১৮ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করল ভারত

  • এশিয়া কাপ

শাকিল আহমেদ মিরাজ ॥ কিসের উন্মাদনা কিসের কি! বুধবার এশিয়া কাপে বহুল আলোচিত এ-গ্রুপের শেষ ম্যাচে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী পাকিস্তানকে স্রেফ উড়িয়ে দিয়েছে ভারত। রোহিত শর্মার দল পেয়েছে ৮ উইকেটের বিশাল জয়। পাকিস্তানকে মাত্র ১৬২ রানে গুড়িয়ে দিয়ে ভারতীয় বোলাররাই মূলত ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দেন। ৪৩.১ ওভারে অলআউট সরফরাজ আহমেদের দল। জবাবে রোহিত (৫২) ও শিখর ধাওয়ানের (৪৬) দারুণ ব্যাটিংয়ে ২৯ ওভারেই ২ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। দু-দল আগেই সুপার ফোর নিশ্চিত করায় ম্যাচটা হয়ে উঠেছিল মর্যাদার লড়াই। সাম্প্রতিক পারফর্মেন্স ও নিজেদের দ্বিতীয় হোম ভেন্যু আরব আমিরাতে পাকিস্তানই ছিল ফেবারিট। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সরফরাজরা যে পাত্তাই পেল না! গুরুত্বহীন ম্যাচটা ম্যাড়মেড়ে হলেও ভক্তরা অবশ্য এই দুবাইয়ে-ই রবিবার সুপার ফোরে চিরবৈরী দু-দলের মধ্যে একটি আগুন লড়াই দেখার অপেক্ষায় থাকবেন।

মামুলি টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ভারতকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার। ১৪তম ওভারে লেগস্পিনার শাদাব খানের শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৬ চার ও ৩ ছক্কায় ৩৯ বলে ৫২ রানের ঝড়ো ইনিংস উপহার দেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। ৫৪ বলে ৪৬ রান করে আউট হন আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান। সহজ জয়ের পথে বাকি কাজটা সারেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিক (৩১*) ও আমবাতি রাইডু (৩১*)। পাকিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন ফাহিম আশরাফ ও শাদাব খান।

এর আগে ভুবনেশ্বর কুমার ও জাসপ্রিত বুমরাহ শুরুতেই পাকিস্তানকে চেপে ধরেন। ইমাম-উল-হক ও ফখর জামানকে জায়গা দেননি দুই ভারতীয় পেসার। স্টাম্প সোজা বলে রানের জন্য ছটফট করে দ্রæত ফিরেন দুই ওপেনার। পরপর দুই ওভারে ইমাম ও জামানকে বিদায় করেন ভুবনেশ্বর। বেরিয়ে এসে তাকে উড়ানোর চেষ্টায় কট বিহাইন্ড হন ইমাম (২)। পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন জামান (০)। এরপর নিজেদের সেরা জুটি পেয়ে যায় পাকিস্তান। তৃতীয় উইকেটে ৮২ রান যোগ করেন বাবর আজম ও শোয়েব মালিক। কুলদীপের গুগলি বেরিয়ে এসে খেলতে গিয়ে বাবর বোল্ড হলে ভাঙ্গে প্রতিরোধ। ৬ চারে ৪৭ রান করেন বাবর। ২৬ রানে মহেন্দ্র সিং ধোনি, ৩৭ রানে ভুবনেশ্বর হাতে জীবন পাওয়া মালিক ফেরেন রান আউট হয়ে। একটি করে ছক্কা-চারে অভিজ্ঞ এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান করেন ৪৩ রান।

আর কেউ যেতে পারেননি ত্রিশ পর্যন্ত। মালিক-বাবরের পঞ্চাশ ছোঁয়া জুটির বাইরে পাকিস্তানের আর একটি জুটি কেবল ২০ পর্যন্ত যেতে পেরেছে। অষ্টম উইকেটে মোহাম্মদ আমিরের সঙ্গে ৩৭ রানের জুটিতে দলকে দেড় শ’ রানে নিয়ে যান ফাহিম আশরাফ। বুমরাহ আশরাফকে ফিরিয়ে দেয়ার পর বেশি দূর যেতে পারেনি পাকিস্তান। গুটিয়ে যায় ৪১ বল বাকি থাকতে। নিজের পঞ্চম ওভারটি করার সময় চোট পাওয়া হারদিক পান্ডিয়া মাঠ ছাড়েন স্ট্রেচারে করে। দারুণ বোলিং করে তার অভাব বুঝতেই দেননি অনিয়মিত স্পিনার কেদার যাদব। নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে কেদার ২৩ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। ভুবনেশ্বর ১৫ রানে তিনটি ও নতুন বলে তার সঙ্গী বুমরাহ ২ উইকেট নিয়েছেন ২৩ রানের বিনিময়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর ॥ পাকিস্তান ১৬২/১০ (৪৩.১ ওভার; ইমাম ২, ফখর ০, বাবর ৪৭, মালিক ৪৩, সরফরাজ ৬, আসিফ ৯, শাদাব ৮, ফাহিম ২১, আমির ১৮*, হাসান ১, উসমান ০; ভুবনেশ্বর ৩/১৫, বুমরাহ ২/২৩, পান্ডিয়া ০/২৪, চাহাল ০/৩৪, কুলদীপ ১/৩৭, কেদার ৩/২৩)

ভারত ১৬৪/২ (২৯ ওভার; রোহিত ৫২, ধাওয়ান ৪৬, রাইডু ৩১*, কার্তিক ৩১*; ফাহিম ১/৩১ , শাদাব ১/৬)

ফল \ ভারত ৮ উইকেটে জয়ী

নির্বাচিত সংবাদ