২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এশিয়া কাপে ভারত অন্যায় সুবিধে পাচ্ছে ॥ সরফরাজ

এশিয়া কাপে ভারত অন্যায় সুবিধে পাচ্ছে ॥ সরফরাজ

অনলাইন ডেস্ক ॥ ঘড়িতে সময়টা যা দেখাচ্ছিল, তাতে বোঝা গেল, ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা তত ক্ষণে দলবল নিয়ে দুবাই ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢুকে পড়েছেন। হংকংয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলতে।

স্টেডিয়াম থেকে কিছুটা দূরে নেট প্র্যাক্টিসে নামার আগে, সাংবাদিক বৈঠকে বসে প্রায় তখনই বিস্ফোরক অভিযোগটা করে বসলেন পাক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। মঙ্গলবার ভরদুপুরে ইঙ্গিত দিয়ে বসলেন, এশিয়া কাপে ভারত অন্যায় সুবিধে পাচ্ছে। ‘‘ভারত যদি আমাদের কাছে হেরে যায়, তা হলে ওরা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হবে না। কিন্তু তাও ওরা দুবাইয়ে থাকবে। আর আমরা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলেও সেই আবু ধাবিতে গিয়ে খেলতে হবে। এই আবহাওয়ায় অতটা দূরে যাওয়াটা কিন্তু খুব কষ্টের ব্যাপার,’’ বলেছেন পাক অধিনায়ক।

আগে ঠিক ছিল, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন দুবাইয়ে খেলবে, দু’নম্বর দল সুপার ফোরে অন্তত একটা ম্যাচ খেলবে আবু ধাবিতে। কিন্তু পরে সেই নিয়ম বদলে যায়। সরফরাজ বলছেন, ‘‘নিয়মটা ভারত-পাকিস্তান সব দলের জন্য এক হওয়া উচিত। আবু ধাবিতে যদি খেলা পরেই, তা হলে সেখানে সব দলই একটা না একটা ম্যাচ খেলুক। আমি জানি না, কেন এ রকম নিয়ম হল। আমাদের বোর্ড নিশ্চয়ই এই নিয়ে

কথা বলবে।’’

এর পরেই সরফরাজকে মনে করিয়ে দেওয়া হল, ভারত কিন্তু এই মারাত্মক গরমে পরপর দু’দিন দুটো ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলছে। যা কোনও দিন হয়নি। সেটা তো রোহিতদের জন্য একটা বড় সমস্যা। মিষ্টি হেসে পাক অধিনায়ক বললেন, ‘‘কিন্তু এটাও দেখুন, ভারত তো এখানে পরে এসেছে।’’

এই ভাবে সূচি বদলে যাওয়ার কারণটা কী? স্থানীয় সংযুক্ত আরব আমিরশাহির ক্রিকেট কর্তারা কী বলছেন? আবু ধাবি ক্রিকেট সংস্থার অস্থায়ী চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার ম্যাট বাউচার বলছেন, ‘‘আমরা এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করছি ঠিকই, কিন্তু এর আসল সংগঠক এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল এবং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। যা সিদ্ধান্ত ওরাই নিয়েছে। সূচি বদলে গেলেও আমাদের কোনও সমস্যা নেই।’’ ভারতীয় বোর্ডে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেল, এর পিছনে ব্যবসায়িক কারণটা বেশি কাজ করেছে। বোর্ডকর্তারা মনে করছেন, দুবাইয়ের স্টেডিয়াম যে-হেতু আবু ধাবির থেকে বড়, তাই এখানে টিকিট বিক্রি বেশি হবে। মাঠ ভরে যাবে আর সংগঠক হিসেবে ভারতীয় বোর্ডের লাভও হবে। যদিও সরকারি প্রতিক্রিয়া দিতে নারাজ তাঁরা।

তবে সরফরাজ যতই আবু ধাবি যাওয়া নিয়ে কাঁদুনি গান না কেন, ঘটনা হল, পাক অধিনায়কের সমস্যাটা অন্য জায়গায়। সেই সমস্যার নাম মহম্মদ আমির। পাকিস্তানের সেরা বাঁ হাতি বোলার ইদানীং ফর্মে নেই। শেষ চারটি ম্যাচে একটা উইকেট পেয়েছেন। নতুন বলটা কাজে লাগাতে পারছেন না। এ দিন প্র্যাক্টিসে দেখা গেল, আমিরকে নিয়ে আলাদা করে পড়েছেন পাকিস্তানের কোচ মিকি আর্থার। গত বছর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে বিরাট কোহালিকে আউট করা বোলারকে অনেকটা সময় ধরে বোঝালেন তাঁরা। নেটে আমিরকে অবশ্য খুব বেশি গা ঘামাতে দেখা যায়নি। তিনি নিজের চেয়ে ভারতকে নিয়ে বেশি ভাবছেন। পাকিস্তানি সাংবাদিকদের আমির বলেন, ‘‘বিরাট কোহালির না থাকাটা ভারতকে ভোগাবে।’’

এই পেসারের ফর্ম নিয়ে এতটাই আশঙ্কা তৈরি হয়েছে যে, পাক সাংবাদিকেরা তো প্রশ্ন করেই বসলেন, ‘‘আপনারা কি আমিরকে ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচে বসিয়ে দেবেন?’’ একটু বিরক্ত সরফরাজ বললেন, ‘‘উইকেট না পেলেই এক জন খারাপ বল করছে, ব্যাপারটা সব সময় এ রকম হয় না। এই তো ভারতের মহম্মদ শামি ইংল্যান্ডে শেষ টেস্টে কত ভাল বল করল, কিন্তু উইকেট বেশি পেল কোথায়? আমিরের ব্যাপারটাও তা-ই হচ্ছে। যে কোনও দিন উইকেট পাবে।’’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা