২০ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বলিউড তারকাদের আলোচিত বিয়ে

  • অনন্য রেজা করিম

সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সাত পাঁকে বাঁধা পড়লেন সোনম কাপুর। বলিউডের সবচেয়ে স্টাইলিস্ট অভিনেত্রী হিসেবে সোনমের আলাদা পরিচিত এবং জনপ্রিয়তা রয়েছে। একদার জনপ্রিয় অভিনেতা অনিল কাপুরের কন্যা হলেও বলিউডে নিজের যোগ্যতায় এগিয়েছেন তিনি, একজন প্রতিশ্রুতিশীল সুঅভিনেত্রী হিসেবে নিজের অবস্থানকে সুদৃঢ় করেছেন। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে ভাল ভাল সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছে সোনম। দিল্লী সিক্স, ভাগ মিলখা ভাগ, খুবসুরত, নিরজা, প্রেম রতন ধন পাও, আই হেট লাভ স্টোরি, প্যাডম্যান, আইশা, রানঝানা প্রভৃতি ছবিতে তার চমৎকার অভিনয় দর্শক মনে মুগ্ধতার পরশ বুলিয়েছে। ৩২ বছর বয়সী সোনম কাপুর বেশ কিছুদিন ধরে প্রেমিক আনন্দ আহুজার সঙ্গে ডেটিং করছেন। ফলে তাদের দু’জনের সম্পর্ক নিয়ে সবার বাড়তি কৌতূহল ছিল। প্রথম দিকে নিজেদের রোমাঞ্চের ব্যাপারটি আড়ালে রাখতে চাইলেও এক পর্যায়ে তাদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের ব্যাপারটি প্রকাশ্যে চলে আসে। সোনমের বাবা অনিল কাপুর শুরুতে মেয়ের জীবনসঙ্গী হিসেবে আনন্দ আহুজাকে সাদরে গ্রহণ না করলেও শেষ পর্যন্ত কন্যার ইচ্ছার প্রাধান্য দিয়ে সবকিছু মেনে নেন। গত ৮ মে বেশ ঘটা করে সোনম কাপুরের বিয়ে হয়ে গেল। শিখ রীতিনীতি মেনে দীর্ঘদিনের প্রেমিক আনন্দ আহুজার সঙ্গে সাত পাঁকে বাঁধা পড়েছেন বলিউডের এই তারকা অভিনেত্রী। একে তো বলিউডের জনপ্রিয় তারকা অভিজ্ঞতার ওপর বলিউডের বিখ্যাত এক তারকা পরিবারের কন্যা, ঘটা করে বিয়ের আয়োজন তো হবেই। লাল লেহেঙ্গা পরে, হাতে চুড়া ঝুলিয়ে সোনম যখন বিয়ের জন্য ম-পে হাজির হন, তখন একের পর এক ক্যামেরার ফ্ল্যাশ ঝলসে উঠছিল। সানাইয়ের শব্দে পুরো বলিউডে উৎসবের আমেজ। কারণটা আর কিছুই নয়। অনিল কাপুর তনয়া সোনমের বিয়ে। মুম্বাইয়ের রকডেল বাংলোয় বিয়ের অনুষ্ঠানে ঘরোয়া আয়োজনে নবদম্পতির পরিবার ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বলিউডের নামী-দামী জনপ্রিয় সব তারকা। নতুন জুটিকে আশীর্বাদ জানাতে বিয়েতে উপস্থিত হয়েছিল অমিতাভ বচ্চন, ঘস্বতা বচ্চন, অভিষেক বচ্চন, জাভেদ আখতার, আমির খান, কিরণরা, করণজোহর, রানী মুখার্জি, কারিশমা কাপুর, কারিনা কাপুর, সাইফ আলি খান, জ্যাকুলিন, করণজোহর স্বর ভাস্বরসহ অনেকে। অনুষ্ঠানে অনিল কাপুরের নাচ ছাড়া সালমান খানের গাওয়া গান, শাহরুখ খানের স্পেশাল পারফরমেন্স উপস্থিত অতিথি ও দর্শকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল। প্রণয় যাত্রার এ শুভক্ষণে সোনম কাপুরের পরিধানে ছিল অনুরাধা ভাকিলের ডিজাইন করা লাল সোনালি রঙা সোনম কাপুর ও আনন্দ আহুজা দু’জনই তাদের পোশাকের সঙ্গে রেখেছেন মানানসই। উজ্জ্বল রঙের পরিবর্তে বেছে নিয়েছেন কালো, ‘সাদা ও ধূসর রং। পুরো অনুষ্ঠানেই হাস্যোজ্জ্বলভাবে মেতে থাকতে দেখা গেছে তাদের দু’জনকেই। খোঁপায় গাজরা, হাতে চুড়া, গলায় হার ও মাথায় ঝাপটা। মজার বিষয় হলো বিয়ের পর পরই নিজের নামটি পাল্টে ফেলেছেন সোনম। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে ‘নিজের নামটি বদলে এখন তিনি করেছেন সোনম কাপুর আহুজা।

