১৮ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে দুই হত্যাকাণ্ড, মাদ্রাসাছাত্রীর লাশ উদ্ধার

  • দুই নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আশুরার ছুটিতে রাজধানীতে দুটি হত্যাকা-ের ঘটনা ঘটেছে। রামপুরায় এক মাদ্রাসার ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার হয়েছে। কদমতলীতে বিদ্যুতায়িত হয়ে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। পুরনো ঢাকার শ্যামপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে নির্মাণসামগ্রীর নিচে পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। একই এলাকায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে এক কিশোর গুলিবিদ্ধসহ তিন যুবক আহত হয়েছেন।

শনিবার সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, রাজধানীর মিরপুরে রাইখোলা এলাকায় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে জাকির হোসেন (৩৫) নামে এক পরিবহন শ্রমিক খুন হয়েছে। তিনি পেশায় পরিবহন শ্রমিক ছিলেন। নিহতের বাবার নাম উকিল উদ্দিন। গ্রামের বাড়ি যশোর জেলার মোল্লাপাড়া গ্রামের। সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে তিনি মিরপুর চলন্তিকা মোড় এলাকায় থাকতেন।

নিহতের খালাত ভাই পিন্টু জানান, শুক্রবার রাতে মিরপুর কমার্স কলেজের ঢাল সংলগ্ন বস্তিতে মাদক কেনার জন্য ভেতরে যান জাকির। কিছুক্ষণ পর সে বুকে হাত দিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় বের হয়ে আসেন। পরে দ্রুত তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরের দিকে তার মৃত্যু হয়। নিহতের খালাত ভাই পিন্টুর দাবি, মৃত্যুর আগে জাকির জানিয়েছে, ওই বস্তিতে মাদক কেনার সময় দাম নিয়ে জাকিরের সঙ্গে মাদক বিক্রেতাদের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায় বিক্রেতারা তার বুকে ছুরিকাঘাত করে। শাহআলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সালাউদ্দিন মিয়া জানান, জাকিরকে কারা খুন করেছে। তা নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। খুনীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে একইদিন দুপুরে রাজধানীর পল্লবীর সিটি কর্পোরেশনের পরিত্যক্ত মার্কেটের পাশে একটি পরিত্যক্ত ভবনে সাব্বির (২৬) নামের এক যুবককে পিটিয়ে ভবন থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পল্লবী থানার ওসি মোঃ নজরুল ইসলাম জানান, স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার দুপুরে বেনারসি পল্লী এলাকায় সিটি কর্পোরেশনের পরিত্যক্ত ভবনের পাশ থেকে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তার লাশের ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, রাতের যে কোন সময় তাকে হত্যা করে রেখে গেছে। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে পল্লবী থানার এসআই শহিদুল ইসলাম জানান, নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মাথা ও মুখ রক্তাক্ত ছিল। পা ভেঙ্গে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে মারধরের পর হত্যার উদ্দেশ্যে ভবনের ছাদ থেকে নিচে ফেলে দেয়া হয়েছে। মরদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মাদ্রাসা ছাত্রী ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ॥ রাজধানীর রামপুরা জাতীয় মহিলা মাদ্রাসা থেকে সানজিদা রশিদ মিম (১৩) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ ওই মাদ্রাসার ৫ তলার বাথরুম থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। এদিকে এ ঘটনায় পুলিশ মাদ্রাসার এক শিক্ষিকাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। নিহতের বাবার নাম হারুন মোল্লা। গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার দৌলতপুর গ্রামে। রাজধানীর পশ্চিম রামপুরা উলন রোড এলাকার বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকত সে। নিহতের মা সিমা আক্তার জানান, তার মেয়ে রামপুরা জাতীয় মহিলা মাদ্রাসায় হাফেজি লাইনের নাজেরায় পড়াশোনা করত। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে সে বাসা থেকে মাদ্রাসায় চলে যায়। সেখানে বোর্ডিং থাকে। প্রতিদিনের মতো শনিবার সকাল ১১টার দিকে মিমের জন্য ভাত নিয়ে মাদ্রাসায় যান তিনি। তখন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ তাকে জানান, আপনার মেয়ের সঙ্গে কারও প্রেমের সম্পর্ক আছে। এর কিছুক্ষণ পরে জানতে পারি মিমের মৃত্যু সংবাদ। হাতিরঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু মোঃ ফজলুল করিম জানান, উলন রোডে রামপুরা জাতীয় মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ছিল মিম। ওই মাদ্রাসার পাঁচতলা ভবনের ছাদের ওপরে একটি রাথরুম থেকে মিমের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, মিমের মৃত্যুর কারণ উদ্ঘাটনে পুলিশ কাজ করছে। এ ঘটনায় মাদ্রাসার এক শিক্ষিকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

