক তুষার ॥ কথিত আইএসের ভিডিওতে বাংলাদেশে ফের জঙ্গী হামলা চালানোর যে হুমকি দেয়া হয়েছে সেই হুমকিদাতাদের একজন মডেল নায়লা নাঈমের সাবেক স্বামী তুষার। ২০১১ সালে তাদের বিয়ে হয়, পরে অবশ্য ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

পেশায় দন্ত চিকিৎসক তুষার প্রায় দুই বছর ধরে নিখোঁজ। তিনি আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল থেকে এসএসসি এবং রাজউক থেকে এইচএসসি পাস করেন। বারিধারার ডিওএইচএস এলাকায় তুষারের বাসা রয়েছে।

সাবেক স্বামীকে জড়িয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর নৈতিক নয় বলে দাবি মডেল নায়লা নাঈমের। তার ফেসবুকে শেয়ার করা একটি খবরে তিনি দাবি করেন, ‘সে (তুষার) ডেন্টাল কলেজে আমার সহপাঠী থাকার সুবাদে আমার খুব কাছের মানুষ ছিল। কিন্তু তার সঙ্গে আমার অনেক বছর ধরে যোগাযোগ নেই।’

তৌসিফ হোসেন ॥ ডিডিওতে মুখঢাকা অপর যুবকের নাম তৌসিফ হোসেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএর সাবেক ছাত্র। বিবিএ ১৮ ব্যাচে ভর্তি হয়ে লেখাপড়া শেষ না করেই বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়েন তিনি। এমনকি গ্রেফতার হয়েছিলেন জেএমবি সম্পৃক্ততার অভিযোগে। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে অস্ট্রিয়ায় পাঠানো হলেও সেখান থেকে পালিয়ে যান। তার কাছের বন্ধুরা জানিয়েছেন তিনি অস্ট্রিয়ায় নেই।

তাহমিদ রহমান ॥ ভিডিওতে তৃতীয় যে যুবককে দেখা গেছে তিনি সাবেক নির্বাচন কমিশনার সফিউর রহমানের ছেলে তাহমিদ রহমান। তাহমিদ ক্লোজআপ ওয়ান তারকা। তিনি ২০০৭-০৮ সালে ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতায় তালিকার প্রথমদিকে ছিলেন।

জানা গেছে, ২০০২ সালে ঢাকার নটর ডেম কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক মাসের পর ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ এবং আইবিএ থেকে এমবিএ করেন তাহমিদ। এমনকি চাকরি করতেন মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনেও। ২০১১ সালের মাঝামাঝি চাকরি ছাড়েন তিনি

সরকারী একটি সূত্রের দাবি, মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গীগোষ্ঠী আইএসে যোগ দিতে একবার বাবার কাছে অনুমতি চেয়ে ব্যর্থ হন তাহমিদ। পরে স্ত্রীকে নিয়ে সিরিয়ার যুদ্ধ কবলিত এলাকার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমান।

গুলশানে হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গী হামলায় ১৭ বিদেশিসহ অন্তত ২২ জন নিহত হওয়ার চারদিনের মাথায় বুধবার আইএসের নামে নতুন এই ভিডিও অনলাইনে আসে। ওই ভিডিওতে এই তিন যুবককে বাংলায় কথা বলতে শোনা যায়। সাইট ইন্টেলিজেন্সের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যে বলা হচ্ছে, ওই ভিডিওবার্তা সিরিয়ার আইএস কথিত রাজধানী রাকা থেকে এসেছে।