২১ জুলাই ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাসায়নিক হামলার কারণেই সিরিয়ায় হামলা ॥ থেরেসা মে

রাসায়নিক হামলার কারণেই সিরিয়ায় হামলা ॥ থেরেসা মে

অনলাইন ডেস্ক ॥ সিরিয়ায় মার্কিন মিত্রদের বিমান হামলার পেছনের কারণ ব্যাখ্যা করেছে গুরুত্বপূর্ণ অংশিদার যুক্তরাজ্য। গৃহযুদ্ধে হস্তক্ষেপ নয় বরং রাসায়নিক হামলা বন্ধে সিরিয়া সরকারকে বাধ্য করতে দেশটির বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

আজ শনিবার প্রথম প্রহরে সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে দেশটির সরকার নিয়ন্ত্রিত বিভিন্ন স্থাপনায় একযোগে আক্রমণ করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স। যুক্তরাজ্যের চারটি আরএএফ টর্নেডো জঙ্গিবিমান এ হামলায় অংশ নিয়েছে বলে জানায় বিবিসি।

গত সপ্তাহে সিরিয়ার পূর্ব গৌতায় বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত সর্বশেষ শহর দৌমায় রাসায়নিক হামলায় প্রায় ৭০ জন নিহত এবং পাঁচশতাধিক মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়ে, যাদের মধ্যে নারী ও শিশুরাও রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলো সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাহিনী ও তাদের মিত্র রাশিয়াকে এ হামলার জন্য দায়ী করে।

যদিও সিরিয়া এবং রাশিয়া বরাবরই এ দায় অস্বীকার করেছে।

‘সিরিয়া সরকারকে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার থেকে বিরত রাখতে শক্তি প্রয়োগ করা ছাড়া আর কোনো উপায় ছিল না’ বলে মনে করেন মে।

সিরিয়ায় হামলার পর এক বিবৃতিতে মে বলেন, ‘সিরিয়া সরকার তাদের অনমনীয় আচরণ প্রদর্শণ করেছে’। বিষয় যখন রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারে পর্যায়ে এসে দাঁড়ায় তখন সেটাকে অবশ্যই থামাতে হবে।

মে বলেন, আমরা সম্ভাব্য সবরকম কূটনৈতিক উপায়ে চেষ্টা করেছি। আমাদের এই অভিযান দেশটির গৃহযুদ্ধে হস্তক্ষেপ নয় বা সেখানকার সরকার পরিবর্তনের জন্যও নয়।

এই মাত্রা পাওয়া