১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পিয়ার ‘ক্রিকেট এক্সট্রা’

  • সব্যসাচী দাশ

হঠাৎ করে চুক্তির নির্ধারিত সময়ের আগেই চাকরি ছেড়ে নিজ দেশের দায়িত্ব নেন কোচ হাতুরে সিং। দেশপ্রেম বলে কথা! কিন্তু অপ্রিয় হলোও সত্য! তাঁর হঠাৎই চলে যাওয়া আমাদের ক্রিকেটের ধারাবহিক সাফল্য ক্ষাণিকটা ব্যাহত করে। কিন্তু ক্রিকেট খেলার প্রতি আমাদের অগাধ ভালবাসা এবং দায়িত্ববোধের কারণে ওই ক্ষণিক কালবেলা খুব বেশি দীর্ঘ হয়নি। গত শনিবার ছিল ১৪তম এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচ। বাংলাদেশ ভার্সেস শ্রীলঙ্কা। খেলা শুরুর আগে দেশের অগণিত মানুষ মনেপ্রাণে চাইছিল যে কোন মূল্যে দল যেন জিতে!। সত্য বলতে কি, কিছু চাপা সংশয় আমাদের মধ্যে ছিল। নতুন কোচ, দলের উদীয়মান খেলোয়াড়ের নিষেধাজ্ঞা, নতুন ভন্যু আরও অন্যান্য একাধিক বিষয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের ব্যাপারে কিছুটা হলেও সন্ধিহান করে তুলেছিল।

দিন শেষে বাস্তবতা ছিল বাংলাদেশী খেলোয়াড়দের মরণপণ প্রত্যয়ী মনভাব জাতিকে একরাশ আনন্দের ফুলঝুড়ি উপহার। বিজয় উল্লাসে আমরা সিক্ত হয়েছি। বিশেষ করে মুশফিকুর রহিম এবং তামিম ইকবালের গগনচুম্বী সাহস জাতির মেরুদ-ে সাহস যুগিয়েছে। টেলিভিশনের পর্দায় চোখ রেখে আমরা হারিয়ে গিয়েছিলাম- লাল-নীল আবেগী স্বপ্নের ভুবনে। টিভি পর্দায় সেই স্বপ্নীল আবেশে চোখের সামনে ধরা পড়েছিল পিয়া জান্নাতুল নামের সেই সুন্দরী মানবীর। মিষ্টি হেসে বাংলাদেশের টাইগারদের বীরত্বগাঁথা স্টুডিওতে বসে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করছে। আমরা তখনও মোহাবিষ্ট। হ্যাঁ, পিয়া জন্নাতুল এবার ‘ক্রিকেট এক্সট্রা’ নামে গাজী টিভির এশিয়া কাপ মিশনের সারথী। নতুন করে তাকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। তিনি এখন বাংলাদেশের ‘পিয়া’! গেল বিপিএল আসরে ক্রিকেটপ্রেমীরা খেলার মাঠে তার রূপের আভিজাত্য উপভোগ করেছে। তার দ্বিতীয় ইনিংস ২০১৮ এশিয়া কাপ।

