১৮ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেলানিয়া ট্রাম্পের কিডনির টিউমার অপসারণ

মেলানিয়া ট্রাম্পের কিডনির টিউমার অপসারণ

অনলাইন ডেস্ক ॥ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের কিডনি থেকে একটি টিউমার অপসারণ করা হয়েছে।

সোমবারের ওই অস্ত্রোপচারের পর থেকে তিনি ওয়াশিংটন ডিসির নিকটবর্তী ওয়াল্টার রিড মেডিক্যাল সেন্টারে আছেন এবং চলতি সপ্তাহের বাকি দিনগুলো সেখানেই থাকবেন বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফাস্ট লেডির দপ্তর, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

এক বিবৃতিতে মুখপাত্র স্টেফানি গ্রিশাম জানিয়েছেন, কিডনির চিকিৎসার জন্য ৪৮ বছর বয়সী মিসেস ট্রাম্পকে এম্বোলাইজেশন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে।

‘প্রক্রিয়াটি সফল হয়েছে। কোনো জটিলতা দেখা দেয়নি। সর্বক্ষেত্রে শিশুদের জন্য কাজ করতে পুরোপুরি সুস্থ্য হয়ে ওঠার অপেক্ষায় আছেন ফাস্ট লেডি,’ বিবৃতিতে বলেছেন গ্রিশাম।

অস্ত্রোপচার শেষে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

পরে নিজের মেরিন ওয়ান হেলিকপ্টারে করে ওয়াল্টার রিড হাসপাতালে গিয়ে স্ত্রীকে দেখে আসেন ট্রাম্প।

‘আমাদের মহান ফাস্ট লেডি, মেলানিয়াকে দেখতে ওয়াল্টার রিড মেডিক্যাল সেন্টারে যাচ্ছি। সফল প্রক্রিয়া, সে ভাল আছে। সব শুভাকাঙ্ক্ষীকে ধন্যবাদ!’ এক টুইটে বলেছেন ট্রাম্প।

শরীরের অল্প একটু কেঁটে অস্ত্রোপচার করাই এম্বোলাইজেশন প্রক্রিয়া, যা প্রায়ই কোনো টিউমারে অথবা শরীরের একটা অস্বাভাবিক টিস্যুর অংশে রক্ত সরবরাহ বন্ধ করতে ব্যবহার করা হয়।

মেডস্টার জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ইউরোলজিস্ট ড. কিথ কওয়ালচেক জানিয়েছেন, প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে মনে হয়েছে অ্যাঞ্জিওমাইওলাইফোমা নামে পরিচিত টিমারের চিকিৎসা নিয়েছেন মেলানিয়া ট্রাম্প।

‘এটি কিডনির ক্যান্সার নয় এমন টিউমারগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সাধারণ। এটি একটি টিউমার, যার অর্থ এটি বৃদ্ধি পায়। তবে এটি শরীরের অন্যান্য অংশে ছড়িয়ে পড়ার কোনো আশঙ্কা নেই। একবার চিকিৎসা করলেই এটি ভালো হয়ে যায়,’ বলেছেন তিনি।

কওয়ালচেক জানান, ৪৫ বছর বা তার বেশি বয়সী নারীদের ক্ষেত্রে অ্যাঞ্জিওমাইওলাইফোমার ঘটনা ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ।

অ্যাঞ্জিওমাইওলাইফোমা সাধারণত অন্য কোনো কিছু পরীক্ষা করতে গিয়ে ধরা পড়ে এবং ৯০ শতাংশেরও বেশি ক্ষেত্রে চিকিৎসায় ভালো হয়ে যায় বলে জানিয়েছেন তিনি