২২ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝড়ের সমুদ্রে ৩ ট্রলারসহ ৪৮ জেলে নিখোঁজ

ঝড়ের সমুদ্রে ৩ ট্রলারসহ ৪৮ জেলে  নিখোঁজ

সংবাদদাতা, পাথরঘাটা, বরগুনা ॥ হঠাৎ বৈরী আবহাওয়ার কারণে গভীর সমুদ্রে প্রচন্ড ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলার ডুবির ঘটনায় চারদিন পর দুই ট্রলারসহ ৩৯ জেলের সন্ধান পাওয়া গেছে। রোববার সকাল ১০টার দিক ভারতের ঝাউতলা নামক স্থান থেকে ট্রলারসহ ৩৯ জেলে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে। কাল সোমবার দুপুর নাগাত তারা পাথরঘাটায় পৌঁছাতে পারে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত গভীর সমুদ্রের নারিকেলবাড়িয়া, ফেয়ারওয়েবয়া, দুবলাসহ অনেক জায়গায় পৃথক ভাবে ৯টি ট্রলার ডুবে যায়। ডুবে যাওয়ার দুদিন পর শনিবার ভাসমান ১১৩ জেলে উদ্ধার হয়। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত ১৫২জন জেলে উদ্ধার হয়।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি চৌধুরী গোলাম মোস্তফা এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, বঙ্গোপসাগরে ডুবে যওয়া ট্রলারের মধ্যে ভারতীয় জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে ভারতের ঝাউতলা এলাকা থেকে আজ রবিবার সকাল ১০টার দিকে আলম মোল্লার মালিকানাধীন এফবি মহসিন আউলিয়া ৫ ট্রলারের ২২ ও মো.পনু আকনের মালিকানাধীন এফবি সুজনের ১৭ জন রওয়ানা হয়েছে। তারা সকলেই অক্ষত রয়েছে, তবে শারীরিকভাবে অসুস্থ্য রয়েছে বলেও জানান।

এদিকে ট্রলার ডুবির ঘটনায় এখনো ৩ ট্রলারসহ ৪৮ জেলে নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজদের মধ্যে পাথরঘাটার জসিমের মালিকানা এফবি মা ট্রলারের ১৭, হারুন হাওলাদারের মালিকানাধীন এফবি তানজিলা ট্রলারের ১১, ছগির পহলানের মালিকানাধীন এফবি আরমান ট্রলারের ৪জন ও মহিপুরের জাকিরের মালিকানাধীন এফবি জাহানারা ট্রলারের ১৬। নিখোঁজদের উদ্ধারের জন্য নৌবাহিনী ও কোস্টগার্ডের যৌথ অভিযান অব্যহত রয়েছে।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর খুলনার ক্যাম্পের লে. ফরিদ বলেন, আমাদের টিম সার্বক্ষনিক উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। কোস্টগার্ডের পশ্চিম জোনের অপারেশন অফিসার লে. মাহমুদ আলী বলেন, আমাদের সুন্দরবন কেন্দ্রীক সকল ক্যাম্পের সদস্যরা সাগরে অভিযানে রয়েছে।