১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেরালায় ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৭

কেরালায় ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৭

অনলাইন ডেস্ক ॥ ভারতের কেরালায় সাম্প্রতিক বন্যা, ভূমিধ্বস ও সেতু ধ্বসের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৭ জনে পৌঁছেছে। সরকারি কর্মকর্তারা একথা জানিয়েছেন।

দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যটির জনসংখ্যা ৩ কোটি ৩০ লাখ। তবে সাম্প্রতিক বন্যায় অনেকেই বাস্ত্যুচুত হয়েছেন। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সেখানে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে। বলেছে, বিগত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির সম্মুখীন কেরালা।

প্রায় প্রতি বছরই বর্ষাকালে ভারী বর্ষণের শিকার হয় কেরালা। কিন্তু এই বছর তা চরম মাত্রায় পৌঁছেছে। ৮ আগস্ট থেকে বর্ষণ ভয়ানক মাত্রা ধারণ করেছে। আর এই বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় ভেসে গেছে শত শত গ্রাম।

রানওয়ে ও পার্কিং এলাকায় বন্যা দেখা দেওয়ায় রাজ্যের কোচি বিমানবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কোচিমুখী ফ্লাইটগুলোকে অন্য বিমানবন্দরে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

ট্রেন যোগাযোগ ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে; অনেক ট্রেন দেরিতে যাতায়াত করছে, আবার অনেক ট্রেনের যাত্রা বাতিল করা হয়েছে।

ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ। শুক্রবার সন্ধ্যায় ইডুক্কি জলাধারের দুটি বাঁধের ফটক খুলে দেওয়ার পরপর অবস্থা আরো বেগতিক মোড় নেয়। এরপর স্থানীয় সময় রাত আড়াইটার দিকে জলাধারের পানি ১৪০ ফুটের মাত্রা অতিক্রম করায় মুল্লাপেরিয়ার বাঁধের ফটকও খুলে দেওয়া হয়।

বৃষ্টি ও বন্যার কারণে হওয়া ভয়াবহ ধ্বংসযজ্ঞের কারণে কেরালার সরকার চলতি মাসের ‘ওনাম উৎসব’ বাতিল ঘোষণা করেছে। উৎসবের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের সরকার যে ৩০ কোটি রুপি বরাদ্দ রেখেছিল, তা তার দুর্যোগ ত্রাণ তহবিলে স্থানান্তর করা হয়েছে।

১৯২৪ সালের পর চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে শুরু হওয়া এবারের তীব্র বর্ষণেই কেরালায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। এরই মধ্যে ৬০ হাজারেরও বেশি মানুষকে আশ্রয় শিবিরে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে; সম্পদ ও ফসলের ক্ষয়ক্ষতি ৮ হাজার কোটি রুপি ছাড়িয়ে গেছে।