১৫ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বগুড়ায় মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ শেরপুর উপজেলার সঙ্গে ধুনট উপজেলা যুক্ত হয়ে জাতীয় সংসদের বগুড়া-৫ আসন। এই আসনে বেশির ভাগ সময়ে সংসদ সদস্য (এমপি) ছিলেন বিএনপির গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। ২০০৮’র নবম সাধারণ নির্বাচনে তিনি পরাজিত হন আওয়ামী লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমানের কাছে। দশম সাধারণ নির্বাচনেও তিনি এমপি হন। একাদশ সাধারণ নির্বাচনে এখন থেকেই প্রতিটি ইউনিয়নে যাচ্ছেন। শেরপুর নিজ বাড়িতে রাতে কর্মী সমর্থকদের নিয়ে মত বিনিময় করছেন। কর্মীদের রাতের খাবারের ব্যবস্থাও করেন। এই আসনে আওয়ামী লীগের আরেক প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু। তিনি প্রতিদিনই আওয়ামী লীগের গত দশ বছরের উন্নয়নের প্রচার চালাচ্ছেন। যেখানেই যাচ্ছেন উন্নয়নের লিফলেট বিতরণ করছেন। উল্লেখিত এই দুই জনের বাড়ি শেরপুর উপজেলা সদরে। এই আসনে আওয়ামী লীগের আরেক প্রার্থী ধুনট উপজেলার নুরুন্নবী তারেক মাঠে আছেন। তিনি ধুনটে প্রচার চালাচ্ছেন। এদিকে এই প্রথমবার এই আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়ে মাঠে নেমেছেন দুইজন নারী। তারা প্রত্যেকেই নিজদের ইমেজে এলাকায় গ্রহণযোগ্যতা গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন। প্রতিদিনই তারা কোন না কোন এলাকায় যাচ্ছেন। তারা হলেনÑ কেন্দ্রীয় আওয়ামী মহিলা আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌসী রূপা এবং শেরপুর শহর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শিল্পপতি ও সমাজসেবিকা তাহমিনা জামান হিমিকা। তারা ভবানীপুর সোনকা, সীমাবাড়ি, চান্দাইকোনা মির্জাপুর বিশালপুর এলাকায় গণসংযোগ করছেন। ভোটারদের কয়েকজন বললেন, এই আসনে নারী প্রার্থীদের গণসংযোগ উঠান বৈঠক সাধারণের মধ্যে বড় ধরনের প্রভাব ফেলেছে। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে এখনই গুঞ্জন উঠেছে বিএনপি অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিলে গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ মনোনয়ন পাবেন। তার সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশীর লাইনে দাঁড়িয়েছেন জানে আলম খোকা, মাহবুবুর রহমান হারেজ ও বগুড়া পৌর মেয়র এ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান, এস এম শফিউজ্জামান খোকন। জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী এ্যাডভোকেট শাজাহান তালুকদার ও তাজ মোহাম্মদ।

শেরপুর-২ (শিবগঞ্জ) আসন ॥ এই আসনে আওয়ামী লীগ মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে আছেন সমাজসেবক মুক্তিযোদ্ধা আকরাম হোসেন। তার পাশাপশি আওয়ামী লীগের আরেক নেতা আবুল কাশেম ফকির প্রতিটি এলাকায় গিয়ে গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক করছেন। আবুল কাশেম ফকির এক সময় উপজেলা চেয়্যারম্যান ছিলেন। সফল উপজেলা চেয়ারম্যানের ইমেজকে ধরে রাখার চেষ্টা করছেন। তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের আরও আছেন আজিজুল হক, মোস্তাফিজার রহমান।

সংশোধনী ॥ দৈনিক জনকণ্ঠের গেল ২১ সেপ্টেম্বর ‘বগুড়ায় গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে মাঠে সম্ভাব্য প্রার্থীরা’ শিরোনামে প্রকাশিত খবরের একাংশে জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আবুল কাশেম ফকিরের নাম ছাপা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে হবে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী আবুল কাশেম ফকির। অনবধানবশত এই ত্রুটি হয়েছে।

নওগাঁয় জলিল পুত্রের গণসংযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা নওগাঁ থেকে জানান, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে নওগাঁ-৫ সদর আসনের গ্রামে গ্রামে, পাড়ায়-মহল্লায় গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সফল বাণিজ্যমন্ত্রী মরহুম আব্দুল জলিলের পুত্র ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন। শনিবার রাত পর্যন্ত তিনি সদর উপজেলার শিকারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে ঘুরে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় ও আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে উন্নয়নের রূপকার শেখ হাসিনার নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবারো বিজয়ী করার আহ্বান জানান। এলাকার প্রাণপ্রিয় নেতা আব্দুল জলিলের মৃত্যুর পর তার পুত্র জনকে কাছে পেয়ে এলাকার সর্বস্তরের মানুষ আবেগে তাকে বুকে তুলে নেন। এর আগে শুক্রবার বিকেলে তিনি বোয়ালিয়া ইউনিয়ন এলাকার উদ্দেশ্যে বিশাল মোটরবাইক শোভাযাত্রা বের করেন। মোটরবাইক শোভাযাত্রাটি এনায়েতপুর গ্রামে পৌঁছালে গাবতলী জাগরণী ক্লাবের উদ্যোগে ওই ক্লাবের সভাপতি ও আশা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী বিশিষ্ট সমাজ সেবক হারুনুর রশিদ ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জনকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় ওই এলাকায় সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে তিনি কথা বলেন এবং আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন। তিনি নওগাঁসহ দেশব্যাপী উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এবং শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য সর্বস্তরের মানুষের প্রতি অনুরোধ জানান।

ঈশ্বরদীতে শোভাযাত্রা

স্টাফ রিপোর্টার ঈশ্বরদী থেকে জানান, জনগণ সঠিক সিদ্ধান্ত নিলে এবং শেখ হাসিনা আবারও ক্ষমতায় এসে প্রধানমন্ত্রী হলে ঈশ্বরদীকে নতুন করে সাজানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন, নব্বইয়ের গণআন্দোলনের নেতা ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা এবং বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার অন্যতম আইনজীবী এ্যাড. রবিউল আলম বুদু। রবিবার দুপুরে শেখ হাসিনার ৭২তম জন্ম দিন উপলক্ষে ঈশ্বরদী শহরে বের করা শোভাযাত্রা পথে ঈশ্বরদী বাজার, আওয়ামী লীগ অফিস ও পোস্ট অফিস মোড়ে অনুষ্ঠিত পৃথক পথসভায় তিনি এ ঘোষণা দেন। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল হুদা পাখি সরদার, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান, আব্দুল হান্নান, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান উজ্জল, ঈশ্বরদী সরকারী কলেজের সাবেক ভিপি ফিরোজুল হক জুয়েল, ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুরসহ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।