২২ জুন ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ইংল্যান্ডের শুভ সূচনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে স্টিভেন স্মিথ নেই। ডেভিড ওয়ার্নারও নেই। দুই ক্রিকেটারকে ছাড়াই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে খেলতে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ওয়ানডেতেই হেরেছে। ৩ উইকেটে হেরেছে। অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে সিরিজে শুভ সূচনাও করেছে ইংল্যান্ড। সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছে।

নতুন নেতৃত্বের অস্ট্রেলিয়ার শুরু হলো হার দিয়ে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এই সিরিজ শুরুর আগে অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষ ওয়ানডে খেলে গত জানুয়ারিতে। পার্থে অনুষ্ঠেয় সেই ম্যাচেও তাদের প্রতিপক্ষ ছিল ইংলিশরা। সে সময় অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্ব ছিল স্টিভ স্মিথের কাঁধে। কিন্তু পরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে এক বছরের নিষিদ্ধ হন তিনি।

এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়াকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন টিম পেইন। লন্ডনের কেনিংটন ওভালে প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সাত রানে প্রথম উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। এরপর স্কোরবোর্ডে ১০০ রান তোলার আগে হারায় আরও চার উইকেট। তারপরও তাদের রান ২১৪তে পৌঁছায়। কারণ গ্লেন ম্যাক্সওয়েল যে ক্যারিয়ারের ১৬তম হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। তিনি শেষ পর্যন্ত ৬২ রান করেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪০ রান আসে এ্যাস্টন এ্যাগারের ব্যাট থেকে। মঈন আলি ও লিয়াম প্লাঙ্কেট তিনটি করে উইকেট নেন। এ দুই বোলারের সামনেই মূলত অস্ট্রেলীয় ব্যাটিং লাইন ধসে যায়। এ ছাড়া আদিল রশিদ নেন দুটি উইকেট। জবাব দিতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই জ্যাসন রয়কে হারায় ইংলিশরা। বিলি স্ট্যানলেক উপড়ে ফেলেন তার স্টাম্প। ৩৮ রানের মধ্যে আরও দুই উইকেট হারিয়ে চাপেই পড়ে যায় স্বাগতিকরা। সেই চাপ থেকে তাদের উদ্ধার করেন জনি বেয়ারস্টো ও জো রুট।

স্কোর ॥ অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ॥ ২১৪/১০; ৪৭ ওভার (ফিঞ্চ ১৯, হেড ৫, মার্শ ২৪, স্টয়নিস ২২, পেইন ১২, ম্যাক্সওয়েল ৬২, এ্যাগার ৪০, নেসের ৬, টাই ১৯, রিচার্ডসন ১, স্ট্যানলেক ০*; উড ১/৩২, উইলি ১/৪১, মঈন ৩/৪৩, রশিদ ২/৩৬, রুট ০/২০, প্লাঙ্কেট ৩/৪২)।

ইংল্যান্ড ইনিংস ॥ ২১৮/৭; ৪৪ ওভার (রয় ০, বেয়ারস্টো ২৮, হেলস ৫, রুট ৫০, মরগান ৬৯, বাটলার ৯, মঈন ১৭, উইলি ৩৫*, প্লাঙ্কেট ৩*; স্ট্যানলেক ২/৪৪, নেসের ২/৪৬, রিচার্ডসন ১/৪৯, টাই ২/৪২, এ্যাগার ০/২৮, ম্যাক্সওয়েল ০/৯)। ফল ॥ ইংল্যান্ড ৩ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরা ॥ মঈন আলি (ইংল্যান্ড)।

নির্বাচিত সংবাদ