সম্প্রতি পিয়ার সঙ্গে কথা হয় আনন্দকণ্ঠের, সমকালীন কর্মযোগ এবং অন্যান্য বিষয় নিয়ে। প্রথমেই কেমন আছেন। খুব ভাল। আপনি? ভাল। দেশের মানুষ আপনাকে আন্তর্জাতিক মডেল, অভিনেত্রী এবং একাধিক নামী-দামী কোম্পানির ব্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হিসেবে জানে। বিপিএলের পর এবার এশিয়া কাপ কেমন লাগছে? পিয়া, আমার প্রথম কথা হলো যে কোন বিষয়ে ঠিক ঠাক উপস্থানপনা করা চ্যলেঞ্জিং ব্যাপার। সার্বিক ধারণা ছাড়া কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যায় না। তারপর আবার টিভি পর্দায় ক্রিকেটের মতো অত্যন্ত সেনসিটিভ বিষয়- সত্যই চ্যালেঞ্জিং! ‘ক্রিকেট এক্সট্রা’ করতে কেমন লাগছে। খুবই ভাল। বাংলাদেশের ম্যাচ নিয়ে কিছু বলেন? আমার দেশের খেলা দেখে আমি বিমোহিত, চমৎকৃত বিশেষ করে মুশফিক-তামিমের বীরত্বে... আমার তো মনে হয় এবার বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হবে। এই টুর্নামেন্টে ভারত-পাকিস্তানের একটা হাই ভোল্টেজ ম্যাচ আছে, সেটা নিয়ে আপনার মতামত? পিয়া, আমি মনে করি ভারত জিতবে। ভারতের ইয়াং যে সব খেলোয়াড় আছে তারা অপ্রতিরোধ্য। কিন্তু পাকিস্তানেরও তো বেশ ভাল ভাল বোলার আছে? হ্যাঁ তা আছে তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে ভারতকেই এগিয়ে রাখব। তামিমের ইনজুরি ছয় সপ্তাহ মাঠে নামতে পারবে না। সদ্য যে সব ক্রিকেটাররা আলোচিত সমালোচিত হলেন তাদের নিয়ে আপনার মতামত বিশেষ করে দলের এই অবস্থায় সাব্বিরের কোন অভাব উপলব্ধি করেন? হ্যাঁ করি তো বটে! ও অনেক ভাল খেলোয়াড় কিন্তু হিরো ইজম এবং অন্যান্য কারণে ছেলেটা সুন্দর ক্যারিয়ারটা উল্টাপাল্টা করছে। আমি ওকে জিজ্ঞেস করেছিলাম তুমি এসব কি করছে। আর একটা বিষয় আমি বলতে চাই। প্রত্যেকটা মানুষের একটা ব্যক্তিগত জীবন থাকে। সেটা খেলোয়াড় হোক আর মডেল হোক কেবলই একান্ত! সাপোজ আপনার একটা পারসোনাল সম্পর্ক থাকতেই পারে। সেটা ঘোরাফেরা বা মোজ-মাস্তির হতে পারে। কিন্তু সে সম্পর্ক আপনি রাখবেন কি রাখবেন না সেটা কিন্তু আপনার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। এটা অন্য কেউ ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার কোন মানে আছে বলে আমি মনে করি না। এই যেমন, নাসিরের সঙ্গে যে ঘটনা ঘটল।

মেয়েটা যখন তার সঙ্গে ঘোরা-ফেরা, মোজ-মাস্তি করছিল তখন কি সে বোঝে নাই ছেলেটা কি চাইছে? শেষমেশ কি দাঁড়ালো নাসিরের নাম ব্যবহার করে মেয়েটি রাতারাতি আলোচনায় আসার চেষ্টা করল। এসব ক্ষেত্রে মেয়েদের অবশ্যই সচেতন হওয়া উচিত। এসব ক্ষেত্রে খেলোয়াড়দের যে শাস্তি হচ্ছে তা যথেষ্ট বলে আপনি মনে করেন? হ্যাঁ যথেষ্টই বলে আমি মনে করি। ‘ক্রিকেট এক্সট্রা’ ছাড়া আর কি নিয়ে ব্যস্ত আছেন? নাম বলা যাবে না একটা রিয়েলিটি শোর হোস্ট করছি। এ ছাড়া আসছে ১৯ অক্টোবর কক্সবাজার বিচের পাশে এক জাঁকজমক অনুষ্ঠানের আমি শো স্টপার। রিসেন্ট ইয়ামাহার ব্যান্ড এ্যাম্বাসেডর হিসেবে যুক্ত হলাম। সামনে তাসকিনের সঙ্গে এপেক্সের একটা টিভিসি করব। এত কিছু করে সংসার ঠিক রাখতে কোন অসুবিধা? আলহামদুল্লিাহ...ওটা (সংসার) ঠিক আছে বলেই এত কিছু করতে পারি। মা হওয়ার ইচ্ছা জাগে না। অবশ্যই। আমাদের শোবিজে আর একটা পিয়া জান্নাতুল আসছে না কেন? পিয়া, এটা খুবই দুঃখজনক শোবিজে আরও নতুন নতুন মেয়েদের আসা উচিত একজন বা দু’জন দিয়ে একটা ইন্ডাস্ট্রি চলতে পারে না। সেই ষোলো বছর বয়স থেকে নিজেকে ভেঙ্গে গড়ে তোলার চেষ্টা করেছি।

আজকে আমি পিয়া জান্নাতুল। আর একটা কথা, ব্যক্তিগত উপলব্ধি জীবনে শিক্ষার গুরুত্ব আমি মনে করি সর্বাধিক। কারণ আজ আমাকে যারা ডাকেন বা হোস্ট হতে বলেন সবই কিন্তু আমার শিক্ষার সঙ্গে বিশেষভাবে সম্পর্কিত সুতরাং লেখাপড়া বা শিক্ষা গ্রহণ ‘মাস্ট’। ধন্যবাদ ভাল থাকবেন। অপনিও ভাল থাকবেন।