১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মানিকগঞ্জে পিতাকে পিটিয়ে হত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা, মানিকগঞ্জ, ১০ জুলাই ॥ জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বৃদ্ধ পিতা আফাজ উদ্দিনকে (৭০) পিটিয়ে হত্যা করেছে দুই ছেলে। এ ঘটনায় ছেলে আওলাদ হোসেন, খোরশেদ আলম ও আওলাদ হোসেনের স্ত্রী মর্জিনা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার রাত ৮টার দিকে সাটুরিয়া উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, আফাজ উদ্দিন তার জমি ছেলেদের নামে লিখে না দেয়ার কারণে শনিবার রাত ৮টার দিকে ঝগড়ার সূচনা হয়। একপর্যায়ে দুই ছেলে বাবাকে লাঠি দিয়ে মারপিট করে। গুরুতর আহত আফাজ উদ্দিনকে এলাকাবাসী হাসপাতালে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর খবর পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে গ্রামবাসী দুই ছেলেকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পরে পুলিশ এসে দুই ছেলে এবং আওলাদের স্ত্রী মর্জিনাকে গ্রেফতার করে।

নড়াইলে নিহত এক

নিজস্ব সংবাদদাতা নড়াইল থেকে জানান, নড়াইলের লোহাগড়ার চরআড়িয়ারা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নূর ইসলাম (৩৫) নামে একজন নিহত হয়েছেন। রবিবার দুপুরে তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। নিহত নূর ইসলাম চরআড়িয়ারা গ্রামের মোকলেছ শেখের ছেলে।

এ ঘটনায় ৫ জন আহত হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তীতে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রবিবার দুপুরে বিজয়ী চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন এবং পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী শরিফুল ইসলামের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় চেয়ারম্যান আক্তার পক্ষের সমর্থক নূর ইসলামকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। আহতদের লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন জানান, নির্বাচনে তার পক্ষে কাজ করায় পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন নূর ইসলামকে হত্যা করেছে।

বাগেরহাটে অস্ত্রের কোপে যুবক নিহত

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট থেকে জানান, বাগেরহাটের সীমান্ত সংলগ্ন নাজিরপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চাচাত ভাইয়ের ধারালো অস্ত্রের কোপে সুরুজ শেখ (২৬) নামে এক যুবক নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। নিহতের ভাই বাদল শেখকে (২২) গুরুতর আহত অবস্থায় বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রবিবার সকালে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার রঘুনাথপুর খেজুরতলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ এই ঘটনায় মেরী খাতুন (৪৫) নামে এক মহিলাকে আটক করেছে। নিহত সুরুজ শেখ ওই গ্রামের সরোয়ার শেখের ছেলে। নিহতের চাচাত ভাই আলমগীর শেখ বলেন, পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার সরোয়ার শেখের সঙ্গে তার বড় ভাই মোশারেফ শেখের বসতবাড়ির জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। সেই জমির বিরোধ মেটাতে রবিবার সকালে আমিন এনে মাপ শুরু করলে মোশারেফ শেখের ছেলে মেহেদী শেখ ধারালো অস্ত্র নিয়ে সরোয়ার শেখের দুই ছেলে সুরুজ ও বাদলকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। তাদের উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে সুরুজের মৃত্যু হয়।