২১ নভেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তিন বছর পর মায়ের কোলে ফিরে এলো সজীব

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ১০ জুলাই ॥ তিন বছর নিখোঁজ থাকার পর মায়ের কোলে ফিরে এসেছে সজীব মিয়া। মঙ্গলবার সন্ধায় সজীব মায়ের কাছে ফিরে আসে। সজীবের বাড়ি সদর উপজেলার আলীয়াবাদ ইউনিয়নের ভাজনডাঙ্গা গ্রামে।

জানা যায়, ৩ বছর আগে ১৩ বছরের কিশোর সজীব মায়ের সাথে রাগ করে কাউকে কিছু না বলেই বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর তার পরিবার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও সজীবের সন্ধান পায়নি। দেড় বছর আগে ভারতের নিরাপদ হেফাজত থেকে ফোনে সজীবের মাকে জানানো হয় তার ছেলে ভারতে রয়েছে। এ খবর জানার পর থেকে সজীবের মা ইতি বেগম ছেলেকে পেতে মরিয়া হয়ে ওঠে। অভাবের সংসারে ছেলেকে ফিরে পেতে তিনি বিভিন্ন জায়গায় ছোটাছুটি করেও ভারতের জেল থেকে ছেলেকে দেশে আনতে পারেননি। অবশেষে সজীবের মা ইতি বেগম বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (বাস্ট) ফরিদপুর ইউনিটের শরণাপন্ন হন। ব্লাস্ট ফরিদপুর ইউনিটের সমন্বয়কারী এ্যাডভোকেট শিপ্রা গোস্বামী জানান, বাস্ট যশোরের রাইটস এনজিও’র মাধ্যমে ভারতে যোগাযোগ করে। দীর্ঘ দেড় বছর ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ করার পর ফরিদপুর বাস্ট ও যশোরের রাইটস এনজিও’র মাধ্যমে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সজীবকে তার মায়ের কাছে ফেরত দেয়া হয়।

বোয়ালমারীতে বিএনপির হামলায় আওয়ামী লীগকর্মী নিহত

সংবাদদাতা, বোয়ালমারী, ফরিদপুর, ১০ জুলাই ॥ বোয়ালমারী উপজেলার ময়না ইউনিয়নের চরমোরাইল গ্রামে রবিবার সকালে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলা বিএনপির সদস্য আলিম বিশ্বাসের গ্রুপের হামলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক জাফর বিশ্বাসের সমর্থক আওয়ামী লীগকর্মী আঃ সালাম সিকদার (৪০) সড়কি বিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এ ঘটনায় আরও ১৫ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থক জাহাঙ্গীর সিকদার, রবিউল ইসলাম, রমজান সিকদার ও বিএনপি সমর্থক এনায়েত মোল্যাকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এদের মধ্যে জাহাঙ্গীরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। জানা যায়, আওয়ামী লীগ নেতা জাফর বিশ্বাস এবং বিএনপি নেতা আলিম বিশ্বাসের গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। শনিবার জাফর সমর্থক জাহাঙ্গীর গ্রামের মসজিদ থেকে এশার নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে আলিম বিশ্বাসের লোকজন জাহাঙ্গীরকে হাতুড়ি দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে। এর জের ধরে রবিবার সকালে ঢাল-সড়কি ও দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত জাফর বিশ্বাস ও আলিম বিশ্বাসের সমর্থকরা ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

একপর্যায়ে মোরাইল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে জাফর বিশ্বাসের পক্ষের সালাম সিকদারকে প্রতিপক্ষরা একা পেয়ে মাটিতে ফেলে সড়কি বিদ্ধ করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।