১৭ জুলাই ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আনন্দের বন্যায় ফরাসীরা

আনন্দের বন্যায় ফরাসীরা

শাকিল আহমেদ মিরাজ ॥ ঠিক একযুগ পর আবার বিশ্বকাপের ফাইনালে ফ্রান্স। সেন্ট পিটার্সবার্গের প্রথম সেমিতে ‘ডার্ক হর্স’ বেলজিয়ামকে (১-০) হারিয়ে শিরোপার নিশ্বাসসম দূরত্বে পৌঁছে গেছে দিদিয়ের দেশমের শিষ্যরা। রাশিয়া কাঁপিয়েছেন এ্যান্টনি গ্রিজম্যান, ইলিয়ান এমবাপে, পল পগবারা আর উল্লাসে ফেটে পড়েছে প্যারিস। প্রতিবেশী ইংল্যান্ড যেদিন সেমিতে উঠেছিল লন্ডনে সেদিন যে অবস্থা হয়েছিল পরশু সেটিকেও ছাড়িয়ে গেছে ফ্রান্সের রাজধানী। আতশবাজী, হৈহুল্লোড় থামাতে পুলিশকে কাঁদানে গ্যাস, জলকামান ব্যবহার করতে হয়েছে। মনে হচ্ছিল দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে গেছে ফরাসীরা। ‘১৯৯৮-এ ফ্রান্স যখন চ্যাম্পিয়ন হয় তখন আমার বয়স ১৮। সেটি ছিল আমার জীবনের স্মরণীয় দিন। আজ আরও একটি উৎসবের আগাম প্রস্তুতি নিয়ে রাখলাম।’ প্যারিসের পানশালা থেকে বেরিয়ে বলছিলেন লরিয়েল সেবাস্তিয়েন নামের এক ফুটবলপ্রেমী।

তবে উৎসব এক পর্যায়ে ভয়াবহ বিশৃঙ্খলায় রূপ নেয়। রাজধানী প্যারিসসহ বিভিন্ন জায়গায় কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ ও পদদলনের মতো ঘটনা ঘটে। রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে প্রতিপক্ষ বেলজিয়ামকে একমাত্র গোলে পরাজিত করে ফ্রান্স। বিবিসি জানিয়েছে, খেলা শেষ হওয়ার পরপরই ফরাসী ফুটবলভক্তরা রাজধানী প্যারিসের শনজে এলিজে এ্যাভিনিউতে জড়ো হয়। আনন্দ উৎসব এক সময় উচ্ছৃঙ্খলতায় রূপ নেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে কয়েক হাজার ফুটবলভক্তকে এ্যাভিনিউটি থেকে সরিয়ে দিতে চেষ্টা করে। বিপরীত দিক থেকে ফুটবলভক্তরা পুলিশকে লক্ষ্য করে রাস্তায় থাকা আসন ও বিভিন্ন জিনিসের টুকরা অংশ নিক্ষেপ করতে শুরু করে। তারা ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণে ব্যবহৃত প্লাস্টিকের প্রতিবন্ধক, ধাতুর রেলিং ইত্যাদি রাস্তায় ছুড়ে ফেলে, এক পর্যায়ে আস্ত একটি সোফা এনে রাস্তার মাঝখানে পেতে রাখে বলে চ্যানেল নিউজ এশিয়ার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্যারিসের পাশাপাশি নিসেও জয়োৎসবের সময় ব্যাপক বিশৃঙ্খলা হয়েছে। এখানে পদদলনের ঘটনায় অন্তত ২৭ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয় এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, খেলার শেষ বাঁশি বাজার আগ মুহূর্তে উৎসবকারীরা পটকা ফুটাতে শুরু করলে পদদলনের ঘটনা ঘটে। ‘পটকা ফোটানো শুরু করার পরপরই ভিড়ের মধ্যে হুড়োহুড়ি শুরু হয়’Ñ জানিয়েছেন স্থানীয় নগর কর্মকর্তা জ্যঁ গ্যাবরিয়েল দেলাক্রোয়া। এ সময় ২৭ জন আহত হন বলে উল্লেখ করা হয়। স্থানীয় গণমাধ্যমে সম্প্রচারিত স্থির চিত্রে উল্টে পড়া টেবিল, চেয়ার ও ভাঙ্গা কাঁচের টুকরা দেখা গেছে। ‘ডার্ক হর্স’ বেলজিয়ামকে হারিয়ে ১২ বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে ফ্রান্স। মঙ্গলবার সেন্ট পিটার্সবার্গে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে বেলজিয়ামকে ১-০ গোলে হারিয়েছে দিদিয়ে দেশমের শিষ্যরা। ৫১ মিনিটে ফ্রান্সের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেছেন স্যামুয়েল উমতিতি। ফরাসীরা প্রথম বিশ্বকাপের ফাইনালের উঠেছিল ১৯৯৮ সালে। সেবার ব্রাজিলকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতেছিল জিনেদিন জিদানের দল।

দ্বিতীয়বার ২০০৬ সালে ফাইনালে উঠলেও হারতে হয় ইতালির কাছে। ১২ বছর পর আবার ফাইনালে তারা। ২০ বছর পর শিরোপ জয়ের হাতছানি। রাশিয়ার বিশ্বকাপে বেলজিয়ামকে হারিয়ে তৃতীয়বারের মতো ফাইনালে উঠল তারা। এবারের আসরে তরুণ তারকা সমৃদ্ধ একটি দল নিয়ে গিয়েছিলেন ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক দিদিয়ে দেশম। কিলিয়ান এমবাপে, আঁতোয়া গ্রিজম্যান, পল পগবাদের সমন্বয়ে গঠিত দলটি এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেবারিট দল। কিন্তু ফরাসীরা ফেবারিটদের বধ্যভূমি রাশিয়ায় ঠিকই নিজেদের সাফল্য বজায় রেখে উঠে গেল ফাইনালে। আর বিদায় নিল এবারের বিশ্বকাপের চমক জাগানো দল বেলজিয়াম।

প্রতিটি বিভাগেই নিজেদের সেরাটা খেলেছে ফ্রান্স। গ্রিজম্যানের একের পর এক সুযোগ সৃষ্টি, এমবাপের গতি, কিংবা মধ্যমাঠে পগবার দীপ্ত পদচারণায় মুখরিত ছিল সেন্ট পিটার্সবার্গের মাঠ। যদিও এক গোলেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। ফাইনালে উঠেই উন্মাদনায় কাঁপছে প্যারিস। শিরোপা জিতলে যে কী হবে!