১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়ক নদীগর্ভে বিলীন, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়ক নদীগর্ভে বিলীন, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

নিজস্ব সংবাদাদাতা, বাগেরহাট ॥ বাগেরহাটের চিতলমারীতে মধুমতি সর্বগ্রাসী হয়ে উঠেছে। এ নদীর তীব্র ভাঙ্গনে সোমবার এক রাতে শৈলদাহ এলাকায় বাড়ি-ঘর, দোকান-পটসহ ঢাকা-পিারাজপুর মহাসড়কের চার ভাগের তিন ভাগ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফাটল দেখা দিয়েছে প্রায় এক’শ মিটার এলাকায়। ফলে রাজধানীর সাথে বরিশাল ও খুলনা বিভাগের বেশিরভাগ জেলা-উপজেলার সাথে এপথে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। অব্যাহত ভাঙ্গনে ইতোমধ্যে বিলীন হয়েছে অর্ধশতাধিক ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। আরও অসখ্য প্রতিষ্টান মারত্মক হুমকীর মুখে রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে স্থানীয়রা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন। ভাঙন রোধে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসি।

মঙ্গলবার সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার শৈলদাহ বাজার সংলগ্ন ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়কটি অব্যাহত ভাঙনের মুখে সোমবার রাতে সড়কের চার ভাগের তিন ভাগই নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়া সড়কের বাকী অংশে বড় ফাঁটল দেখা দেওয়ায় যে কোন সময় সেটি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এতে পিরোজপুর, নাজিরপুর, পাথরঘাটা, বরগুনা, ভান্ডারিয়া, মঠবাড়িয়া, পর্যটন কেন্দ্র কুয়কাটা ও খুলনা বিভাগের বেশ কয়েকটি জেলা-উপজেলার সাথে যান চলাচল বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এতে দূরপাল্লার পরিবহন ও মালামালবাহী ট্রাক আটকে পড়ায় জনদুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, মুজিবর রহমান শেখ, আলম শেখসহ শৈলদাহ বাজারের ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, গত কয়েক বছর ধরে এখানে নদী ভাঙন মারত্মক আকার ধারণ করেছে। এনিয়ে বহু আবেদন নিবেদন করলেও কর্তৃপক্ষ উদাসীন। এ পর্যন্ত শৈলদাহ বাজারের ব্যবসায়ী রোকা সরদার, ঝিলু শেখ, বাবুল শেখ, ইব্রহিম শেখ, রহমান শেখ, সোহবান শেখ, শাহাদাৎ শেখ, শাহআলম শেখ, মোমরেজ শেখ ও জাহাঙ্গীর শেখের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ অসংখ্য দোকান-পাট নদীতে বিলীন হয়ে যাওয়ায় তারা সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসেছেন। এছাড়া অব্যাহত এ ভাঙনের মুখে সোমবার রাতে ঢাকা-পিরোজপুর মহাসড়কের চার ভাগের তিন ভাগই নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় দূরপাল্লার পরিবহন ও মালামালবাহী ট্রাক আটকে পড়ায় চরম জনদুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা । অথচ ভাঙন রেধে কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি বলেও তারা অভিযোগ তোলেন।

স্থানীয় শৈলদাহ বাজারের ব্যবসায়ী আলম শেখ জানান, ভাঙনের মুখে পার্শ্ববর্তী এসএসডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নূরালী মাদ্রাসা ও একটি সাইক্লোন সেন্টার, একটি আলিয়া মাদ্রাসা হুমকিতে রয়েছে। দোলা পরিবহনের স্থানীয় কাউন্টার কর্মী মিরাজ শেখ জানান, ভাঙনে সড়কটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার কারণে পিরোজপুর থেকে ঢাকাগামী তাদের পরিবহন চলাচল সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শিকদার মতিয়ার রহমান জানান, বিষয়টি নিয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা চলছে। ভাঙন রোধে নানাভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ইউএনও আবু সাঈদ জানান, তিনি এর আগে ঘটনাস্থল তিনি পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বলা হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