১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানদের জঙ্গী সম্পৃক্ততা হতাশাজনক ॥ তোফায়েল

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ উচ্চবিত্ত পরিবারের ছেলেদের জঙ্গী সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততার যেসব প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে তা হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, পরিবারগুলোকে অবশ্যই তাদের সন্তানদের দিকে নজর দিতে হবে। সন্তানরা কোথায় যায়, কি করে, কার সঙ্গে মিশে সেই খবর রাখার দায়িত্ব পরিবারের।

রবিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে নিজ দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রতি দেশে একাধিক জঙ্গী হামলার ঘটনায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, গত শনিবার তুরস্ক থেকে এক জঙ্গীকে দেশে ফেরত আনা হয়েছে। সে দেশের একজন বিশিষ্ট শিল্পপতির মেয়ের ছেলে। ওই যুবক প্রথমে পড়ালেখার জন্য মালয়েশিয়ায় যায়। সেখান থেকে অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ার পরে তুরস্ক হয়ে সিরিয়ায় জঙ্গীদের কাছে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল তার। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা বিষয়টি তুরস্ক সরকারকে জানায়। ইস্তানবুলে কামাল আতাতুর্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তুরস্ক কর্তৃপক্ষ ওই জঙ্গীকে আটক করে বাংলাদেশ দূতাবাসকে জানায়। পরে দূতাবাসের মাধ্যমে তাকে দেশে ফেরত আনা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

তিনি আরও বলেন, দেশে আসার পরে ওই জঙ্গী তরুণ তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যেতে অস্বীকার করে। সে বলে, ‘আল্লাহ ছাড়া আমার কেউ নাই, এরা আমার কেউ না।’ তবে ওই জঙ্গীর পরিচয় জানাননি বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এ ধরনের পরিবারের ছেলেদের জঙ্গী সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ততার যে প্রমাণ পাচ্ছি তা সত্যি হতাশা ও দুঃখজনক। তিনি বলেন, জঙ্গী হামলার এসব ঘটনায় সাময়িক অসুবিধা তৈরি হলেও দীর্ঘমেয়াদে বাংলাদেশের বিনিয়োগ ও রফতানিতে কোন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে না। জঙ্গীবাদ শুধু বাংলাদেশের নয়, এটা আন্তর্জাতিক সমস্যা। জঙ্গী নির্মূলে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে। যারা এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। দেশের প্রচলিত আইনের আওতায় এনে তাদের শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে, রাজধানীর গুলশান এবং কিশোরগঞ্জে জঙ্গী হামলার পরে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দেয়া বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয় বলেও মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এসব ঘটনায় দেশি-বিদেশী চক্র জড়িত। তারা বিদেশীদের টার্গেট কিলিং শুরু করেছে।