১৯ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্বপ্ন সিনেমায় প্লেব্যাক করব -বিন্দিয়া

  • খোকন ভূঁইয়া

ফারজানা নওশীন খান বিন্দিয়া রাগাশ্রিত ও আধুনিক গানে দেশের সঙ্গীতাঙ্গনে জননন্দিত একজন সঙ্গীতশিল্পী। উপমহাদেশের প্রখ্যাত সুরসাধক ওস্তাদ গুল মোহাম্মদ খান সাহেবের সুযোগ্য নাতনি এবং বাংলাদেশের উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের অন্যতম পথিকৃৎ ওস্তাদ ইয়াসিন খানের কন্যা ফারজানা নওশীন খান বিন্দিয়া। বংশের ধারা বজায় রেখে তিনিও গান করছেন। শত তারকার ভিড়ে নিজের অবস্থান ধরে রেখেছেন তার কণ্ঠের জাদুতে। ছোটবেলা থেকেই বিন্দিয়া সঙ্গীতচর্চা করছেন। প্রতিদিন ঘুম ভেঙ্গে একই দৃশ্যের মুখোমুখি হতেন। ওস্তাদ ইয়াসিন খান বাংলাদেশের সর্বশেষ ডাগারঘারান উওরসূরি ছিলেন। বাবা ওস্তাদ ইয়াসিন খান তানপুরা নিয়ে গলা সাধছেন। মায়ের কাছে গিয়েও দেখতেন একই চিত্র। বাবা কিংবা মায়ের কোলের কাছে চুপচাপ বসে শুনতেন তাদের গান। এভাবেই গানকে ভালবাসতে থাকেন ফারজানা নওশীন খান বিন্দিয়া। তবে বিন্দিয়ার পথচলা মায়ের অবদান অপরিসীম। তার দাদা ওস্তাদ গুল মোহাম্মদ খান ঢাকায় খেয়ালের আদি প্রচলনকারী। দাদার কাছ থেকে সরাসরি গানের তালিম নিতে না পারলেও তাকে পেয়েছেন বাবার মধ্যে। বিন্দিয়ার হাতেখড়ি বাবার কাছেই। মায়ের কাছেও শিখেছেন সুরের তাল লয়। প্রথমে উচ্চাঙ্গসঙ্গীতের তালিম নিলেও বড় খালার অনুপ্রেরণায় আধুনিক গানও শিখেছেন। বিন্দিয়া খান সেমি ক্লাসিক ও আধুনিক গানে ইতোমধ্যে দেশের সঙ্গীতাঙ্গনে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারের তালিকাভুক্ত শিল্পী তিনি। তার একক গান নিয়ে ইতোমধ্যে দুটি এ্যালবাম ‘জাদুর কাঠি’ ও ‘মিষ্টি কথার ছলে’ প্রকাশিত হয়েছে। এর বাইরেও প্রায় ৪০টির ওপরে মিক্স এ্যালবাম রয়েছে। ইতোমধ্যে ৬-৭টি বাংলা সিনেমায় প্লেব্যাক করেছেন। সামনে দেশের ও কলকাতার বেশ কিছু সিনেমায় প্লেব্যাক করবেন আলোচনা চলছে বলে তিনি জানান। এ ছাড়া তিনি ভারতের জি বাংলা সা রে গা মা পা বিশ্বসেরা প্রতিযোগিতায় ২০০৮ সালে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ থেকে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। ২০১২ সালে মিউজিক টুডে থেকে বের হয় বিন্দিয়ার প্রথম একক এ্যালবাম জাদুর কাঠি। একই সঙ্গে চলচ্চিত্রেও প্লেব্যাক শুরু করেন। শাকিব খান অভিনীত ঢাকার কিং ছবির ‘ইউ আর মাই লাভ’ দিয়ে তার অভিষেক। গানটিতে তার সঙ্গে ছিলেন এস আই টুটুল। এরপর গেয়েছেন একই নায়কের ছবি ফাঁদে। এতে ‘আই লাভ ইউ জান’ শিরোনামের গানটিতে তার সহশিল্পী ছিলেন মুহিন। এ পর্যন্ত বেশ কিছু প্রোগ্রাম করেছেন বিটিভিতে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য রয়েছে সঙ্গীতা, মধু মালতী, কাটুক সময় গানে গানে, হৃদকল্লোল, স্বপ্তসুর, গুঞ্জন, পাঁচ মিশালী, স্মৃতিময় গানগুলো, পঞ্চ কবির গান ও গান চিরদিন। সম্প্রতি তিনি সাজিন আহমেদ বাবু পরিচালিত ‘পোশাকে বংশের পরিচয়’ ঈদ স্পেশাল ধারাবাহিক ৭ পর্বের কমেডি নাটকে ৫টি কভার গান করেন। বিন্দিয়া খানের কণ্ঠে ‘খুব চেনাচেনা মুখখানি তোমার লাগছে আমাকে’ আশা ভোসলের এই জনপ্রিয় গানটি দিয়ে নাটকটি শুরু হয়েছিল। ‘পোশাকে বংশের পরিচয়’ ৭ পর্বের নাটকটিতে অভিনয় করেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত অভিনেতা মোশারফ করিম এবং ইরেশ জাকের, জুঁই করিম, মিলন ভট্টাচার্য, পিয়া জান্নাতুলসহ অনেক গুণী শিল্পী।

নির্বাচিত সংবাদ