১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশকে আরও বেশি বিনিয়োগ করার আহ্বান আইএমএফ’র

বাংলাদেশকে আরও বেশি বিনিয়োগ করার আহ্বান আইএমএফ’র

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ উন্নয়নের প্রতিবন্ধকতা কাটাতে বাংলাদেশকে আরও বেশি বিনিয়োগ করতে হবে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। বিশেষ করে, মধ্যম আয়ের দেশ হয়ে ওঠার জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন ও ব্যাংকি খাতে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখা জরুরি। র্মকর্তারা কারণ বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন শক্তিশালী অবস্থানে আছে। ২০১৮ সালে এর প্রবৃদ্ধি হবে ৭ শতাংশ।

আইএমএফ জাতিসংঘ কর্তৃক অনুমোদিত স্বায়ত্তশাসিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন দেশের মুদ্রানীতি এবং মুদ্রামানের হ্রাস-বৃদ্ধি পর্যবেক্ষণ করা এই আন্তজার্তিক সংস্থাটির অন্যতম প্রধান কাজ। বাংলাদেশে আইএমএফ এর মিশন প্রধান দাইসাকু কিহারা বলেন, ট্যাক্স থেকে মোট জিডিপির মাত্র ৯ শতাংশ আয় হয়। অন্যান্য নিম্ন আয়ের দেশে এর পরিমাণ ১৫ শতাংশ।

মি. কিহারা বাংলাদেশ অবকাঠামো ও সামাজিক ক্ষেত্রে বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘ট্যাক্স নীতির সংস্কার দরকার। ট্যাক্স প্রশাসনকে আরও শক্তিশালী করতে হবে।’ অনলাইন নিবন্ধনের মাধ্যমেও ট্যাক্স দেওয়ার সুযোগ রাখা যেতে পারে।

আইএমএফ জানায়, মিয়ানমার থেকে ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসলে এখনও সেটার অর্থনৈতিক প্রভাব খুব বেশি পড়েনি। আন্তর্জাতিক আর্থিক সহায়তার কারণে এটি সামাল দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলে জানান কিহারা। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে এই চাপ বাড়তে পারে। বন্যা ও ভূমিধস ঠেকাতে ব্যবস্থা নেওয়া ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়নে আরও ব্যয় হতে পারে।

সংস্থাটি জানায়, বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য এখনও অর্থায়নের সবচেয়ে বড় উৎস হচ্ছে ব্যাংকগুলো। তবে এর সঙ্গে সরকারেরও সাহায্য করা উচিত। ব্যাংকগুলোকে আরও শক্তিশালী করতে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। নীতি নির্ধারকদের ব্যাংক সংশ্লিষ্ট বর্তমান আইনকে আরও শক্তিশালী করার আহ্বান জানায় আইএমএফ।

নির্বাচিত সংবাদ