১৫ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে শুরু সিরিজ

  • আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী বছর জুনে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে আয়ারল্যান্ডে একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। সিরিজে বাংলাদেশ, স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডসহ খেলবে নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দল। সিরিজের সূচী ঘোষণা করেছে আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজটি শুরু হবে।

এ সিরিজে কোন ফাইনাল থাকছে না। পয়েন্ট তালিকার ভিত্তিতে যে দল সবার উপরে থাকবে, চ্যাম্পিয়ন ধরা হবে সেই দলকেই। সিরিজে মোট ৬টি ম্যাচ হবে। প্রতিটি দল চারটি করে ম্যাচ খেলবে। প্রতি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে দুটি করে ম্যাচ খেলবে। ডাবল লীগ পদ্ধতিতে হবে সিরিজ। ১২ মে প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড মুখোমুখি হওয়ার পর ১৪ মে নিউজিল্যান্ড ও আয়ারল্যান্ড পরস্পরের বিপক্ষে লড়াই করবে। ১৭ মে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড লড়াই করবে। আবার হবে প্রতিটি দলের দ্বিতীয় লড়াই। ১৯ মে আবার বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড খেলবে। ২১ মে আবার নিউজিল্যান্ড-আয়ারল্যান্ড মুখোমুখি হবে। সিরিজের সর্বশেষ ম্যাচটি হবে ২৪ মে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এরপর পয়েন্ট তালিকায় যে দলটি সবার উপরে অবস্থান করবে, সিরিজে চ্যাম্পিয়ন ধরা হবে তাদেরই।

প্রতিযোগিতামূল ম্যাচে আরও বেশি ক্রিকেট খেলতে আইরিশদের এমন আয়োজন। ক্রিকেটভিত্তিক জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল ইএসপিএনক্রিকইনফো এ তথ্যটি জানায়। আগামী বছর জুনে ইংল্যান্ডের মাটিতে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি অনুষ্ঠিত হবে। আর এক মাস আগে এমন সিরিজ খেলে উপকৃত হতে পারে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের ১১ নম্বরে থাকায় চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে জায়গা হয়নি আয়ারল্যান্ডের। শীর্ষ আট দল এই আসরে অংশ নেবে। এ ব্যাপারে ক্রিকেট আয়ারল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী ওয়ারেন ডেউটরম বলেন, আগে বিশ্ব কাপের চার বছরের মধ্যে আমরা নয় থেকে ১০টি ম্যাচ খেলতাম। এখন প্রতি বছরই ১০টির মতো ম্যাচ খেলার চেষ্টা করব।

আইরিশরা ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের বিপক্ষে সাতটি ম্যাচ খেলেছে। যেখানে পাঁচটিতে জয় তুলে নিয়েছে টাইগাররা। অন্যদিকে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় দুইবার। আর দুইবারই জয় পেয়েছে কিউইরা। ম্যাচ বেশি খেলতে আয়ারল্যান্ডের এ আয়োজন বাংলাদেশের জন্যই উপকার বয়ে আনবে। কারণ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলার আগে প্রস্তুতিমূলক একটি সিরিজ যে খেলা হবে। সঙ্গে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গেও মানিয়ে নেয়া হয়ে যাবে।