১৮ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সেতাবগঞ্জ চিনিকলে বকেয়া বেতনের দাবীতে এমডি অবরুদ্ধ

সেতাবগঞ্জ চিনিকলে বকেয়া বেতনের দাবীতে এমডি অবরুদ্ধ

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরের একমাত্র ভারী শিল্প প্রতিষ্ঠান সেতাবগঞ্জ চিনিকলে শ্রমিক-কর্মচারীদের বিগত ৪ মাসের বেতন ভাতার দাবীতে বুধবার সকালে চিনিকলের এমডির কার্যালয় ঘেরাও করে। সে সময় মিলের ভেতরে ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ,এম আল ইমরান ও মহা-ব্যবস্থাপক (অর্থ) মোঃ সাইফুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ শ্রমিক-কর্মচারীরা।

এ সময় মিলের কয়েকশত শ্রমিক-কর্মচারীরা অভিযোগ করে বলেন, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী থেকে মে মাস পর্যন্ত দীর্ঘ ৪ মাসে তারা বেতন ভাতা পায়নি। বেতন ভাতা না পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছেন তারা। মিল কর্তৃপক্ষ বার বার শ্রমিকদের বেতন ভাতার আশ্বাস দেওয়ার হলেও কোন রকম বেতন ভাতা পাচ্ছেন না তারা। বিপরীতে ৬০ টাকা কেজি দরে চিনি উত্তোলন করার সিদ্ধান্ত নেয়।

সে মোতাবেক গত ১৫ মে চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিলের শ্রমিক কর্মচারীদের নামে একটি চিনির ডিও অনুমোদন দেন সেই মোতাবেক ১৬ মে বুধবার সকালে শ্রমিক কর্মচারীরা চিনির ডিও নেয়ার জন্য মিলে গেলে ব্যবস্থাপনা পরিচালক শ্রমিকদের জানান, চিনির দাম ৬০ টাকা থেকে ৫০ টাকা নির্ধারন করায় কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান শ্রমিকদের চিনির ডিও প্রদানে নিষেধ করেছেন।

এসময় শ্রমিক-কর্মচারীরা চিনির ডিও দেওয়ার দাবী জানিয়ে বিক্ষোভ করে এবং এমডির কক্ষে এমডি এ,এম ইমরান ও মহা-ব্যবস্থাপনক (অর্থ) সাইফুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এসময় শত শত শ্রমিক-কর্মচারীরা এমডিও কার্যালয়ের সামনে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে দ্রুত শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতনভাতার বিপরীতে চিনির ডিও প্রদান করার জন্য দাবী জানান। এদিকে কয়েকজন শ্রমিক কর্মচারী অভিযোগ করেন যে, মিলের শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সেক্রেটারীর যোগসাজসে কর্পোরশেনর চেয়ারম্যানের সাথে আতাঁত করে এমডি ও মহা-ব্যবস্থাপক (অর্থ) বাড়তি ফায়দা লুটার জন্য চিনির ডিও দিতে টালবাহানা করছেন।

এদিকে শুরু হতে চলেছে পবিত্র রমজান মাস। তার ওপর ৪ মাস ধরে বকেয়া বেতন ভাতা বন্ধ। খরচের টাকা যোগাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এ ব্যাপারে বিক্ষুদ্ধ শ্রমিক কর্মচারীরা মানবিক কারনে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে মিলের এমডি এ,এম আল ইমরান জানান, সব ঠিক আছে চিনির দাম কমে যাওয়াতে চেয়ারম্যানের নির্দেশে শ্রমিক-কর্মচারীদেরও ডিও দেওয়া বন্ধ রয়েছে। তবে দুই একদিনের মধ্যে বেতন ভাতার ব্যবস্থা করা হবে।