১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খলিলের প্রতি ভরসা রাখাই যায় ॥ রোহিত শর্মা

খলিলের প্রতি ভরসা রাখাই যায় ॥ রোহিত শর্মা

অনলাইন ডেস্ক ॥ রাজস্থানের টঙ্ক থেকে ভারতীয় ক্রিকেটের রাজপথ। ২০ বছর বয়সীর যাত্রাপথ মসৃণ ছিল না একেবারেই। কিন্তু সব বাধা টপকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকেই নজর কাড়লেন খলিল আহমেদ।

সম্প্রতি ভারতীয় ক্রিকেটে বাঁ-হাতি পেসার বলতে আলোচিত হতেন জয়দেব উনাদকাট ও বারিন্দার স্রান। কিন্তু, কেউই নিজের জায়গা পাকা করতে পারেননি। খলিলকে সে জন্যই সুযোগ দিয়েছিলেন জাতীয় নির্বাচকরা। আর প্রথম সুযোগেই বাজিমাত করলেন তিনি। এশিয়া কাপে হংকংয়ের বিরুদ্ধে অভিষেকেই নিলেন তিন উইকেট।

বাবা-মার অনিচ্ছা সত্ত্বেও ক্রিকেটে এসেছিলেন খলিল। বাঁ-হাতির বলে আগাগোড়াই ছিল গতি। ২০১৬ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে সুযোগ পান। কোচ হিসেবে রাহুল দ্রাবিড়ের উপস্থিতি শাণিত করে তোলে তাঁকে। যদিও ছয় ম্যাচে তিনের বেশি উইকেট পাননি তিনি। সেই বছরই আইপিএলে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস দলে আসেন ১০ লক্ষ টাকায়। তবে দু’বছরেও আইপিএলে কোনও ম্যাচে খেলেননি। জাহির খানের পরামর্শ অবশ্য পেয়েছিলেন।

এই বছরের আইপিএলে তাঁকে তিন কোটি টাকায় নিয়েছিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। কিন্তু, একটির বেশি ম্যাচে খেলেননি। সেই ম্যাচে তিন ওভারে দেন ৩৮ রান।

এখনও পর্যন্ত ১৮টি লিস্ট এ ম্যাচ খেলেছেন খলিল। নিয়েছেন ৩১ উইকেট। গড় ২১.৮৭। ইকনমি রেট ৪.৭৪। টি-টোয়েন্টিতে ১২ ম্যাচে ১৯.৬৪ গড়ে নিয়েছেন ১৭ উইকেট। ইকনমি রেট ৭.২৬। চলতি বছরে ইংল্যান্ডে ভারতের ‘এ’ দলের সফরে তিন ম্যাচে নেন ছয় উইকেট। ইকনমি রেট ৪.৫৫।

পরের বছর ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ। সেখানে একজন বাঁ-হাতি পেসারকে স্কোয়াডে রাখার ভাবনা রয়েছে দল পরিচালন সমিতির। শুরুতে আশার প্রদীপ জ্বালিয়ে পরে নিভে যাওয়ার উদাহরণ ভারতীয় ক্রিকেটে কম নেই। খলিল নিজের জায়গা পাকা করতে পারেন কিনা, সেদিকে তাই নজর থাকবে ক্রিকেটপ্রেমীদের।

তবে ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপের দেরি রয়েছে। কয়েক ঘন্টা পরের ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের দিকেই এখন চোখ উপমহাদেশের ক্রিকেটমহলের। হংকংয়ের বিরুদ্ধে যেভাবে দ্বিতীয় স্পেলে বল করেছেন, খলিলের প্রতি ভরসা রাখাই যায়। অধিনায়ক রোহিত শর্মার আস্থাও অর্জন করেছেন দ্রুত। পাক ব্যাটিং লাইন-আপে ভাঙন ধরানোর ভাবনায় খলিলও তাই থাকছেন।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা