১৭ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে ॥ পলক

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, পুরো বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা এখন আর ঘোড়ার গাড়িতে নয়, অটো গাড়িতে চড়ি। বাংলাদেশ এখন আর দরিদ্র রাষ্ট্রের কাতারে নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ নিম্ন আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশ শিক্ষার ওপর দাঁড়িয়ে তরুণ প্রজন্মের উপর নির্ভর করে, বাংলাদেশ শ্রমনির্ভর জাতি থেকে প্রযুক্তিনির্ভর জাতিতে পরিণত হবে।

রবিবার সকালে রাজশাহীতে বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক প্রকল্পের আওতায় এ আর ভি আর ও এম আর ল্যাব উদ্বোধন শেষে রাবির সিনেট ভবনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, আজ ডিজিটাল বাংলাদেশে একটি নতুন দিগন্তের উন্মোচন হলো। আমাদের দায়িত্ব ছিল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দেয়া, এমন ল্যাব তৈরি করে দেয়া সেটা আমরা করে দিয়েছি। এখানে বসে বিশ্ব জয়ও করা সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের তরুণ ছাত্র জনতার ওপর বিশ্ব জয়ের এ দায়িত্ব অর্পণ করেছেন। প্রতিমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, অকমেনটরি রিয়্যালিটি, ভার্চুয়াল রিয়্যালিটি ও মিক্স রিয়্যালিটি বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় প্রযুক্তি। এমন প্রযুক্তি সব জায়গায় পরিবর্তন আনবে। পুুরো বিশ্ব এখন এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশ যেন কোনভাবে পিছিয়ে থাকতে না পারে, বিশ্বের দরবারে নেতৃত্ব দিতে পারে সেজন্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অকমেনটরি রিয়্যালিটি, ভার্চুয়াল রিয়্যালিটি ও মিক্স রিয়্যালিটি সম্পূর্ণ ল্যাব তৈরি হলো। আমাদের তরুণ প্রজন্ম এই ল্যাবটি ব্যবহার করে নিজেরা যেমন নিজেদের পায়ে দাঁড়াবে তেমনি বাংলাদেশের যে প্রযুক্তিনির্ভর অর্থনীতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে সেখানেও আমরা সফল হব।

বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্ক বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তোমরা সঠিক তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহার করা জানবে। তোমাদের জন্য নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতেই সারা দেশে ২৮টি হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে। রাজশাহীর মাটিতে প্রায় ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের শেখ মুজিব হাই-টেক পার্ক উপহার দিয়েছেন। সেখানে প্রায় ১৪ হাজার তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে। সেই তরুণ তরুণী আমাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমরা আশা করছি বিশ্ববিদ্যালয়ের অত্যাধুনিক এই ল্যাবের মাধ্যমে একদিকে যেমন শেখ মুজিব হাই-টেক পার্কে আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মের সন্তানদের কর্মসংস্থানের জন্য তাদেরকে সুযোগ্য করে তুলবে পাশাপাশি বিশ্বে আমরা প্রযুক্তিনির্ভর বাংলাদেশে ডিজিটাল অর্থনীতি গড়ে তুলতে এ ল্যাব ভূমিকা পালন করবে। প্রযুক্তিগত শিক্ষা আগামী দিনে অপরিসীম সম্ভবনা বয়ে আনবে। অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও বঙ্গবন্ধু হাই-টেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক একেএম ফজলুল হক।

আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সেখ। পরে প্রতিমন্ত্রী রাজশাহীতে নির্মাণাধীন হাইটেক পার্কের ১০ তলা বিশিষ্ট সিলিকন টাওয়ার বাউন্ডারি ওয়াল ও সাবস্টেশন ভবন হারভেষ্টিং কাজের উদ্বোধন করেন। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।