২০ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ অবশেষে বাংলাদেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ভারতের বিতর্কিত ইসলামী বক্তা জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদে উৎসাহ যোগানোর অভিযোগ ওঠার পর তার পিস টিভির বিষয়ে এমন সিদ্ধান্ত নিলো বাংলাদেশ সরকার। রবিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠক শেষে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে দেশে দুই দফা বড় ধরনের সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে মন্ত্রিসভা কমিটির এই ‘বিশেষ’ বৈঠক হয়, যাতে আমু সভাপতিত্ব করেন।

জাকির নায়েক পরিচালিত মুম্বাইভিত্তিক ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনের একটি প্রতিষ্ঠান হল এই পিস টিভি। এ টিভিতে ধর্ম নিয়ে আলোচনায় ইসলামের যে ব্যাখ্যা তিনি দেন, তা নিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। গত ১ জুলাই গুলশানে বাংলাদেশের ইতিহাসে ভয়াবহতম জঙ্গি হামলায় সঙ্গে জড়িতদের মধ্যে অন্তত দুইজন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে জাকির নায়েকের মত ইসলামী বক্তাদের নিয়মিত অনুসরণ করতেন। তার কথায় প্ররোচিত হয়ে ভারতের কয়েকজন তরুণ আইএসে যোগ দিতে সিরিয়ায় পাড়ি জমিয়েছে বলেও খবর এসেছে। এ বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর জাকির নায়েকের বিষয়ে উদ্যোগী হয়েছে ভারত সরকার। জঙ্গিবাদে উৎসাহ জোগানের অভিযোগ নিয়ে এরইমধ্যে তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে মহারাষ্ট্র সরকার।

এদিকে, বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ করতে শুরু করেছে ভারত। শনিবার রাত থেকেই এই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। কলকাতার কয়েকটি এলাকায় শনিবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে নয়টা পর্যন্তও পিস টিভি দেখা যাচ্ছিল, তবে তারপরেই হঠাৎ সেটি বন্ধ হয়ে যায় বলে বিবিসিকে জানিয়েছেন মুসলমান প্রধান ট্যাংরা অঞলের এক বাসিন্দা।

পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু দপ্তরের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বিবিসিকে বলেছেন, “জাকির নাইক এমন কিছু বলে থাকেন, যা ইসলামী শাস্ত্রমতে ঠিক নয়। এর ফলে যুব সমাজ উত্যক্ত হচ্ছে আর আইন-শৃঙ্খলা, সংবিধানকে ডিঙিয়ে কিছু করার কথা ভাবছে, তাদের মগজ গরম হয়ে যাচ্ছে"।

কলকাতার স্থানীয় কেবল টিভি অপারেটররা বলছেন শনিবারই থানা থেকে তাদের বলা হয়েছে ওই চ্যানেলের বেআইনি সম্প্রচার বন্ধ করে দিতে। ভারতের অন্যান্য রাজ্যের পুলিশও একই নির্দেশ দিচ্ছে স্থানীয় কেবল টিভি অপারেটরদের। বিবিসির ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাঁরা এটাও জানিয়েছেন যে, পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশ আসার পরেই পীস টিভি-র সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছেন তাঁরা। বিশ্বের অন্যান্য কয়েকটি দেশেও জাকির নাইকের ‘পিস টিভি’ সম্প্রচার নিষিদ্ধ।