২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেখ হাসিনার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ, আসছে সোনালী দিন : এমিলি

 শেখ হাসিনার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ, আসছে সোনালী দিন  : এমিলি

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ লৌহজং কলেজ মাঠে নৌকার পক্ষে বৃহস্পতিবার বিকালে জনসমুদ্র হয়েছে। “উন্নয়ন উৎসব” নামে লৌহজং উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এই বিশাল জনসভায় নির্বাচনী ঢেউ ছড়িয়ে পরে। একাট্টা রুপ নেয় আওয়ামী লীগে। একইমঞ্চে রেকর্ড পরিমান আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকমী অংশ নেন। সকলের বক্তব্যেই ছিল মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলির নেতেত্বে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করতে ঐক্যের সুর। এতে সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়।

পদ্মা তীরের এই জনপদে রেকর্ড পরিমান টেকসই উন্নয়ন চিত্র ফুটে আসে কথার মালায়। পদ্মা সেতুসহ বড় বড় প্রকল্প নির্মিত হচ্ছে এই এলাকায়। এসব বলতেই সাড়া পরে যায় জনসভায়। এতে প্রধান অতিথ ভাষণদেন স্থানীয় সাংসদ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি।

জনসভা চলমান থাকার শেষ পর্যন্ত লোকজন আসতেই ছিল। সর্বশেষ বিশাল মিছিলটি আসে মাওয়া থেকে। আর দুপুর থেকে নৌপথে ও সড়ক পথে সমাবেশ স্থল ঘিরে মানুষের ঢল নামে। নৌকা নৌকা, “বঙ্গবন্ধুর নৌকা”, “শেখ হাসিনার নৌকা”, “এমিলির নৌকা” এমন নানা স্লোগানে মুখরিত হয়। বাদ্য বাজনা নিয়ে মিছেলর পর মিছিল। ঐতিহ্যবাহী জনপদ লৌহজং যেন মিছেলের জনপদে রূপ নেয়। নৌকা, ট্রলার, লঞ্চসহ নানা নৌযানে করে লোকজন জড়ো হয় এই সমাবেশে। এছাড়া সড়ক পথে বাসের পর বাস ভর্তি হয়ে আসে লোকজন। সকলের হাতে শোভা পায় বর্ণিল ফেস্টুন। শেখ হাসিনা ও এমিলির ছবি সম্বলিত এই ফেস্টুন ছিল সমাবেশে উপস্থিত নারী পুরুষের হাতে হাতে। এই সমবেশে লক্ষ্যনীয় বিষয় ছিল বিপুল সংখ্যক নারীর অংশ গ্রহন। বিভিন্ন শ্রেণি পেশার নারী-পুরুষের সরব উপস্থিত আর নানা স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে পদ্মা তীরের এই মাঠ।

লৌহজং উপজেলার ১০ ইউনিয়ন এবং টঙ্গীবাড়ি উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন মোট ২৩ ইউনিয়নের ১৯ জন চেয়ারম্যানই উপস্থিত ছিলেন এই জনসভায়। ২৩ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রায় সকল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অংশ নেন। ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা এবং জেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ব্যাপক উপস্থিতিতে জনসভাটি বিশেষ এক ঐক্যের অনুররণ ছছিয়ে দেয়। দুই উপজেলা নিয়ে গঠিত এই আসনে এটি স্মরণকালের বড় এক জনসভা বলেও দাবী করেছেন নেতৃবৃন্দ।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ওসমান গনির সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ শিকদারের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন টঙ্গীবাড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ইজ্ঞিনিয়ার কাজী ওয়াহিদ, টঙ্গীবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজ আল আসাদ বারেক, তিন ভাইস চেয়ারম্যান জাকির ব্যাপারী, রাহাত খান রুবেল ও এমিলি পারভীন, লৌহজং আওয়ামী লীগের তিনি যুগ্ম সম্পাদক মেহেদী হাসান, বিএম সোয়েব ও শেখ আনোয়ার হোসেন, পাঁচগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মিলানুর রহমান মিলন, বেতকা ইউপি চেয়ারম্যান আলম শিকদার বাচ্চু, যশলং ইউপি চেয়ারম্যান আলমাস চোকদার কামারখারা ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন হালদার, ,বালিগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান হাজী দুলাল, আড়িয়াল ইউপি চেয়ারম্যান দ্বিন ইসলাম, বেজগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আমির হোসেন, ক্ষিদিরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ব্যাপারী, লৌহজং-তেউটিয়ার রফিকুল ইসলাম মোাল্লা, হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, কুমারভোগের ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান তালুকদার, মেদিনী মন্ডল ইউপি চেয়ারম্যন আশরাফ হোসেন খান, কাঠাদিয়া-শিমুলিয়া ইউপি প্যানেল চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস আলম খান, জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুবীর চক্রবর্তী, লৌহজং উপজেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের আহবায়ক হামিদুর রহমান জুয়েল ও যুগ্ম-আহবায়ক বিদ্যুত আলম মোড়ল প্রমুখ।

প্রধান অতিথির ভাষণে অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি বলেন, শেখ হাসিনার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ, তার হাত ধরেই আসছে সোনালী দিন। রচিত হচ্ছে আগামী প্রজন্মের সোনালী দিন। তিনি মুন্সীগঞ্জ-২ আসনের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরে বলেন, প্রামীন জনপদের চেহারা পাল্টে গেছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, শিল্পসহ সকল সেক্টরে বৈপ্লিবিক পরিবর্তন এসেছে। মানুষের আর্থ-সমাজিক অবস্থার যুগান্তকারী পরিবর্তন এসেছে। এসবাই সম্ভব হয়েছে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতত্বে। এর ধারাবাহিকতা রক্ষায় এবং বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন পুরোপুরি বাস্তায়নে তিনি আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানান।