২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকা উত্তর সিটির প্যানেল মেয়র ওসমান গনির ইন্তেকাল

ঢাকা উত্তর সিটির প্যানেল মেয়র ওসমান গনির ইন্তেকাল

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পো-রেশনের (ডিএনসিসি) প্যানেল মেয়র ওসমান গনি আর নেই। শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল আটটা ৩৫ মিনিটে সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)। আজ রবিবার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে সিংগাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তার লাশ ঢাকায় আনা হবে বলে জনকণ্ঠকে জানিয়েছেন ডিএনসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা এ এস এম মামুন। বাদ যোহর গুলশান আযাদ মসজিদে মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। বাদ আছর বাড্ডা আলাতুন্নেসা উচ্চ বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ৬৯ বছর বয়সী আওয়ামী লীগের প্রবীণ এই নেতা স্ত্রী ও চার ছেলে রেখে গেছেন। তার মৃত্যতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। একইসঙ্গে তার রুহের মাগফেরাত কামনা করেন ও তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। এছাড়া স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশারফ হোসেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, ডিএনসিসির প্যানেল মেয়র জামাল মোস্তফা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা গেছে, ওসমান গনি গত জুলাই মাসের মাঝামাঝি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। রাজধানীর বারডেম জেনারেল হাসপাতালে চেকআপ করার পর তার ফুসফুসে ক্যান্সার ধরা পড়ে। পরে গত ১৪ আগস্ট সরকারের কাছ থেকে ছুটি নিয়ে চিকিৎসার জন্য তিনি সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত মঙ্গলবার রাতে তার শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তাকে আইসিউতে পাঠানো হয়। পরে বৃহস্পতিবার রাতে তার শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি ঘটলেও শুক্রবার ভোরে অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়। অবশেষে শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে তিনি মারা যান। উল্লেখ্য, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক অসুস্থ হয়ে চিকিৎসার জন্য লন্ডন গেলে গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর ওসমান গনিকে প্যানেল মেয়র নিয়োগ দেয়া হয়। আনিসুল হকের মৃত্যুর পরও প্যানেল মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন ওসমান গনি। একইসঙ্গে ডিএনসিসির ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওসমান গনি বাড্ডা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন।