২৩ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ড. কামালের মক্কেল বিএনপি জামায়াত ॥ ইনু

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ দেশের উন্নয়ন ও শান্তি বজায় রাখতে শেখ হাসিনার সঙ্গে থাকার আহ্বান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার অতীতের সামরিক শাসনের জঞ্জাল, সাম্প্রদায়িকতার অন্ধকার থেকে বাংলাদেশকে নিজস্ব পথে পরিচালিত করছেন। গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠানগুলো চালু করা হয়েছে। বিএনপি দেশের এই অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে চায়। মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে দেশের মানুষকে বিভ্রান্তি করার চেষ্টা করছে। দেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। ড. কামাল হোসেনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, তিনি (ড. কামাল) বলেছিলেন, বিএনপি সমিতির রাজাকার উকিল হবেন না। শেষ পর্যন্ত নামকরা এই উকিল ড. কামালের মক্কেল হলো বিএনপি-জামায়াত। জাতীয় ঐক্যের অজুহাতে কণ্ঠে গণতন্ত্রের বুলি নিয়ে ড. কামাল হোসেন খালেদা জিয়া উদ্ধার, বিএনপি রক্ষা এবং বিএনপি জামায়াত জঙ্গী দুস্কর্ম আড়াল ও রক্ষার প্রকল্প বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছেন। শনিবার বিকেলে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বগুড়া শহীদ খোকন শিশু পার্কে নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন। মঞ্চে বগুড়া সদর আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট ইমদাদুল হককে পরিচয় করিয়ে দেন। এ সময় মঞ্চে তার পাশে ছিলেন বগুড়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য জাসদের বগুড়া জেলা সভাপতি রেজাউল করিম তানসেন।

তথ্যমন্ত্রী ইনু বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের পথে দ্রুত এগিয়ে চলেছে। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ প্রশংসিত হয়েছে। দেশের অর্থে পদ্মা সেতু হচ্ছে। ঘরে ঘরে বিদ্যুত পৌঁছানো হয়েছে। সরকারের মূল লক্ষ্য সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রেখে তার ধারাবাহিকতায় নির্বাচন করা। নির্বাচন সময় মতোই হবে। বিএনপির লক্ষ্য নির্বাচন বানচাল করে সাংবিধানিক শূন্যতা সৃষ্টি করে অস্বাভাবিক সরকার গঠন করা। বিএনপির লক্ষ্য গণতন্ত্র নয়। লক্ষ্য যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ ও ২১ আগস্টের খুনীদের রক্ষা করা। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের ঠিকাদারি নিয়েছে ড. কামাল। বিএনপির পাতা ফাঁদে পা দিয়েছেন ড. কামাল। ইনু বলেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। আগামী নির্বাচনে তিনি ১৪ দলের প্রার্থীদের বিজয়ী করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, যারা শেখ হাসিনার পদত্যাগ চায় তারা সাংবিধানিক শূন্যতা সৃষ্টি করে ভূতের সরকার গঠনের পাঁয়তারা করছে। বিএনপি যখন কোনঠাসা তখন ড. কামাল নাজিল হয়েছেন রাজনীতির মাঠে। ড. কামাল হোসেন আসলে বিএনপি-জামায়াত রক্ষার কাজে নেমেছেন। বিএনপি ও ড. কামাল হোসেনের দাবি এক ও অভিন্ন। তাদের লক্ষ্য খালেদা জিয়া উদ্ধার ও বিএনপি জামায়াত রক্ষা। বিএনপি ও ড. কামাল এখন একই গোয়ালে। বিএনপি জঙ্গী রাজাকারের বিষবৃক্ষ। জামায়াত বিএনপি যুদ্ধাপরাধী একই রশুনের গোড়া।

জাসদ বগুড়া শহর শাখার সভাপতি রবীন্দ্রনাথ দাসের সভাপতিত্বে ও জাসদ সদর উপজেলা শাখার সভাপতি হারুনুর রশীদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনী জনসভায় প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা সভাপতি রেজাউল করিম তানসেন, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আব্দুল হাই তালুকদার, শরিফ উদ্দিন মোল্লা, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন, মুজিবুল হক বকু, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মারুফ মনা, জাকিরুল হক টিটন, শরিফুল কবির স্বপন, জাসদ ছাত্রলীগের সভাপতি আহসান হাবিব শামিম জীবন কৃষ্ণ যাদব প্রমুখ।

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা থেকে জানান, তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, খালেদা জিয়া পাকিস্তানের কন্যা, তিনি রাজাকারের মা, জঙ্গী ও আগুন সন্ত্রাসীদের আসল মা। তাই খালেদা-বিএনপি-জামায়াতকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপি হচ্ছে বাংলাদেশ বিরোধী শক্তি। বিএনপি থাকলে আবারও দেশে জঙ্গী-আগুন সন্ত্রাসী উৎপাদন হবে। তাই দেশ থেকে বিএনপিকে বিতাড়িত করতে হবে, তারা রাজনীতির বিষবৃক্ষ।

শনিবার পলাশবাড়ি শহীদ মিনার মাঠে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) উপজেলা শাখা আয়োজিত এক বিশাল পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেনরা সকল দুষ্কর্মের ঘাঁটি বিএনপিকে রাজনীতিতে পুনর্বাসনের ঠিকাদারি নিয়েছেন। তারা যদি এই ঠিকাদারি বন্ধ না করেন, তাহলে জামায়াত-বিএনপির যে পরিণতি হয়েছে, তাদেরও সেই পরিণতি ভোগ করতে হবে।