১৮ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মঞ্চ আমার বেশি আপন ॥ শামছি আরা সায়েকা

মঞ্চ আমার বেশি আপন ॥ শামছি আরা সায়েকা

অভিনেত্রী শামছি আরা সায়েকা। নৃত্য দিয়ে শিল্পাঙ্গনে প্রবেশ করে আপন মহিমায় মঞ্চকে আলোকিত করে চলেছেন দীর্ঘদিন। স্কুলজীবন থেকে পদাতিক নাট্য সংসদের (টিএসসি) সঙ্গে থেকে সফলতার সঙ্গে নাটকের মঞ্চায়নও করেছেন একাধিক। সংগঠনটির নতুন প্রযোজনা ‘গহনযাত্রা’ নাটকে একক অভিনয় করছেন তিনি। নাটকটি রচনা করেছেন রুবাইয়াৎ আহমেদ এবং নির্দেশনা দিয়েছেন সুদীপ চক্রবর্তী। অতিথি ও সংবাদকর্মীদের জন্য নাটকটির বিশেষ প্রদর্শনী শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে আজ সোমবার সন্ধ্যা ৭টায়। এ সম্পর্কে কথা হয় তার সঙ্গে।

নাটকটি কিসের ইঙ্গিত করে?

শামছি আরা সায়েকা ॥ পৃথিবীব্যাপী অস্থিরতাকে ইঙ্গিত করা হয়েছে নাটকে। কেন এ সহিংসতা? ধীরে ধীরে কোথায় চলেছে আমাদের সমাজ, পারিপার্শিকতা? এমন অসংখ্য প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা রয়েছে এতে। আদৌ বন্ধ হবে কি এসব, কিভাবে এর থেকে পরিত্রাণ পাবে সবাই- ইত্যাদি বিষয় উঠে এসেছে এ নাটকে।

নাটকটিতে অভিনয় করতে গিয়ে আপনার নতুন অভিজ্ঞতার কথা বলুন।

শামছি আরা সায়েকা ॥ আমি যতগুলো নাটকে অভিনয় করেছি, এটি ছাড়া সবগুলো নাটকের নাট্যকার অনুপস্থিত ছিল। কারণ তারা প্রত্যেকেই প্রয়াত। এ নাটকের লেখক রুবাইয়াৎ আহমেদ আমাদের খুব কাছের মানুষ। রিহার্সালের সময় নিজে বসে থেকে বলছেন কোন সেন্স থেকে তিনি কী লিখেছেন। মূল কথা হচ্ছে- নাট্যকারের সঙ্গে আমার সরাসরি যোগাযোগ ঘটেছে এ নাটকে। এটা আমার একটা নতুন অভিজ্ঞতা।

নাটকটিতে আপনার চরিত্রটা কেমন?

শামছি আরা সায়েকা ॥ নাটকটিতে পাঁচটি চরিত্রকে রূপদান করা হয়েছে। তিনটি কস্টিউমে দেখা যাবে আমাকে। আমার চরিত্রটির নাম সালমা। গণহত্যা থেকে বেঁচে যাওয়া এক নারী সে। উগ্রপন্থীদের হাতে ধরা পড়ে তাকেও প্রাণ হারাতে হয়।

এর আগে কোন্ কোন্ নাটকে অভিনয় করেছেন?

শামছি আরা সায়েকা ॥ আমার অভিনীত প্রথম নাটক ‘চন্দ্রাবতী’। নয়নচাঁদ ঘোষ নির্দেশিত এ লোককথার নাট্যরূপ দিয়েছেন আসিফ মুনীর ও মোনজাত উদ্দিন। এছাড়াও অভিনয় করেছি- ‘সোজন বাদিয়ার ঘাট’, ‘খেতমজুর খইমুদ্দিন’, ‘মাউস্ট্রাপ’, ‘বেদের মেয়ে’ ও ‘ম্যাকবেথ’ নাটকে।

অভিনয় নিয়ে আগামীর স্বপ্ন কী?

শামছি আরা সায়েকা ॥ মঞ্চ আমার বেশি আপন। মঞ্চকে ঘিরেই আমার স্বপ্ন। ক্রিয়েটিভ এবং মেসেজবহুল নাটকে অভিনয় করতে চাই। -গৌতম পাণ্ডে