বিদ্যুতায়িত হয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু ॥ রাজধানীর কদমতলীতে বিদ্যুতায়িত হয়ে মেহেদী হাসান বাবু (২২) নামে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি ঢাকা কলেজের হিসাববিজ্ঞানের স্নাতক প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। পুরনো ঢাকার জুরাইন রজ্জব আলী সরদার রোডে তার পৈত্রিক বাড়িতে সপরিবারে থাকত।

নিহতের ভাই পিন্টু জানান, জুরাইনের বাড়ির নির্মাণাধীন ভবনের তৃতীয় তলায় সেনেটারির কাজ চলছিল। তিনি জানান, শনিবার দুপুর ২টার দিকে বাবু নিচ থেকে জিআই পাইপ ওঠানোর সময় অনবধানবশত বাড়ির পাশের উচ্চক্ষমতার বিদ্যুতের তারের সঙ্গে স্পর্শ লাগলে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে বাবু জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছিল। পাইপ নিয়ে ওপরে ওঠার সময় অনবধানবশত বৈদ্যুতিক তারের সঙ্গে স্পর্শ লাগলে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে গুরুতর আহত হয় সে। এ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বিকেল ৩টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মোঃ বাচ্চু মিয়া বলেন, বিকেলে তার লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। দুই ভাই চার বোনের মধ্যে বাবু সবার ছোট ছিল।

দুই শ্রমিকের মৃত্যু ॥ আশুরার ছুটির দিন শুক্রবার রাতে পুরনো ঢাকার শ্যামপুরে নির্মাণাধীন ভবন থেকে নির্মাণসামগ্রীর নিচে পড়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হচ্ছেন আবুল বাশার (৪৫) ও নজরুল হাওলাদার (৩৮)। নিহতদের সহকর্মী মোঃ সবুজ জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে শ্যামপুর বড়ইতলা এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের নিচে কাজ করছিলেন বাশার ও নজরুল। এ সময় তাদের পাশেই ক্রেন দিয়ে ওপরে ভারি মালামাল সরানোর কাজ করছিল অন্য শ্রমিকরা। হঠাৎ ক্রেনের তার ছিঁড়ে গেলে নির্মাণসামগ্রী ওই দুই শ্রমিকের মাথার ওপর পড়ে। পরে দু’জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। তিনি জানান, নিহত নজরুল বরগুনার আমতলী উপজেলার লতিফ হাওলাদারের ছেলে। দুই সন্তানসহ পরিবার নিয়ে বড়ইতলা এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকতেন। বাশারও একই এলাকায় থাকতেন। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া জানান, শনিবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে তাদের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিন কিশোর গুলিবিদ্ধ ॥ আশুরার ছুদির দিন শুক্রবার রাতে পুরনো ঢাকার শ্যামপুর ব্রিজের ঢালে স্থানীয় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে এক কিশোর গুলিবিদ্ধসহ তিন যুবক আহত হয়েছেন। আহতরা হচ্ছে, মোঃ লিটন (২০), মোঃ হৃদয় (১৮) ও আলামিন (১৮)।

তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাপসাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এসআই বাচ্চু মিয়া জানান, পায়ে গুলিবিদ্ধ লিটন, মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত হৃদয়ের ও মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত আলামিনের।

নির্বাচিত সংবাদ