১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈদের ছুটিতে রাজধানীতে দুই নারীসহ তিন খুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঈদের চার দিনের ছুটিতে রাজধানীতে দুই নারীসহ তিনজন খুন হয়েছে। দুই মহিলাসহ আত্মহত্যা করেছে পাঁচজন। ট্রেন ও সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছে। এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। এদিকে পুরান ঢাকার চকবাজারে ঈদের রাতে উচ্চ শব্দে গান বাজানোর জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে হাতবোমা বিস্ফোরণে চারজন আহত হয়েছে। ফকিরাপুল এলাকা থেকে চেকপোস্টে তল্লাশির সময় ৩টি বিদেশী রিভলবার ও ৫ রাউন্ড গুলিসহ মোঃ সাইফুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করেছে র‌্যাব। শনিবার সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ঈদের পরদিন শুক্রবার গভীর রাতে পুরান ঢাকার গেণ্ডারিয়া থানার ঢালকানগর এলাকায় সাইদ হোসেন (২৮) নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পাপ্পু নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। সাইদ ওই এলাকার ৬৬/১ নম্বর বাড়িতে থাকতেন। সেখানে তার বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদির দোকান ছিল।

নিহত সাইদের মামাত ভাই মোঃ রাসেল জানান, ঈদের পরদিন শুক্রবার রাত ১টার দিকে ঢালকানগর এলাকার সাইদের বাসার সামনে স্থানীয় ইয়াবা ব্যবসায়ী পাপ্পু, তুষার, রহমান, মালেক, শাকিলসহ আরও কয়েকজন মিলে তার দূর সম্পর্কের ভাগিনা মুরাদকে মারধর করছিল। মুরাদের চিৎকার শুনে সাইদ ও তার আপন ভাগিনা জীবন (২৫) বাসা থেকে বের হয়ে আসে। এ সময় মুরাদকে মারধরের কারণ জানতে চাইলে জীবনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এ সময় সে মাটিতে পড়ে যায়। এরপর পাপ্পু ও তার সহযোগীরা সাইদকে মারধর করে ও টেনেহিঁচড়ে শ্যামপুর ডিআইটি মসজিদের সামনে নিয়ে যায়। এ সময় তারা কুপিয়ে সাইদকে মারাত্মকভাবে আহত করে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত সাইদ ও জীবনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার ভার সোয়া ৪টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাইদের মৃত্যু হয়। আহত জীবনকে ঢামেক হাসপাতালের ১০২ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

শ্যামপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) স্বপন কান্তি দে জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পাপ্পুকে আটক করেছে পুলিশ। তিনি আরও বলেন, পাপ্পু এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। কিছুদিন আগে সে জামিনে বেরিয়ে এসেছে। সাইদের সঙ্গে তাদের বিরোধের কারণ জানার চেষ্টা চলছে। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সাঈদের লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ঈদের পরদিন শুক্রবার রাতে মিরপুরে স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে তাসলিমা (২০) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছে। ঘটনার পর নিহতের স্বামী ইলেক্ট্রিশিয়ান নিয়ামত (৩২) পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ওই রাত সোয়া ৯টার দিকে পুলিশ মিরপুর ১১ নম্বর সেকশনের সি-ব্লকের ১৬ নম্বর রোডের ১৬ নম্বর বাসার নিচে কফিন থেকে তাসলিমার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহতের বাবার নাম উফা মন্না। গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলারহাট থানার কানারহাট শাহুপাড়ায়। মিরপুর থানার এসআই মোঃ শাহআলম জানান, ঈদের আগের দিন রাতে ঈদের কেনাকাটাকে কেন্দ্র করে মিরপুর ১০ নম্বর সেকশনের সি-ব্লকের ১৬ নম্বর রোডের ১৬ নম্বর বাসায় স্বামী নিয়ামত তাসলিমাকে পেটে লাথি ও উপর্যুপরি কিলঘুষিসহ নানাভাবে নির্যাতন চালায়। এতে তাসলিমা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। খবর পেয়ে তার ফুফাত বোন মিলি আক্তার ও আত্মীয়স্বজন তাসলিমাকে স্বামীর বাড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঈদের আগে মঙ্গলবার দুপুরে মতিঝিলের আরামবাগ এলাকায় অজ্ঞাত (৪৫) এক মহিলাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। ওই দিন দুপুর আড়াইটার দিকে পুলিশ আরামবাগ এলাকার ডালাস গলির ৬ নম্বর ভবনের সিঁড়ির করিডর থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। মতিঝিল থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে এখানে ফেলে যেতে পারে। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। নিহতের পরনে মিষ্টি কালারের সেলোয়ার ও কামিজ ছিল।

