১৯ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদার মুক্তি দাবিতে শহীদ মিনারে বিশিষ্টজনদের কর্মসূচি পুলিশি বাধায় পন্ড

খালেদার মুক্তি দাবিতে শহীদ মিনারে বিশিষ্টজনদের কর্মসূচি পুলিশি বাধায় পন্ড

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিশিষ্টজনদের মৌন অবস্থান কর্মসূচি পুলিশের বাধায় পন্ড হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজউদ্দিন আহমদের নেতৃত্বে দুই দফায় বিশিষ্টজনেরা সেখানে অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করলেও পুলিশের বাধায় সরে যেতে বাধ্য হন। প্রথম দফায় আসা দলটি পুলিশের বাধায় সঙ্গে আনা ব্যানারও খুলতে পারেনি। আর পরের দফায় তারা ২০ মিনিটের মতো শহীদ মিনারের সিঁড়িতে অবস্থান নিতে পারেন।

সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বে ৫০ জনের মতো বিশিষ্টজন শহীদ মিনারে সমবেত হন। তাঁরা সেখানে যাওয়া মাত্র পুলিশ তাঁদের সরিয়ে দেয়। পুলিশের বাধা পেয়ে কয়েক মিনিটের মধ্যে সেখান থেকে চলে যান তাঁরা। এ সময় অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমেদ সাংবাদিকদের কাছে বলেন, একটি মানবিক আবেদন নিয়ে আমরা এখানে এসেছিলাম। আমরা চাই, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে যেন মানবিক কারণে মুক্তি দেওয়া হয়। আমাদের সঙ্গে আনা ব্যানারে সেই কথাটিও লেখা ছিল। কিন্তু পুলিশ ব্যানারটি খুলতেই দেয়নি। এখানে দাঁড়াতেও দেয়নি, বসতেও দেয়নি। ওই সময় সেখানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী, অধ্যাপক ড. জেড এন তাহমিদা খাতুন, অধ্যাপক তাজমেরি এন ইসলাম, ডা. এম এ আজিজ, অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, সাংবাদিক আবদুল হাই শিকদার প্রমুখ।

বেলা ১১টার দিকে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরউল্লাহ চৌধুরীর নেতৃত্বে বিশিষ্টজনদের আরেকটি দল শহীদ মিনারে যান। তাঁর সঙ্গে ছিলেন অধ্যাপক মেজবাহ-উল ইসলাম, হোসনে আরা, আখতার হোসেন খান, আবদুর রশীদসহ ১৫ জন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। তাঁরা শহীদ মিনারের সিঁড়িতে ১৫ থেকে ২০ মিনিট অবস্থান নেয়ার পর পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়।

এই মাত্রা পাওয়া