১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাংবাদিকদের কল্যাণেই বিএনপি টিকে আছে ॥ হানিফ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, সাংবাদিকদের কল্যাণেই বিএনপি টিকে আছে। না হলে তাদের কোন অস্তিত্বই থাকত না।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে ঢাকার গোপালগঞ্জ সাংবাদিক সমিতি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি আরও বলেন, বিএনপি নামক এই দলটি দুর্নীতিবাজ সন্ত্রাসী দলের পর এখন হয়ে গেছে মিথ্যাবাদীর দল। এরা মিথ্যাচার করেই তাদের রাজনীতি টিকিয়ে রেখেছে। আর আমাদের সাংবাদিক বন্ধুদের কল্যাণেই কিন্তু বিএনপি টিকে আছে। না হলে তাদের কোন অস্তিত্বই থাকত না। আমার বিশ্বাস, সাংবাদিক বন্ধুরা যদি তাদের থেকে একবার মুখ ফিরিয়ে নিত, তাহলে এই দলের অস্তিত্ব এখন খুঁজে পাওয়া মুশকিল হয়ে যেত।

বিএনপি অনবরত মিথ্যাচার করে যাচ্ছে এমন অভিযোগ করে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, খুলনা নির্বাচনে নাকি তাদের ভয়ভীতি দেখানো হয়েছে! সুনির্দিষ্ট কোন ঘটনা তারা দেখাতে পারেনি। আমাদের দেশে বিভিন্ন নির্বাচনে দেখেছেন। কোন কেন্দ্রে যদি ছোটখাটো গোলযোগও হয়, তাহলে মিডিয়ায় তো চলে আসেই, এর বাইরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠে। কিন্তু খুলনা সিটি কর্পোরেশনের কোন জায়গায় অনিয়ম হচ্ছে, কারচুপি হচ্ছে, এমন কোন ছবি কিন্তু আসে নেই।

হানিফ বলেন, উন্নয়ন আর অগ্রগতির পথে দেশের জনগণ, এটা খুলনা সিটি নির্বাচনে প্রমাণ হয়ে গেছে। উৎসবের আমেজের মধ্য দিয়ে খুলনা সিটি নির্বাচন হয়েছে। কোথাও কোন সংঘাত-বিরোধ দেখা দেয়নি। যে দুটি কেন্দ্রে সমস্যা দেখা দিয়েছে, নির্বাচন কমিশন সে দুটি কেন্দ্র সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ করে দিয়েছে। খুলনা সিটি নির্বাচনে বিএনপি যে কারচুপির অভিযোগ করেছে, তার কোন সুনির্দিষ্ট প্রমাণ দেখাতে পারেনি তারা।

আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনা ফের ক্ষমতায় আসবেন এমন আভাস জনগণ দিয়েছে দাবি করে হানিফ বলেন, জনগণ খুলনায় রায় দিয়ে প্রমাণ করেছে, আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে। এদেশের জনগণ যেমন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে একটানা ২০ বছর ক্ষমতা থেকে উন্নয়ন করতে দেখেছে, ঠিক তেমনই শেখ হাসিনাকেও উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে আরও টানা ২০ বছর ক্ষমতায় দেখতে চায়। সে কারণেই তারা বলছেন, শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার। মালয়েশিয়ার নির্বাচন থেকে বিএনপিকে শিক্ষা নেয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের জনগণ আর দুর্নীতিবাজদের ক্ষমতায় দেখতে চায় না। দেশে শেখ হাসিনার পর আর কোন আস্থাভাজন ব্যক্তি নেই ।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ মামুন শেখের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন স্বচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওছার, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শাবান মাহমুদ, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুক্কুর আলী শুভ, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিয়ার রহমান দীপু প্রমুখ।