বলিউডে তারকা পুত্র-কন্যাদের বিয়েশাদির অনুষ্ঠানগুলো স্বাভাবিকভাবে সবার বিশেষ মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠে সব সময়ই। ইতোপূর্বে তেমনি কিছু জমকালো আলোচিত বিবাহ অনুষ্ঠানের আয়োজন আজও সবার স্মৃতি উজ্জ্বল হয়ে আছে। ২০০২ সালে পিতা সুপারস্টার অমিতাভ বচ্চনের ৬০তম জন্মদিনে অভিনেত্রী কারিশমা কাপুরের সঙ্গে অভিষেক বচ্চনের এনগেজমেন্ট হলেও ২০০৩ সালে সেই এনগেজমেন্ট অজ্ঞাত কারণে ভেঙ্গে যায়। এরপর ধুম টু ছবিতে এক সঙ্গে অভিনয় করতে গিয়ে সাবেক মিস ওয়ার্ল্ড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রায়ের সঙ্গে প্রেমে জড়িয়ে পড়েন অভিষেক। যদিও এর আগে ঐশ্বরিয়া নায়ক সালমান খানের সঙ্গে প্রেম করেছেন দীর্ঘদিন। তাদের বিয়ের কথা প্রায় পাকাপাকি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু সালমানের কিছু আচরণে ঐশ্বরিয়া রাই ক্ষুব্ধ হয়ে সরে আসেন তার কাছ থেকে। ২০০৭ সালের ২০ এপ্রিল বেশ ঘটা করে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনের মধ্যে হিন্দু রীতিতে অভিষেক ঐশ্বরিয়ার বিয়ে হয়েছিল। অমিতাভ বচ্চনের বাড়ি মুম্বাইয়ের জুহুতে অবস্থিত প্রতীক্ষাকে জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল সেখানে মুম্বাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিসহ রাজনৈতিক ব্যবসায়ী মহলের রথী- মহারথীরা উপস্থিত হয়ে বর-কনেকে আশীর্বাদ করেছিলেন।

