১৭ আগস্ট ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোবাইল ফোনে প্রেম অতঃপর গণধর্ষণ

মোবাইল ফোনে প্রেম অতঃপর গণধর্ষণ

স্টাফ রিপোর্টার, গলাচিপা ॥ মোবাইল ফোনে পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে দশমিনা উপজেলার রনগোপালদী গ্রামের ২২ বছরের যুবক রাকিব হাওলাদারের। বেশ কিছুদিন ধরে চলে প্রেমের অভিনয়। এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ট্রলারে তুলে চরের নির্জন এলাকায় নিয়ে তিন যুবক ওই তরুণীকে গণধর্ষণ করে। এলাকাবাসী তিন যুবককে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছে। গলাচিপা পুলিশ গ্রেফতার যুবকদেরসহ উদ্ধারকৃত ভিকটিমকে দশমিনা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। ঘটনায় দশমিনা থানায় গণধর্ষণের মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

গলাচিপা পুলিশের কাছে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ১৮ বছরের ওই তরুণী অভিযোগ করেছে, তার সঙ্গে দশমিনা উপজেলার রনগোপালদী গ্রামের রিয়াজ হাওলাদারের ছেলে রাকিব হাওলাদারের মোবাইল ফোনে পরিচয় ও প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ের প্রলোভন দিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যুবক রিয়াজ তাকে রতনদী-তালতলী ইউনিয়নের নিমহাওলা গ্রামের বাড়ি থেকে মটর সাইকেলে তুলে নেয়। প্রথমে তাকে দশমিনা উপজেলার আউলিয়াপুর গ্রামে নেয়া হয়। পরে সেখান থেকে নানাবাড়ি নিয়ে বিয়ের কথা বলে একটি ট্রলারে তোলে। ট্রলারটি পাতারচরের একটি নির্জন এলাকায় থামিয়ে তিন যুবক তাকে গণধর্ষণ করে।

চিৎকার দিতে চাইলে দুর্বৃত্তরা মুখে ওড়না বেধে তরুণীকে নদীতে ফেলে দেয়ার হুমকি দেয়। রাত দশটার দিকে ধর্ষক যুবকরা ফের ট্রলারে তুলে তরুণীকে নিয়ে তার বাড়ির কাছাকাছি তুলাতলা ঘাটে আসে। সেখানে তরুণীকে নামিয়ে ধর্ষকরা পালিয়ে যাওয়ার পায়তারা করছিল। সন্দেহ হওয়ায় এলাকাবাসী তিন যুবককে আটক করে গলাচিপা পুলিশে খবর দেয়। এ সময় অপর দুই দুর্বৃত্ত পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। গলাচিপা পুলিশ কর্তৃক গ্রেফতারকৃত যুবকরা হচ্ছে মোজাম্মেল গাজীর ছেলে সেকান্দার গাজী (২৩), রাজ্জাক বেপারীর ছেলে বাবু বেপারী (১৯) ও বজলু খাঁর ছেলে হাসান খাঁ (২২)। তাদের সবার বাড়ি দশমিনা উপজেলার রনগোপালদী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে।

গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জাহিদ হোসেন জানান, ঘটনাস্থল দশমিনা উপজেলার আওতায় হওয়ায় উদ্ধার ভিকটিমসহ গ্রেফতারকৃতদের দশমিনা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় দশমিনা থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।