২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি নয় : আইনমন্ত্রী

বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি নয় : আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অনেক উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের অগ্রযাত্রা চলছে। আমরা যদি বঙ্গবন্ধুর কন্যার পেছনে ঐক্যবদ্ধ থাকি, বঙ্গবন্ধুর কন্যার হাতকে শক্তিশালী করি তাহলে শুধু আমাদের নয়, আমাদের সন্তানেরাও কিন্তু‘বলতে পারবে আমাদের একটা মর্যাদাশীল দেশ আছে।

বৃহস্পতিবার ঢাকায় নিবন্ধন অধিদপ্তর প্রাঙ্গণে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, নিজেদের অর্থায়নে শেখ হাসিনার পদ্মা সেতু তৈরি করার সিদ্ধান্ত বাংলাদেশকে মর্যাদার আসনে বসিয়েছে। পদ্মা সেতু তৈরির অর্থায়নে যখন বিশ্বব্যাংক তাদের অর্থ দেওয়ার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছিল, সে সময়ে অনেক সিভিল সোসাইটি তাদের নিয়ে ডিনার খেয়েছিল। সেদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের টাকায় পদ্মা সেতু তৈরি করার সিদ্ধান্তের কথা শুনে তারাও হেসেছিল। কিন্তুসেদিন পদ্মা সেতু নিজের টাকায় তৈরি করার অভিপ্রায় এবং সেই স্বপ্নকে সত্য করার কারণেই কিন্তুবাংলাদেশের চিত্র বদলে গেছে সারাবিশ্বের কাছে।

তারা মনে করে এই নেত্রী যা বলেন, তা করেন এবং যেটা বলেন সেটা বুঝেই বলেন। তিনি বলেন, আজকে বঙ্গবন্ধুর কন্যার কারণে আমরা মর্যাদার আসনে বসেছি। তার দৃঢ়তার কারণেই আজকে আমরা এখানে বসেছি। তাই আসুন বঙ্গবন্ধুর দিয়ে যাওয়া দেশকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাংলায় রূপান্তর করে বঙ্গবন্ধুর প্রতি আমাদের ঋণ পরিশোধ করি।

আইনমন্ত্রী বলেন, এই দেশে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার যাতে না হয় সেজন্য আইন করা হয়েছিল। আজকে দুঃখের কথা আমাদের শুনতে হয় যে এখানে মানবতা বিরোধী কাজ চলছে। হিউম্যান রাইটসের ব্যাপারে আমাদের অনেকেই জ্ঞান দেন। আমার তাদের কাছে শুধু একটাই প্রশ্ন সেই দিন আপনারা কই ছিলেন। সেই ২১ বছর আপনারা কই ছিলেন। যখন এই দেশে ইনডেমনিটি অর্ডিনেন্স ছিল। আপনারাতো কেউ মুখ খুলে বলেন নাই এই ইনডেমনিটি অর্ডিনেন্স বাতিল করতে হবে।

তিনি বলেন, এমন অনেক লোক আছেন যারা সেদিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে নমিনেশন পেয়েছিলেন নৌকা মার্কায়। কিন্তু‘ইনডেমনিটি অর্ডিনেন্স তুলে নেওয়ার দাবি কিন্তু‘তারা করেন নাই।আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ্ শেখ মো. জহিরুল হক এর সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক, নিবন্ধন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক খান মো. আব্দুল মান্নান, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাসরিন বেগম ও সালমা বিনতে কাদির বঙ্গবন্ধুর জীবন আলেখ্য নিয়ে আলোচনা করেন।সভা শেষে বঙ্গবন্ধু ও তার সঙ্গে নিহত পরিবারের সদস্যদের রূহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।