পতৌদির ছোট নবাব হিসেবে খ্যাত অভিনেত্রী শর্মিলা ঠাকুরের পুত্র বলিউড অভিনেতা সাইফ আলি খান ১৯৯১ সালে তার চেয়ে ১০ বছরের বড় অভিনেত্রী অমৃতা সিংকে বিয়ে করেছিলেন অনেকটা গোপনে। তাদের সংসার টিকেছিল ২০০৪ সাল পর্যন্ত। এরপর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় দু’জনের। সাইফ আলি খান বহু নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়ালেও তাদের কারও সঙ্গে গাঁটছড়া বাধা হয়নি। এরপর সবাইকে অবাক করে দিয়ে দশ বছরের ছোট অভিনেত্রী বিখ্যাত কাপুর পরিবারের মেয়ে কারিনা কাপুরের সঙ্গে রোমাঞ্চে জড়িয়ে পড়েন সাইফ আলি খান। তাদের সম্পর্ক নিয়ে বলিউডে মিশ্র প্রতিক্রিয়া থাকলেও তারা উভয়েই বিয়ের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। ২০১২ সালে মহাধুমধামে সাইফ আলি খান-কারিনা কাপুরের বিয়ে হয়। যদিও কারিনার পরিবার শুরুতে এ বিয়েতে আপত্তি তুললেও শেষ পর্যন্ত তা মেনে নেন। সাইফ-কারিনা লোকনিন্দার পরোয়া করেননি। নিজেদের পছন্দটাকে গুরুত্ব দিয়েছেন। প্রখ্যাত চিত্রনির্মাতা রাকেশ রোশনের পুত্র হৃত্বিক রোশন বলিউডে নায়ক হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভের আগে থেকেই একদার প্রখ্যাত অভিনেতা সঞ্জয় খানের মেয়ে সুজানা খানের সঙ্গে প্রণয়ের পর্ব শুরু করেছিলেন। ২০০০ সালের ২০ ডিসেম্বর হৃত্বিক সুজানাকে বিয়ে করেন। ব্যাঙ্গালুরের অনেকটা গোপনে হৃত্বিক সুজানা তাদের বিয়েটা সেরেছিলেন। হৃত্বিক একজন হিন্দু এবং সুজানা একজন মুসলমান হওয়া সত্ত্বেও তারা চমৎকারভাবে ঘর সংসার করেছেন ২০১৪ সাল পর্যন্ত। দুই সন্তানের বাবা-মা হওয়ার পর উভয়ের মধ্যে নানা বিষয়ে সন্দেহ অবিশ্বাস এবং বিরোধ দেখা দেয়। ফলে তাদের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায়।

অক্ষয় কুমার তার সহশিল্পী অনেক নায়িকার সঙ্গে গভীর সম্পর্কে জড়ালেও এক পর্যায়ে প্রখ্যাত অভিনেতা রাজেশ খান্না ও অভিনেত্রী ডিম্পল কাপাডিয়া দম্পতির কন্যা বলিউড নায়িকা টুইংকেল খান্নার সঙ্গে প্রেমের পর তাকে বিয়ে করেন ২০০১ সালের ১৭ জানুয়ারি। তাদের বিয়ে অনুষ্ঠানেও বলিউডের তারকাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। অক্ষয় কুমার মোটামুটি ঘটা করে বিয়ে করেন টুইংকেলকে। তারকা পরিবারের সুন্দরী কন্যাকে নিজের ঘরনী করেছেন অক্ষয়। তাদের দাম্পত্য জীবন চমৎকার, দুই সন্তানের বাবা-মা হয়েছেন তারা ইতোমধ্যে। একদার বিখ্যাত অভিনেত্রী হেমামালিনী এবং সুপারস্টার অভিনেতা ধর্মেন্দ্র দম্পতির কন্যা এশা দেওল বলিউডে নায়িকা হিসেবে বেশ অনেক ছবিতে অভিনয় করলেও বাবা-মায়ের মতো সফল হতে পারেননি। এশা দেওল প্রেমিক ভারত তাখতানির সঙ্গে বেশ কয়েক বছর চুটিয়ে প্রেম করার পর ২০১২ সালের ২৯ জুন বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের বিয়ে অনুষ্ঠানটিও ছিল জাঁকজমকপূর্ণ। বাবা ধর্মেন্দ্র এবং মা হেমামালিনীর কারণে তাদের কন্যা এশা দেওলের বিয়ের অনুষ্ঠানেও বলিউড তারকাদের জমজমাট মেলা বসেছিল।