২০ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বসুন্ধরা পেপারের আইপিওতে ৬০৮ কোটি টাকা বেশি জমা

বসুন্ধরা পেপারের আইপিওতে ৬০৮ কোটি টাকা বেশি জমা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুজিবাজারে সেকেন্ডারী মার্কেট টানা মন্দাবস্থা চললেও প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসতে যাওয়া বসুন্ধরা পেপার মিল লিমিটেডের আবেদন জমা পড়েছে চেয়ে ৬০৮ কোটি বেশি। কোম্পানিটি সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৭৫ কোটি উত্তোলনের অনুমোদন ছিল। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার পেতে প্রতিটি লটের বিপরীতে ৯ দশমিক ১২ গুণ আবেদন করেছে বিনোয়োগকারীরা।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে বসুন্ধরা পেপার মিলের ইস্যু ম্যানেজার এএএ ফাইনান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবায়দুর রহমান জানান, গত ৩০ এপ্রিল থেকে ৯ মে (বুধবার) পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন করেছেন বিনিয়োগকারীরা। প্রবাসী কোটা বাদে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৬৮৫ কোটি টাকার আবেদন জমা পড়েছে। যা প্রয়োজনের তুলনায় ৯ দশমিক ১২ গুণ বেশি। কোম্পানিটির প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থার প্রতিফলন দেখা গেছে এই আবেদনের মাধ্যমে।

সূত্র জানা যায়, বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে বসুন্ধরা পেপার ২ কোটি ৬০ লাখ ৪১ হাজার ৬৬৭টি শেয়ারের বিনিময়ে পুঁজিবাজার থেকে ১৯৯ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫২ টাকা সংগ্রহ করবে। এর মধ্যে ইলেট্রনিক বিডিংয়ের মাধ্যমে নির্ধারিত কাট অব প্রাইস ৮০ টাকা, এ দামে এলিজিবল বিনিয়োগকারীদের (ইআই) কাছ থেকে সংগ্রহ করা হবে ১২৫ কোটি টাকা।

আর বাকি ৭২ টাকা দরে শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৭৪ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার ৯৫২ টাকা পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলন করতে গত ৩০ এপ্রিল আবেদন গ্রহণ শুরু করে। ১ কোটি ৪ লাখ ১৬ হাজার ৬৬৬টি শেয়ারের বিনিময়ে এই টাকা উত্তোলন করলো কোম্পানিটি।

আইপিওয়ের এই টাকা দিয়ে কোম্পানিটির কারখানার অবকাঠামো উন্নয়ন, যন্ত্রপাতি কেনা, স্থাপনা ও ভূমি উন্নয়ন বাবদ ১৩৫ কোটি, ঋণ পরিশোধ বাবদ ৬০ কোটি এবং বাকি ৫ কোটি টাকা আইপিও বাবদ খরচ করবে।

২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ দশমিক ৪৬ টাকা। সম্পদ মূল্যায়নসহ শেয়ার প্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৩০ দশমিক ৪৯ টাকা।