২০ জুলাই ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রাইম ব্যাংকের তারল্য সংকট নেই

প্রাইম ব্যাংকের তারল্য সংকট নেই

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ব্যাংকিং খাতে কোন তারল্য সংকট নেই বরং তারল্যর অসামঞ্জস্যতা আছে। এই অসামঞ্জস্য দুর করা গেলে ব্যাংকিং খাতে তারল্য সংকট থাকবে না। সোমবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে প্রাইম ব্যাংকের ২৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ‘মিট দ্যা প্রেস’ অনুষ্ঠানে প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও রাহেল আহমেদ এসব কথা বলেন। এসময় ব্যাংকটির অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিবুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান চৌধুরী, মো. গোলাম রব্বানী, মো. তৌহিদুল আলম খান ও সৈয়দ ফরিদুল ইসলামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

রাহেল আহমেদ বলেন, প্রাইম ব্যাংকে কোন তারল্য সংকট নেই। আমরা এখনো অনেক নতুন গ্রাহককেও বড় অংকের টাকা ঋণ দিচ্ছি। বাস্তবতা থাকলে কোন গ্রাহককে একশ থেকে দেড়শ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হচ্ছে। গত তিন মাসে অনেক ব্যাংকে তারল্য নিয়ে সমস্যা সৃষ্টি হলেও প্রাইম ব্যাংকে কোন সংকট হয়নি।

এক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সিআরআর কমানোর ফলে ব্যাংকিং খাতে ইতিবাচক প্রভাব পড়ছে কিনা তা বুঝতে কিছুটা সময় লাগবে। সিআরআর কমানোর সাথে সাথে রাতারাতি পরিবর্তন আসবে এটা আশা করা ঠিক না।

তবে, আমরা মনে করি যেভাবে ব্যাংকিং খাত নিয়ে কাজ করা হচ্ছে এভাবে চললে আগামী ৬ থেকে ৮ মাসের মধ্যে ব্যাংকিং খাতের পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হবে। প্রাইম ব্যাংকের এমডি বলেন, ব্যাংকিং খাত বিপর্যযের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে এটা আমরা মনে করি না। বাংলাদেশের অর্থনীতি একটা বিবর্তনের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। ব্যাংকিং খাতও দেশের অর্থনীতির সাথে সাথে এগিয়ে যাচ্ছে।

তবে ব্যাংকিং খাত কিছু চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে। এই খাতে কিছুটা চড়াই উৎড়াই সব সময় ছিল, আছে এবং থাকবে। শুধু বাংলাদেশে নয় পৃথিবীর সব জায়গায় এটা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, প্রাইম ব্যাংকের ঋণ আমানতের অনুপাত (এডিআর) কখনো ৮৩ দশমিক ৫ শতাংশের বেশি ছিল না, এখনো নেই। প্রাইম ব্যাংক কখনো আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে দুই অংঙ্কের ঘরে যায়নি। আমাদের গড় আমানত সংগ্রহের ক্ষেত্রে সুদের হার ৮ শতাংশের কম।