১৫ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অলিম্পিক শেয়ার কেলেঙ্কারির মামলায় শুনানী ৭ অক্টোবর

অলিম্পিক শেয়ার কেলেঙ্কারির মামলায় শুনানী ৭ অক্টোবর

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেয়ারবাজার বিষয়ক বিশেষ ট্রাইব্যুনালে ১৯৯৬ সালে শেয়ার কেলেঙ্কারির জন্য দায়েরকৃত অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের মামলায় দ্বিতীয় দিনের মতো সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার বিচারক মোঃ আকবর আলী শেখ এর আদালতে এই সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। ওইদিন আংশিক সাক্ষ্য দেন মামলাটির বাদী এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক নির্বাহি পরিচালক এম.এ রশীদ খান। বাকি অংশের সাক্ষ্য দিয়েছেন রবিবার। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আগামি ৭ অক্টোবর মামলাটিতে সাক্ষীকে জেরা করার জন্য দিন ধার্য করেছেন বিচারক মোঃ আকবর আলী শেখ। ওইদিন সাক্ষী এম.এ রশীদ খানকে জেরা করবেন আসামীপক্ষের আইনজীবীরা।

রবিবার ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাসুদ রানা খান। আর আসামী আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের আইনজীবী হিসেবে ছিলেন বোরহান উদ্দিন ও মোশাররফ হোসেন কাজল।

এর আগে গত ২৯ আগষ্ট মামলাটির অভিযোগ (চার্জ) গঠন করা হয়েছে। তবে ওইদিন ট্রাইব্যুনালে হাজির না হওয়ার কারলে এ মামলাটির আসামী আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনাল গ্রেফতারি পরোয়ানা (ওয়ারেন্ট) ইস্যু করেছে।

গত ৭ আগস্ট মামলাটির চার্জ গঠনের জন্য পূর্বনির্ধারিত থাকলেও তা পিছিয়ে ২৯ আগস্ট করা হয়েছিল। ওইদিন বাদী ও বিবাদী উভয়পক্ষের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাইব্যুনাল তা মঞ্জুর করে এবং ২৯ আগস্ট দিন ধার্য করেছিল।

এর আগে ২৪ জুলাই ট্রাইব্যুন্যালে উচ্চ-আদালতের স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের কপি দাখিলের মাধ্যমে মামলাটির বিচার কাজ শুরু হয়েছে। এ মামলাটির আসামীরা হলেন অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজসহ মোহাম্মদ ভাই ও আজিজ মোহাম্মদ ভাই। এরমধ্যে মোহাম্মদ ভাই চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি মারা গেছেন।

ওইদিন আসামীদের আইনজীবী বোরহান উদ্দিন ট্রাইব্যুনালে মোহাম্মদ ভাইয়ের মৃত্যুর সনদ দাখিল করেন। এর আলোকে মোহাম্মদ ভাইয়ের মৃত্যুর সত্যতা যাছাইয়ে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশকে ট্রাইব্যুনাল নির্দেশ দিয়েছিল। যার মৃত্যুর সত্যতা আছে বলে ট্রাইব্যুনালকে অবহিত করে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ।

গত বছরের ৩০ নবেম্বর উচ্চ-আদালত অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার কেলেঙ্কারী মামলাটির স্থগিতাদেশ বাতিল করে। বিচারক এম এনায়েতুর রহিম ও শহিদুল করিমের দ্বৈত বেঞ্চ এই বাতিলের আদেশ দেন।

২০১৩ সাল থেকে স্থগিত রয়েছে অলিম্পিক ইন্ডাষ্ট্রিজের শেয়ার কেলেঙ্কারীরর মামলাটি। ১৯৯৯ সালে দায়েরকৃত মামলাটি ২০১৫ সালে শেয়ারবাজার বিষয়ক ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরিত হয়েছে। তবে উচ্চ-আদালতের নির্দেশে এতোদিন মামলাটির বিচার কাজ বন্ধ ছিল।

উল্লেখ্য, ১৯৯৬ সালে প্রতারণার মাধ্যমে সাধারন বিনিয়োগকারীদের ঠকিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজসহ মোহাম্মদ ভাই ও আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের নামে মামলা দায়ের করা হয়।