অস্বাভাবিক মৃত্যু ॥ ঈদের দিন রাজধানীর মোহাম্মদপুরে এক নববধূসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। ওই দিন সকাল পৌনে ৮টার দিকে পুলিশ মোহাম্মদপুর থানাধীন চাঁদ উদ্যান সি-ব্লকের ৪ নম্বর রোডের ২২নং প্লটের ৮নং রুম থেকে মমতাজ (১৮) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। মোহাম্মদপুর থানার এসআই সজীব দে জানান, ৫-৬ মাস আগে মোঃ রুবেল নামে এক যুবকের সঙ্গে মমতাজের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবন নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়াবিবাদ হতো। বুধবার রাতে এ নিয়ে মমতাজকে মারধর করে তার স্বামী রুবেল। পরে ঈদের দিন বৃহস্পতিবার সকালে গিয়ে মমতাজ তার বাবা-মাকে বিষয়টি জানায়। এরপরই পুনরায় স্বামীর বাসায় গিয়ে ঘরের ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে মমতাজ। এদিকে একই দিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পুলিশ ওই থানা এলাকার আলী এ্যান্ড নূর হাউজিংয়ের ৪ নম্বর রোডের ৩ নম্বর ভবনের নিচতলার নিউ ন্যাশন স্কুলের রুমের তালা ভেঙ্গে সোহান হাওলাদার (৪৩) নামে এক দিনমজুরের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহতের বাবার নাম মৃত হজরত হাওলাদার। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার বেতাগী থানা এলাকায়।

অপরদিকে ঈদের পরদিন শুক্রবার রামপুরায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে আক্তার জাহান রুনা (৪০) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। ওই দিন দুপুর আড়াইটার দিকে পুলিশ খিলগাঁও চৌধুরীপাড়া ১৪৮/বি নম্বর ভবনের পাঁচতলার ডি-৪ নম্বর রুম থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠায়। নিহতের স্বামীর নাম মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার গোলাবাড়িতে।

সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত ॥ ঈদের আগে মঙ্গলবার মধ্যরাতে যাত্রাবাড়ী শনিরআখড়া ওভারব্রিজের নিচে সড়কে বাসচাপায় জেসমিন (২০) ও হাসি (৩৫) নামে দুই নারী নিহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে ওভারব্রিজের নিচে রাস্তা পার হচ্ছিলেন ওই দুই নারী। এ সময় পেছন থেকে একটি বাস তাদের ধাক্কা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ তাদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার ভোরে তাদের মৃত্যু হয়।

এদিকে ঈদের পরদিন শুক্রবার রাতে রাজধানীর বনানীতে ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত (৩৫) এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। ওই রাতে বনানী রেলওয়ে স্টেশনে রেললাইন পার হওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

হাজতির মৃত্যু ॥ হানিফ (৫৫) নামে এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

কারারক্ষী হানিফ জানান, শনিবার সকালে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে হঠাৎ হাজতি হানিফ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হয়। সকাল ১০টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংঘর্ষে চারজন আহত ॥ পুরান ঢাকার চকবাজারে ঈদের দিন বৃহস্পতিবার রাতে উচ্চ শব্দে গান বাজানো নিয়ে বিরোধ থেকে দুই পক্ষের সংঘর্ষের মধ্যে হাতবোমা বিস্ফোরণে চারজন আহত হয়েছেন। চকবাজার থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মোঃ হাফিজুর রহমান জানান, আগের দিনের গান বাজনার জের ধরে ঈদের পরদিন শুক্রবার রাতে খাজী দেওয়ান লেইনে এ সংঘর্ষ হয়।

অস্ত্রসহ একজন গ্রেফতার ॥ ঈদের পরদিন শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকা থেকে চেকপোস্টে তল্লাশির সময় ৩টি বিদেশী রিভলবার ও ৫ রাউন্ড গুলিসহ মোঃ সাইফুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করেছে র‌্যাব। র‌্যাব-৩ এর কমান্ডিং অফিসার লে. কর্নেল খন্দকার গোলাম সারোয়ার ঘটনার সত্যতা স্বাীকার করে জানান, ঈদের পরদিন ফকিরাপুল এলাকায় র‌্যাবের চেকপোস্টের কাছ দিয়ে যাওয়ার সময় সাইফুলের গতিবিধি সন্দেহ হয়। পরে তার দেহ তল্লাশি করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে ৩টি বিদেশী রিভলবার ও ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। সাইফুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাচ্ছে।