১৬ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্বাচন প্রতিহত করার ক্ষমতা নেই বিএনপি জামায়াতের ॥ নাসিম

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন- বিএনপি-জামায়াত জোট যতই হুমকি দিক না কেন নির্বাচন প্রতিহত করার ক্ষমতা তাদের নেই। নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে এবং সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর কোন বিকল্প নেই। তিনি মঙ্গলবার দুপুরে তার নির্বাচনী এলাকা মনসুর নগর থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক কর্মীসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।

মনসুর নগর থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্দুল লতিফ তারিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ কর্মী সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, চোনগাছা ইউপি চেয়ারম্যান সহিদুল আলম, সাবেক চেয়ারম্যান আলী হোসেন মল্লিক, আমজাদ হোসেন প্রমুখ। কর্মী সভায় রতনকান্দি ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুল মোক্তাদির বকুলকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

কর্মীসভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন- বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ অন্ধকার থেকে আলোকিত হয়েছে। তিনি জঙ্গী দমন করেছেন- সমুদ্র সীমা জয় করেছেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। যা এখন দৃশ্যমান। দেশে এখন রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, নির্বাচন সন্নিকটে, শান্তি ও উন্নয়নকে সামনে রেখে নেতাকর্মীকে জনগণের কাছে যেতে হবে। শেখ হাসিনার নৌকা মার্কার বিজয়ের জন্য কাজ করতে হবে। তিনি দলের প্রতিটি নেতাকর্মীকে নির্বাচনী কাজেজ এখন থেকেই ঝাপিয়ে পড়ার জন্য নির্দেশ দেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, নির্বাচন আসলেই চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র শুরু হয়। এবারও চক্রান্ত যড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। বাংলার মানুষ ভোট দেবে সিদ্ধান্ত নেবে। লজ্জার বিষয় দেশের সমস্যা থাকলে তা বাংলার জনগণ সমাধান করবে। এখানে জাতিসংঘের করণীয় কিছু নেই। আওয়ামী লীগকে আগামী নির্বাচনে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা ছোট ভুল করলে শুধরে নেব, আপনারা বড় ভুল করবেন না। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমারা ভুল করি না, আমাদের দোষ নেই, তা আমরা বলি না। ভুল হতে পারে মন্ত্রীর ভুল হতে পারে। মানুষ ভুল করে, ফেরেস্তা ও শয়তান ভুল করে না। কিন্তু গত ১০ বছরে দেখেছেন কেউ যদি ভুল করে শেখ হাসিনা তাকে বের করে দিয়েছেন, দল থেকেও বের করে দিয়েছেন। এমপিকে জেলে পাঠিয়েছেন। কর্মীদের শায়েস্তা করেছেন।