২১ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গী প্রতিরোধে বিশেষজ্ঞ সহায়তার প্রস্তাব মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের

  • পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে নিশা দেশাইয়ের বৈঠক

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে সক্ষমতা তৈরিতে বাংলাদেশকে বিশেষজ্ঞ সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশে সাম্প্রতিক জঙ্গী হামলার প্রেক্ষিতে পরিস্থিতির উত্তরণ ঘটাতেও সহায়তা দেবে দেশটি। এছাড়া বাংলাদেশের প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সকল অঙ্গীকারও অটুট থাকবে।

রবিবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে পৃথক বৈঠকে এসব জানিয়েছেন ঢাকায় সফররত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল। বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

পররাষ্ট্র সচিব সাংবাদিকদের জানান, নিশা দেশাই দু’দিনের সফরে বাংলাদেশে এসেছেন। আজ (রবিবার) আমাদের সঙ্গে ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। এ ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহমর্মিতা প্রকাশ করেছে। তারা বাংলাদেশের সঙ্গে থাকার, বাংলাদেশের জনগণের সঙ্গে থাকার অঙ্গীকার করেছে।

বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সন্ত্রাসের বিষয়ে এম শহীদুল হক জানান, কিভাবে এ সমস্যার সমাধান করা যায়, কিভাবে এখান থেকে উত্তরণ ঘটানো যায় তা নিয়ে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। আমরা প্রাথমিকভাবে বেশকিছু বিষয়ে আলোচনা করেছি। তবে তিনি (নিশা দেশাই) আজ ও আগামীকাল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীদের সঙ্গেও আলোচনা করবেন। আমরা আশা করছি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও তার বৈঠক হবে। তখন এসব বিষয়ে আরও বিস্তারিত আলোচনা হবে বলেও তিনি জানান।

বৈঠকে সন্ত্রাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ অভিযান পরিচালনার জন্য দেশটি কোন প্রস্তাব দিয়েছে কিনাÑ জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, বৈঠকে এ ধরনের বিষয়ে কোন আলোচনা হয়নি।

এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, সন্ত্রাস প্রতিরোধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেকনিক্যাল সাপোর্টের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। অবশ্য এটা নিয়ে আগেও তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। উনাদের বিশেষজ্ঞ টিম সহায়তা করেও চলেছে। এ বিষয়ে আরও গভীরভাবে আলোচনা হয়েছে বলে তিনি জানান।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে সচিব বলেন, সন্ত্রাস প্রতিরোধে তারা (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র) বিভিন্ন পর্যায়ে সহায়তা করার প্রস্তাব করেছে, সেটা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। টেকনিক্যাল সহায়তার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। যে কোন দেশ সহায়তা করতে চাইলে আমাদের সম্মতি রয়েছে বলেও জানান সচিব।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে রবিবার ঢাকার মার্কিন দূতাবাস থেকে দেয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়ালের সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী মানপ্রিত আনন্দও উপস্থিত ছিলেন। তারা বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ও নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন।

বৈঠকে সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল বাংলাদেশের সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে সক্ষমতা তৈরিতে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞ সহায়তারও প্রস্তাব দেন। বৈঠকে তিনি বলেন, আমাদের এ দুটি দেশকেই সন্ত্রাসবাদের যে বৈশ্বিক হুমকি মোকাবেলা করতে হচ্ছে, তার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখব।

বৈঠকে সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী হামলায় ভুক্তভোগীদের জন্য তার সমবেদনা জানান। নিশা দেশাই বলেন, আমাদের বাংলাদেশী অংশীদারদের সঙ্গে আমরা শোক ভাগ করে নিয়েছি। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের প্রতি আমাদের অঙ্গীকার সব সময়ের মতোই অটুট থাকবে।

এদিকে রবিবার ওয়াশিংটন ডিসি থেকে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল ও উপ-সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী মানপ্রিত আনন্দ বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা সফর করবেন। ঢাকা সফরকালে তারা সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে বৈঠক করবেন। সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ ও সহায়তার ক্ষেত্র নিয়ে তারা আলোচনা করবেন। সফরকালে সরকারের পাশাপাশি দূতাবাসের কর্মকর্তা, স্থানীয় ব্যবসায়ী ও অন্য কূটনীতিকদের সঙ্গেও আলোচনা করবেন তারা।

চলতি মাসের শেষে ঢাকা সফরের কথা ছিল নিশা দেশাইয়ের। তবে রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় জঙ্গী হামলায় দেশী-বিদেশী নাগরিক হত্যা ও কিশোরগঞ্জে হামলার প্রেক্ষাপটে তার সফর এগিয়ে আনা হয়েছে। সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে ঢাকা-ওয়াশিংটনের পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনাই তার এ সফরের মুখ্য উদ্দেশ্য।

গত পহেলা জুলাই রাতে রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁয় সন্ত্রাসী হামলায় ১৭ বিদেশীসহ মোট ২৮ জন নিহত হন। এর মধ্যে ছয় জঙ্গীও রয়েছে। নিহত বিদেশীদের মধ্যে সাতজন জাপান, নয়জন ইতালি ও একজন ভারতের নাগরিক। এছাড়া তিনজন বাংলাদেশী নাগরিক ও দু’জন পুলিশও রয়েছেন। এছাড়া কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ার ঈদের জামাতে হামলায় আরও চারজন নিহত হয়েছেন। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া এসব জঙ্গী হামলা নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ বেড়েছে। জঙ্গী ও সন্ত্রাস প্রতিরোধে মার্কিন সহায়তা দেয়ার বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার জন্য নিশা দেশাই ঢাকায় এসেছেন।

২০১৩ সালের শেষের দিকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক অরাজকতার সময় প্রথমবারের মতো ঢাকা সফরে আসেন মার্কিন পররাষ্ট্রবিষয়ক সহকারী মন্ত্রী নিশা দেশাই। তিন দিনের ওই সফরে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ বিভিন্ন পেশার নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। সবার কাছ থেকে তখনকার পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চান। রাজনৈতিক সঙ্কট নিয়ে বিশেষ কিছু বলেননি তিনি। তবে তার এ সফরকে ঘিরে তখন চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছিল। এর পর তিনি ২০১৪ ও ২০১৫ সালে আরও দু’বার ঢাকায় এসেছেন। এর আগে সর্বশেষ গত ৪ মে তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসেন নিশা দেশাই। এবার পঞ্চম দফায় তিনি ঢাকায় এসেছেন। আজ সোমবার তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে। সোমবারই তিনি ঢাকা থেকে কলোম্বোর উদ্দেশে রওনা দেবেন।