১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘মেসি ছাড়া ফুটবল অচল’

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সময়টা মোটেও সুখকর যাচ্ছে না লিওনেল মেসির। অভিমানে জাতীয় দল থেকে অবসরই নিয়ে নিয়েছেন বার্সিলোনার আর্জেন্টাইন তারকা। এরপরও মেসির ক্লাব সতীর্থ ও ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক নেইমার বলেছেন, মেসিকে ছাড়া ফুটবল অচল। রবিবার তিনি এ মন্তব্য করেন।

সাক্ষাতকারে নেইমার বলেন, আমি তার (মেসি) সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা জানাই। কিন্তু মেসিকে ছাড়া ফুটবল ফুটবলই নয়। তাকে ছাড়া এটা কল্পনা করা কঠিন। তিনি আরও বলেন, আপনি যদি ফুটবল ভালবাসেন, তাহলে মেসিকে আর আর্জেন্টিনা ও বার্সিলোনার হয়ে তিনি যা অর্জন করেছেন তার প্রশংসা না করা ছাড়া উপায় নেই।

দুঃসময়ে মেসির পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে নেইমার বলেন, মেসি আমার বন্ধুই শুধু নন, তিনি আমার আদর্শও। আমি সব সময়ই তার পাশে থাকব। তিনি কিসের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন তা আমি কল্পনা করতে পারি। সম্প্রতি বার্সিলোনার সঙ্গে পাঁচ বছরের জন্য নতুন চুক্তি করেছেন নেইমার। এ প্রসঙ্গে তার ভাষ্য, আমি খুব খুশি। এটা সত্যি যে অনেক প্রস্তাব ছিল। কিন্তু সব সময়ই এখানে থাকার ইচ্ছা ছিল আমার।

সিএবি’র বস থাকছেন সৌরভই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিকেট এ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের (সিএবি) পরবর্তী সভাপতি হিসেবে সৌরভ গাঙ্গুলী নিজের পদ ধরে রাখতে যাচ্ছেন বলে অনেকটা নিশ্চিত তথ্য পাওয়া গেছে। ৩১ জুলাই সিএবির ৮৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতির নাম চূড়ান্ত হবে। এখনও সৌরভের শক্ত কোন প্রতিদ্বন্দ্বীর দেখা মেলেনি। সিএবিতে কিছু নতুন মুখ দেখা গেলেও সরকার সমর্থিত তৃণমূল কংগ্রেসের পুরো সমর্থনই সৌরভ ও তার পরিষদের পক্ষে। সে কারণেই ভারতের অন্যতম সফল এই অধিনায়কের বিপক্ষে কোন প্রার্থী আদৌ প্রার্থিতা ঘোষণা করবে কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। এদিকে বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক পদে অভিষেক ডালমিয়ার বিপক্ষেও কঠিন কোন চ্যালেঞ্জের সম্ভাবনা খুবই কম। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সরাসরি মনোনয়নে সিএবিতে এসেছিলেন অভিষেক। সিএবির একজন মুখপাত্র বলেছেন, নমিনেশন পেপার জমা দেয়ার শেষ তারিখ ২৩ জুলাই। এই মুহূর্তে তাই নির্দিষ্ট করে কিছুই বলা যাচ্ছে না। তার মতে অভিষেকের বিপক্ষে যদি কেউ প্রার্থিতা ঘোষণাও করে তবে সরকার সমর্থিত পার্টি সেটা মোটেও ভাল চোখে দেখবে না। সৌরভের অধীনে সিএবি টি২০ বিশ্বকাপে ভারত ‘বনাম’ পাকিস্তান ও ফাইনাল ম্যাচটি আয়োজনের কৃতিত্ব দেখায়। এর ফলে এ্যাসোসিয়েশন বিশাল অঙ্কের লাভের মুখ দেখে। এছাড়া প্রথমবারের মতো গোলাপি বলে ম্যাচ আয়োজনেও সৌরভের নেতৃত্বাধীন পুরো সিএবির দারুণ প্রশংসা কুড়িয়েছে।

পাঁচ বছর পর লঙ্কা সফরে অসিরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দীর্ঘ প্রায় পাঁচ বছর পর শ্রীলঙ্কা সফর করছে কুলীন অসিরা। স্টিভেন স্মিথের নেতৃত্বে পূর্ণাঙ্গ সফরে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল ৩ টেস্ট, ৫ ওয়ানডে ও ২ ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলবে। ২৬ জুলাই পাল্লেকেলে প্রথম টেস্ট দিয়ে শুরু ময়দানী লড়াই। ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে সর্বশেষ লঙ্কা সফর করেছিল মাইকেল ক্লার্কের অস্ট্রেলিয়া। এ সময়ে অনেক বদল হয়েছে। অবসর নিয়েছেন ক্লার্ক, মাইক হাসি, মিচেল জনসন, শেন ওয়াটসনের মতো তারকা। সেবার শ্রীলঙ্কায় গিয়ে খেলেছেন বর্তমান দলে এমন মাত্র তিন ক্রিকেটার রয়েছেন- স্পিনার নাথান লেয়ন, পেসার পিটার সিডল ও ব্যাটসম্যান উসমান খাজা।

স্মিথের অধীনে এ নতুন এক অস্ট্রেলিয়া। তবে লঙ্কায় অসিদের অতীত ইতিহাস খুবই সমৃদ্ধ, এখানে ১৩ টেস্টের একটিতেই মাত্র হেরেছে তারা। জয় ও ড্র সমান ৬টি করে ম্যাচে। কেবল তাই নয়, সেই ১৯৮২ থেকে ‘হোম এন্ড এ্যাওয়ে’ মিলিয়ে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১১ সিরিজের ১০টিতেই জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। গত বছর এ্যাশেজ ভরাডুবি দায় মাথায় নিয়ে অবসরে যান ক্লার্ক। এরপর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটিসহ মোট তিন সিরিজেই জিতেছে র‌্যাঙ্কিংয়ের ‘এক নম্বর’ থাকা স্মিথের অস্ট্রেলিয়া। বিপরীতে ক’দিন আগেই ইংল্যান্ডে নাস্তানাবুদ (২-০তে হার) এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের শ্রীলঙ্কার অবস্থান সপ্তম স্থানে। গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনে ও কুমার সাঙ্গাকারার অভাব তারা এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি।