১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথ এর কার্যকর ভূমিকা প্রয়োজন : রওশন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথ এর কার্যকর ভূমিকা প্রয়োজন : রওশন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথকে দ্রুত কার্যকর ভূমিকা গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ ববলেছেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে জাতিসংঘের সাথে মিয়ানমার চুক্তি করলেও কাঙ্খিত দৃশ্যমান অগ্রগতি এখনও পর্যন্ত হয়নি। আর এক্ষেত্রে কমনওয়েলথ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এমপি’র সাথে তাঁর সংসদ ভবনস্থ কার্যালয়ে কমনওয়েলথ এর মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড এর সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি একথা বলেন।

কমনওয়েলথ মহাসচিব এ প্রসঙ্গে বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু কমনওয়েলথ এর কাছে গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা বিপন্ন রোহিঙ্গাদের মানবিক আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ সমগ্র পৃথিবীর কাছে প্রশংসনীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। কমনওয়েলথ মানবিক সনদে যেটা বলা হয়েছে, তা মানলে এ সংকট সমাধানের পথ সহজ হবে। তিনি আরও বলেন, শিক্ষা, কমনওয়েলথ অভিবাসন, নারীর ক্ষমতায়ন, জনবায়ু পরিবর্তন, সুশাসন সহ নানাবিধ বিষয় নিয়ে কাজ করছে। এসব অবশ্যই ইতিবাচক। এর বাইরে নতুন নতুন উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলো উপকৃত হতে পারে।

দশম জাতীয় সংসদ কার্যকর করে তুলতে বিরোধীদলের ভূমিকার প্রশংসা করে কমনওয়েলথ এর মহাসচিব বলেন, গণতন্ত্রকে সমুন্নত রাখতে নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। আগামী সংসদ নির্বাচনে সকল দলের অংশগ্রহণে শক্তিশালী ও কার্যকর সংসদ গঠিত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, জাতীয় পার্টি অতীতে সকল প্রতিকূলতার মাঝেও জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে। আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্যও জাতীয় পার্টি প্রস্তুত। দেশ ও জাতির স্বার্থে সংসদীয় গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রাখা জরুরী এবং এ ক্ষেত্রে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের কোন বিকল্প নেই। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন ।

বিরোধীদলীয় নেতা কমনওয়েলথভূক্ত রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে আন্ত:বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদারের আহ্বান জানালে কমনওয়েলথ মহাসচিব বলেন, কমনওয়েলথভূক্ত রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে আন্ত:সংযোগ বিশেষ করে বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও জোরদারের পদক্ষেপ নেয়া হবে। সদস্য রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে বাণিজ্যিক যোগাযোগ বাড়লে তা সকলের জন্যই ইতিবাচক হবে। সাক্ষাৎকালে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ তাজুল ইসলাম চৌধুরী, ফখরুল ইমাম, বিরোধীদলীয় হুইপ নূরুল ইসলাম ওমর, নূরে-হাসনা-লিলি চৌধুরী, রওশন আরা মান্নান প্রমুখ।