২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মিয়ানমার সীমান্তে হঠাৎ সেনা বৃদ্ধি, টহল জোরদার

  • ২৫ আগস্ট ফের হামলা চালানোর গুজব, স্বার্থ হাসিলে তৎপর কতিপয় এনজিও

এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ মিয়ানমার সীমান্তে হঠাৎ করে সেনা সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। গত শুক্রবার সকাল থেকে সীমান্তের বিভিন্ন স্থানে ভারি অস্ত্রসহ নতুন করে সেনা সংখ্যা বাড়িয়েছে মিয়ানমার। রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের সশস্ত্র সংগঠন আরসা ২৫ আগস্ট প্রতিশোধমূলক হামলা চালাতে পারে সন্দেহে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ সীমান্তে সেনা ও বিজিপি সদস্য বাড়িয়েছে। তবে এ বিষয় ঘিরে বাংলাদেশ সীমান্তে কোন ধরনের আতঙ্ক ও উত্তেজনা নেই।

সূত্র জানায়, আরাকানের বিদ্রোহী সংগঠন আরসার সঙ্গে মিয়ানমারের গত বছরের ২৫ আগস্ট সংঘাত সৃষ্টি হয়। এর পরদিন থেকে দেশটির সেনা বাহিনী শুদ্ধি অভিযানের নামে রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর নির্যাতন চালায়। প্রাণ বাঁচাতে ৭ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা নতুন করে পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয় বাংলাদেশে। বর্তমানে পুরনো ও নতুন মিলে অন্তত ১২ লাখ রোহিঙ্গা অবস্থান করছে উখিয়া টেকনাফে। রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো হত্যাযজ্ঞের বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে ২৫ আগস্ট। আরসা ক্যাডাররা প্রতিশোধমূলক হামলা করতে পারে, এমন আশঙ্কায় সীমান্তে ভারি অস্ত্রসহ সেনা ও সীমান্ত পুলিশের সংখ্যা বৃদ্ধি করেছে মিয়ানমার। শনিবার হতে বান্দরবানের রুমা থেকে টেকনাফ পর্যন্ত মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সেনা সদস্যদের সঙ্গে বিজিবি টহল দিচ্ছে। কক্সবাজারের টেকনাফ, উখিয়া ও বান্দরবানের থানছি, আলীকদম, নাইক্ষ্যংছড়ির চাকঢালা, আশারতলি, তুমব্রু ও ঘুনধুম সীমান্তের ওপারে রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকাগুলোয় নিরাপত্তা ও টহল বাড়িয়েছে বর্মী সেনাবাহিনী।

বিজিবি সূত্র জানায়, ২৫ আগস্ট আরসা নতুন করে হামলা করতে পারে মর্মে তাদের কাছে খবর পৌঁছেছে। তাদের মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের খবর প্রকাশ পাওয়ায় হয়তো এর সূত্র ধরেই মিয়ানমার সীমান্তে নিরাপত্তা বৃদ্ধি করে থাকতে পারে। তবে বাংলাদেশ-মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ ও যৌথ টহলদান অব্যাহত রয়েছে।

সীমান্ত অঞ্চলে কোন ধরনের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা নেই।