১৫ অক্টোবর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্বাচনে নতুন সরকার আসলেও দেশের অর্থনীতিতে কোন প্রভাব পড়বে না

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আগামী জাতীয় নির্বাচনে নতুন সরকার আসলেও দেশের অর্থনীতি ও দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক বাণিজ্যে কোন প্রভাব ফেলবে না বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

রবিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে এসডিজি বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। দ্য ইনস্টিটিউট অব কাস্ট এ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট এ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি) এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আগামী তিনমাস পর নির্বাচন। তাই এই সময়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এমন একটা উপযুক্ত ব্যবস্থা গড়ে তুলেছি। এটা বজায় থাকবে। তাই এ সময় পরিবেশ যাই হোক না কেন দেশের অর্থনীতিতে তার প্রভাব পড়বে না।

তিনি বলেন, আগামী ডিসেম্বরের পর নতুন সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করবে। আশা করছি এ সময় বাণিজ্য আরও বাড়বে। আমরা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ভালো করলেও দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক বণিজ্যে তেমনটা করতে পারছি না। তবে ব্যবসা-বণিজ্য সম্প্রসারণে বর্তমানে আমরা ভারত ও চীনকে বড় পার্টনার হিসেবে পেয়েছি। তাদের সঙ্গে ভাল সম্পর্কের জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে। নেপাল এবং ভুটানের সঙ্গেও বাণিজ্য বাড়াতে কাজ করছে বাংলাদেশ। অন্যান্য দেশের সঙ্গেও বাণিজ্য বাড়াতে হবে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনকালে যাই ঘটুক না কেন তা আঞ্চলিক বাণিজ্যে সমতা আনার প্রচেষ্টায় প্রভাব ফেলবে না। বর্তমান সরকার সারা বিশ্বে বাণিজ্য সম্প্রসারণে কাজ করছে। এজন্য নতুন নতুন বাজার খোঁজা হচ্ছে। সরকারের ধারাবাহিকতায় ভারত ও চীনসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাণিজ্য বাড়ানোর প্রচেষ্টা নতুন সরকারও অব্যাহত রাখবে বলে আশা করেন তিনি।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ভাল করলেও বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক বাণিজ্যে তেমনটা করতে পারছে না বলে মন্তব্য করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে কাজ করছে বাংলাদেশ। বিশ্বব্যাপী বাণিজ্য সম্প্রসারণে কাজ করছে সরকার। এ জন্য নতুন নতুন বাজার খোঁজা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আগামী জাতীয় নির্বাচনে নতুন সরকার এলেও দেশের অর্থনীতি ও দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক বাণিজ্যে তেমন কোনও প্রভাব ফেলবে না।’

একাদশ জাতীয় সংসদের কথা উল্লেখ করেন অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সময়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নির্বাচনের সময় দেশের পরিবেশ যাই হোক, তাতে দেশের অর্থনীতিতে কোনও প্রভাব পড়বে না।’ অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের প্রতিনিধি মিয়া সেপো বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা গুরুত্বপূর্ণ। এটা রক্ষায় আইসিএমএবি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই আইসিএমএবি কর্তৃক এ সম্মেলন আয়োজন করায় তাদের ধন্যবাদ জানাই।